channel 24

সর্বশেষ

  • মানিকগঞ্জের পুখুরিয়ায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী বাবা-ছেলে নিহত

  • ভোটারদের কেন্দ্রে আনার দায়িত্ব প্রার্থীর, ইসির নয়: সিইসি

  • উন্নয়ন করতে গিয়ে গরিবের ক্ষতি করা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

  • দায়িত্ব নিচ্ছেন ডাকসুর ভিপি নুর; অফিস বুঝে পেতে চিঠি...

  • ডাকসু নির্বাচন সংক্রান্ত অভিযোগ তদন্তে কমিটি; ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন

  • ঢাকায় পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে ব্যর্থতা স্বীকার ডিএমপি কমিশনারের

  • ছাত্র আন্দোলনে উসকানি বিএনপির দেউলিয়াত্বের প্রমাণ: হানিফ

  • পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তে আজ বসানো হচ্ছে না অষ্টম স্প্যান

  • এমপিওভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে...

  • সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষকরা

  • সড়ক দুর্ঘটনায় সিরাজগঞ্জ, খুলনা ও নরসিংদীতে ৩ স্কুলশিক্ষার্থী নিহত

  • রাজধানীর কল্যাণপুরে তেলবাহী লরির ধাক্কায় মাদ্রাসা শিক্ষক নিহত

চকবাজার ট্রাজেডি: আগুনের উৎস গোডাউনটির মালিকের পরিচয় জানে না পুলিশ

চকবাজার ট্রাজেডি: আগুনের উৎস গোডাউনটির মালিকের পরিচয় জানে না পুলিশ

চকবাজারের ভয়াবহ আগুনে এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৭১ জন। বিভিন্ন সংস্থার তদন্ত কমিটির রিপোর্টে বলা হয়েছে, ওয়াহেদ ম্যানসনের দ্বিতীয় তলার গোডাউনে বিস্ফোরণ থেকেই আগুনের সুত্রপাত। কিন্তু গোডাউনটির মালিকের পরিচয় জানা নেই পুলিশের। এখনও গ্রেফতার হয়নি কোনো আসামি। দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া কে, আর গোডাউনটিই বা কোন প্রতিষ্ঠানের এ বিষয়ে অনুসন্ধান করেছে চ্যানেল টোয়েন্টিফোর।

চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ২০ ফেব্রুয়ারি রাতটি এসেছিলো বিভীষিকা হয়ে। হঠাৎ আগুনের লেলিহান শিখায়, প্রাণ যায় অর্ধশতাধিক মানুষের।

আরও জানতে: চকবাজার ট্র্যাজেডি: রক্ত মাংসের মানুষগুলো আজ শুধু স্মৃতি

চকবাজারের আগুন ওয়াহেদ ম্যানশন থেকে; আইইবির তদন্ত প্রতিবেদন

চকবাজারের আগুনের সূত্রপাতের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ

মর্মান্তিক এ ঘটনার পরদিনই মামলা হয় চকবাজার থানায়। এতে আসামি করা হয় আগুনের উৎস ওয়াহেদ ম্যানসনের দুই মালিক ছাড়াও, অজ্ঞাত ১০ থেকে ১২ জনকে। যদিও এখনও গ্রেপ্তার হননি কেউই।

সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ও বিভিন্ন সংস্থার তদন্ত রিপোর্ট বলছে, ওয়াহেদ ম্যানসনের দ্বিতীয় তলার বিস্ফোরনই আগুনের সুত্রপাত।

এখন প্রশ্ন, যে গোডাউনের বিস্ফোরণে আগুন ছড়িয়ে পড়ে, তার মালিক কে?? লালবাগ ডিসি থানার পুলিশ বলছে, এখনও জানা যায়নি তার পরিচয়। বাড়ির মালিককে ধরতে পারলে পাওয়া যাবে গোডাউনের মালিককেও।

ঘটনাস্থলে পড়ে থাকা বডিস্প্রের ক্যানে লেখা পার্ল ইন্টারন্যাশনালের সূত্র ধরে, অনুসন্ধান শুরু করে চ্যানেল টোয়েন্টিফোর। বিভিন্ন বিপণীবিতানে মেলে পার্ল ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের আমদানি করা ফ্লোরমার প্রসাধনী সামগ্রী। ঠিকানা লেখা ৬৪ নন্দ কুমার দত্ত রোড়, চকবাজার। এটিই মূলত ওয়াহেদ ম্যানশন।

পার্লের প্রসাধনীতে মিলেছে বিএসটিআইয়ের অনুমোদিত স্টিকার। সেখানকার আবেদনপত্রে ঠিকানা দেয়া ৬৬ মৌলভীবাজার, চকবাজার, ঢাকা। কিন্তু সেই ঠিকানায় পাওয়া যায়নি প্রতিষ্ঠানটির কোনো কার্যালয়।

বিপণীবিতানের দেয়া তথ্যে রাজধানীর হাতিরপুলে পার্লের কার্যালয় মিললেও, ছিলো তালাবন্ধ। এমনকী নেই কোনো সাইনবোর্ডও।

পার্ল ইন্টারন্যাশনালের ডিরেক্টর ইমতিয়াজ আহমেদ। ভবনের তত্ত্বাবধায়ক বলছেন, পার্লের চেয়ারম্যান সম্প্রতি মারা গেছেন। কিন্তু জানা যায়নি তার নাম পরিচয়। তবে, পার্ল ইন্টারন্যাশনালের একজন মালিক কাসেন, এতটুকু জানা গেছে।

ইমতিয়াজ আহমেদের ফোন নম্বর পাওয়া গেলেও, তা এখন বন্ধ। এমনকী যেসব এরিয়া ম্যানেজারের নম্বর পাওয়া গেছে, খোলা নেই সেগুলোও। বন্ধ রয়েছে বিডি জবসে পার্লের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে দেয়া নম্বরগুলোও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর