channel 24

সর্বশেষ

  • বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ: আরব আমিরাতকে ২-০ গোলে হারালো বাংলাদেশ

  • বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের সাথে অংশীদারিত্ব গড়ে তুলতে...

  • ব্রুনাইয়ের ব্যবসায়ীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবান...

  • ব্রুনাইয়ের সুলতানের সাথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠক...

  • এলএনজি সরবরাহসহ ৬টি সমঝোতা স্মারক সই এবং...

  • দুদেশের অফিসিয়াল পাসপোর্টধারীদের বিনা ভিসায় ভ্রমণের নোট বিনিময়

  • শ্রীলঙ্কা ট্র্যাজেডি: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৯০; কাল রাষ্ট্রীয় শোক...

  • আজ মধ্যরাত থেকে জারি হতে পারে জরুরি অবস্থা...

  • জামাত আল তাওহীদ আল-ওয়াতানিয়ার দায় স্বীকার...

  • আল আরাবিয়ার বরাত দিয়ে রুশ সংবাদ মাধ্যম তাস...

  • সেন্ট অ্যান্তোনি চার্চের পাশে বোমা নিষ্ক্রিয়ের সময় বিস্ফোরণ...

  • হতাহত নেই; কলম্বোর বাস স্টেশন থেকে বিস্ফোরক উদ্ধার

ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের শেষ মুহূর্তের ভিডিও

ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের শেষ মুহূর্তের ভিডিও

নেপালে গেল বছর ইউএস বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের শেষ মুহূর্তের কিছু ছবি চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের হাতে এসেছে। যদিও এ দুর্ঘটনার জন্য পাইলটের গাফিলতিকেই দুষছে নেপাল। দেশটির তদন্ত কমিটির ৪৩ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, উড়োজাহাজের ককপিটে ধূমপান করেছিলেন পাইলট। এছাড়া উড়োজাহাজের ত্রুটি নয়, পাইলটের মানসিক বিপর্যস্ততা ও ভুল সিদ্ধান্তের কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে, এসব বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। আর এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ইউএস বাংলা।

ইউ এস বাংলা ফ্লাইট নং, বিএস ২১১। অতরণের চেষ্টায় উড়োজাহাজটি। মুহূর্তেই ৭১ আরোহী নিয়ে ত্রিভূবন বিমানবন্দরে বিধ্বস্ব হয়। ২০১৮'র মার্চের এই ঘটনায় পাইলট ক্রুসহ প্রাণ হারান ৫১ জন।

আরও জানতে - নির্দোষ ব্যক্তিকে জেল খাটানোয় দুদক চেয়ারম্যানের প্রতিনিধিসহ চারজনকে তলব

দাম্পত্য কলহে ডিভোর্স: সন্তানকে ফিরে পেতে আদালতের দ্বারস্থ বাবা

এখন আসলেই সবকিছু এডিট করা যায়

ঘটনার পর থেকেই বিধ্বস্তের জন্য ইউএস বাংলার পাইলটকে দায়ী করে আসছিলো নেপাল। দেশটির তদন্ত কমিশনের ৪৩ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদনে, অবতরণের শেষ মুহুর্তে রানওয়ে নিয়ে এয়ার কন্ট্রোল রুমের সাথে পাইলটের ভুল বোঝাবুঝির বিষয়টি স্বীকার করলেও একে দুর্ঘটনার প্রধান কারণ বলতে নারাজ। তাদের দাবি, পাইলটের মানসিক অস্থিরতা, বিচলিত হওয়া ও পরিস্থিতি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা না থাকার কারণেই বিধ্বস্ত হয় বিমানটি। এমনকি নিয়ম ভঙ্গ করে বিমানে ধূমপানও করে পাইলট আবিদ।

তবে ধূমপান জনিত কারণে উড়োজাহাজ দুর্ঘটনা ঘটে নি এমন দাবি এয়ারক্রাফট অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন গ্রুপ অব বাংলাদেশ।  

যদিও বাংলাদেশের সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ কাঠমান্ডুর প্রতিবেদনের কিছু বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তাদের দাবি, কন্ট্রোল টাওয়ারের যারা দায়িত্বে ছিলেন তারা পাইলটকে সঠিক নির্দেশনা দিলে ঠেকানো যেতো এই দুর্ঘটনা।

বেশকিছু সংযুক্তি দিয়েছে এএআইজি অব বাংলাদেশ। যদি তা চূড়ান্ত প্রতিবেদনে পুণরায় উল্লেখ না করে আইকাওতে আপিল করবে এয়ারক্রাফট অ্যাক্সিডেন্ট ইনভেস্টিগেশন গ্রুপ অব বাংলাদেশ। এছাড়া নেপালের চূড়ান্ত প্রতিবেদন পুরোপুরি সত্য নয় বলে দাবি, ইউএস বাংলা কর্তৃপক্ষও।

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর