channel 24

সর্বশেষ

  • আবরার হত্যার আসামি নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত সঠিক...

  • এ নিয়ে রিট গ্রহণযোগ্য নয়: হাইকোর্টকে অর্থ মন্ত্রণালয়

  • বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা: ২০ জনের জামিন; ৩ জন কারাগারে

  • রংপুরে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

  • সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবাইকে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী...

  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন..

  • ঢাকা-কুড়িগ্রাম আন্তনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন

  • আবরার হত্যা: চার্জশিট হওয়ার আগ পর্যন্ত একাডেমিক অসহযোগ থাকবে...

  • চার্জশিটের পর স্থায়ী বহিষ্কার সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত: আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা...

  • তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর জড়িতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত: বুয়েট ভিসি

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক...

  • ওয়াহিদুলের বিচার শুরু; সাক্ষ্যগ্রহণ ২৪ নভেম্বর

  • দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায়...

  • ২০ জনের জামিন মঞ্জুর; ৩ জনকে কারাগারে প্রেরণ

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের...

  • প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওবায়দুলসহ ৯ জনকে দুদকে তলব

  • রংপুরের পীরগঞ্জে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ...

  • এলাকাবাসীর বিক্ষোভ; পুলিশ দাবি আত্মহত্যা

ধর্ষণ মামলার আসামির মরদেহে 'হারকিউলিসের চিরকুট' নিয়ে প্রশ্ন

ধর্ষণ মামলার আসামির মরদেহে 'হারকিউলিসের চিরকুট' নিয়ে প্রশ্ন

ধর্ষণ মামলার আসামির মরদেহে হারকিউলিস লেখা চিরকুট। প্রশ্ন উঠেছে, হত্যার আগে কারা তাদের গলায় এই চিরকুট ঝুলিয়ে দিচ্ছে? বিশ্লেষকরা মনে করেন, জনগণের বাহবা পেতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীই হারকিউলিস রূপে আবির্ভুত হয়েছে। তবে এই প্রক্রিয়ায় অপরাধ দমনে দীর্ঘমেয়াদী সমাধান দেখছেন না তারা। পুলিশ বলছে, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

হারকিউলিস, পৌরাণিক কাহিনীর রোমান হিরো। রূপকথায় রয়েছে, তার বীরত্বের নানা গল্প। নব্বইয়ের দশকে, হারকিউলিসের বীরত্বের কাহিনী নির্ভর টিভি সিরিয়াল দেখে, এদেশের অনেকেরই শৈশব কেটেছে।

ছেলেবেলার সেই হারকিউলিস এবার যেন জীবন্ত হয়ে সামনে।

আরও জানতে: যে রোগ হলে মনে থাকে সব কিছু!

দেনমোহর নির্ধারণ নিয়ে চলছে অসুস্থ প্রতিযোগিতা

উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে

সম্প্রতি ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায় ১৩ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। পরে, অভিযুক্ত দুজনেরই গুলিবিদ্ধ মরদেহ পাওয়া যায়। সাথে একটি ছিল চিরকুট। যাতে লেখা ছিল, 'ধর্ষণের পরিণতি ইহাই, ধর্ষকরা সাবধান:' হারকিউলিস।

পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, বেশ কিছুদিন আগে থেকেই একজন নিখোঁজ ছিলেন আর অন্যজনকে তুলে নিয়ে যায়, সাদা পোশাকে আসা একদল লোক।  

মানবাধিকারকর্মীরা মনে করেন, বাংলার এ হারকিউলিস হলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। জনগণকে সাময়িক স্বস্তি দিতে, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড করছেন তারা।

যদিও, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বলছে, হারকিউলিসের নামে যারা হত্যাকাণ্ড ঘটাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন, অপরাধীর বিচার না হলে, সমাজে বিশৃঙ্খলা বাড়বেই।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর