channel 24

সর্বশেষ

  • ব্রিটেনে তারেক-জোবাইদার ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করার নির্দেশ আদালতের

  • নুসরাত হত্যায় জড়িত সবাইকে বিচারের আওতায় আনা হবে: এইচ টি ইমাম

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের প্রমাণ মিলেছে

অভিভাবকদের কোচিংপ্রীতি সরকারের জন্য চ্যালেঞ্জ

অভিভাবকদের কোচিংপ্রীতি সরকারের জন্য চ্যালেঞ্জ

কোচিং বন্ধের সিদ্ধান্ত দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য হিতে বিপরীত হতে পারে। এমন আশঙ্কা কোচিং সেন্টার অ্যাসোসিয়েশনের।

শিক্ষা ব্যবস্থায় বিশ্বে শীর্ষে থাকা দেশ দক্ষিণ কোরিয়ায় কোচিং খুবই মামুলি বিষয়। অথচ চার দশক আগে এ দেশেই আইন করে বন্ধ করা হয়েছিলো কোচিং।

আরও: রুপপুরের ইউরেনিয়াম নিয়ে একচেটিয়া ব্যবসার ফাঁদে বাংলাদেশ?

ই-বর্জ্য, স্বাস্থ্যঝুঁকির নতুন দুর্ভাবনার নাম

তরুণ উদ্ভাবকদের রোবট মারস রোবার

কিন্তু, তারপর শিক্ষা ব্যয় কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কারণ প্রকাশ্যে কোচিং বন্ধ থাকায় অনেক বেশি টাকা দিয়ে গোপনে কোচিং করতে হয় শিক্ষার্থীদের। এরকম বাস্তবতায় পুনরায় কোচিং বহাল করে দেশটির সরকার।

বাংলাদেশেও কোচিং বাণিজ্যের সমালোচনা দীর্ঘদিনের। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) উচ্চ আদালত সব ধরনের কোচিং নিষিদ্ধ বলে রায় দেন। এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

কোচিং সেন্টার গুলোর সংগঠন কোচিং সেন্টার অ্যাসোসিয়েশন বলছে, পুরোপুরি নিষিদ্ধ নয়, তবে নিয়ন্ত্রণ করা প্রয়োজন।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরীর মতে, কোচিং সেন্টার নিয়ন্ত্রন করতে গিয়ে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হবে অভিভাবকদের মানসিকতা। সেইসাথে সরকারের নীতিমালা বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসনকে অন্তর্ভুক্ত করারও তাগিদ দিচ্ছেন তারা।

কোচিংকে ছায়াশিক্ষা হিসাবে বিশ্বব্যাপী স্বীকৃকি দিয়েছে খোদ  ইউনেসকো। তবে কোচিংয়ের নামে বাণিজ্য বন্ধে আদালত যে রায় দিয়েছেন, সেটির বাস্তবায়ন কীভাবে হবে, সেদিকে নজর থাকবে শিক্ষক-শিক্ষাথী ও অভিভাবকদের।

karimul commented 9 days ago
প্রয়োজনীয়তাই আবিস্কারের জনক। শিক্ষার্থীর প্রয়োজনের ভিত্তিতেই সহায়ক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্ভব। প্রয়োজনকে কখনো জোর করে বন্ধ করা যায় না। যার প্রয়োজন সে যে কোন ভাবে তা পূরণ করবে এটাই স্বাভাবিক। তাই ঢালাও ভাবে বন্ধ না। প্রয়োজন নীতিমালার আওতায় এনে নিয়ন্ত্রন করা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর