channel 24

সর্বশেষ

  • চাল আমদানি নিরুৎসাহিত করতে ২৮ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে...

  • ৫৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করে এনবিআরের পরিপত্র জারি

দেশি এয়ারলাইন্সগুলোর কাছে সিভিল এভিয়েশনের পাওনা ৩৫০০ কোটি টাকা

দেশি এয়ারলাইন্সগুলোর কাছে সিভিল এভিয়েশনের পাওনা ৩৫০০ কোটি টাকা

দেশের চারটি এয়ারলাইন্সের কাছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের পাওনা প্রায় ৩ হাজার ৪শ কোটি টাকা। এর মধ্যে শুধু বিমানের বকেয়াই প্রায় ৩ হাজার ৭৫ কোটি আর রিজেন্ট এয়ারওয়েজের বকেয়া প্রায় ১৯০ কোটি টাকা। এই অবস্থায় দেশীয় কোম্পানি হিসেবে সারচার্জ মওকুফসহ বিশেষ সুবিধা চায় এয়ারলাইন্সগুলো। তবে সে সুযোগ নেই বলে জানালেন সিভিল এভিয়েশন অথরিটির চেয়ারম্যান।

বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ বা সিভিল এভিয়েশন অথরিটি বাংলাদেশ। এয়ারলাইন্স গুলো অ্যারোনটিক্যাল চার্জ ও নন অ্যারোনটিক্যাল চার্জ দিয়ে থাকে তাদের। এর মধ্যে রয়েছে ওভার ফ্লাইং, বিমান ল্যান্ডিং, পার্কিং, রুট নেভিগেশন, বোর্ডিং ব্রিজ চার্জ।

এসব সুবিধা নিয়ে টাকা পরিশোধ করেনি এ তালিকায় শীর্ষে আছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। বিমানের কাছে সিভিল এভিয়েশনের পাওনা প্রায় ৩ হাজার ৭৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে সারচার্জ ১ হাজার ৯শ ৭৩ কোটি টাকা।

এছাড়া রিজেন্ট এয়ারওয়েজের কাছে পাওনা প্রায় ১৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে সারচার্জ প্রায় ৬৮ কোটি টাকা।

এরপর ৮৪ কোটি বকেয়া নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইউএস বাংলা আর নভো এয়ারের কাছে বাকি ১ কোটি ৪১ লাখ টাকা।

সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যান বলেন, বারবার সুযোগ দেয়া পরও অনেক সংস্থা পাওনা পরিশোধ করছে না।

তবে বিমানের দাবি দেশীয় এয়ারলাইন্স হিসেবে চার্জ প্রদানে বিশেষ সুবিধা চায় তারা। আর রিজেন্ট এয়ার চাচ্ছে সারচার্জ মওকুফ।

ইতিমধ্যে বকেয়া চার্জ না দিয়েই বন্ধ হয়ে গেছে জিএমজি ও ইউনাইটেড এয়ার। বাধ্য হয়ে তাই আদালতের দ্বারস্থ হচ্ছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর