channel 24

সর্বশেষ

  • ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আগুন, ৫ জনের মৃত্যু

  • ঈদের তৃতীয় দিনেও শূন্যতা নগরীতে

  • রাজধানীতে ফিরছে মানুষ, ৩০ মে'র পর বাড়ছে না ছুটি

  • দুর্যোগে নিরাপদ দুরত্বে অবস্থান করাই বিএনপির রাজনীতি: কাদের

  • নিজের করোনা রিপোর্টে স্বাক্ষর করলেন নিজেই!

  • ৩০ মে'র পর বাড়ছে না সাধারণ ছুটি

  • এক্সিম ব্যাংকের এমডিকে হত্যাচেষ্টা, জানেনা কেন্দ্রীয় ব্যাংক

  • ঈদে থানায় প্রীতি ভোজ: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড়

  • ডলফিনের সবচেয়ে বড় বিচরণক্ষেত্র হালদা নদীই যেন এখন মৃত্যুকুপ

  • করোনায় দেশে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪১

  • শুরু থেকে লকডাউন দিলে পরিস্থিতি এতোটা ভয়োবহ হতো না: ফখরুল

  • তামিম ইকবালের সাথে একান্ত আলাপচারিতায় চ্যানেল ২৪

  • আম্পানে বাঁধ ভেঙ্গে ভেসে গেছে ৪ হাজারেরও বেশি চিংড়ি ঘের

  • মুন্সিগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাইক্রোবাস খাদে পড়ে নিহত ৩

  • কৃষি বিজ্ঞানী ও কর্মকর্তাদের প্রণোদনার কথা ভাবছেন কৃষিমন্ত্রী

ভাল মানের খাবারের দোকানে সবুজ আর নিম্নমানেরটি কমলা

ভাল মানের খাবারের দোকানে সবুজ আর নিম্নমানেরটি কমলা

চাকরি বা অন্যকোন কাজের জন্য যারা পথে ঘাটের হোটেলে খাবার খান তাদের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে চায় সরকার। শুরুতে ঢাকার ৪৯টি হোটেলকে তালিকার আওতায় এনেছে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ। এজন্য সবুজ, নীল, হলুদ এবং কমলা রং ব্যবহার করা হবে। সবচেয়ে ভাল মানের খাবারের দোকান পাবে সবুজ রং আর নিম্নমানেরটি পাবে কমলা রং।

প্রয়োজনের তাগিদে এভাবেই হোটেল রেস্তোরাঁয় খাবার খেতে হয় ভোক্তাদের।

খালি চোখে এই খাবার গ্রহণ বেঁচে থাকার তাগিদে হলেও পুষ্টিবিজ্ঞানীরা বলছেন ভিন্ন কথা।

স্বাস্থ্যকে বলা হয় সকল সুখের মূল। তাই খাদ্যের মান ঠিক রাখতে সরকারও কঠোর। ভোক্তাদের নিরাপদ খাদ্যের উৎস জানাতে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ নিয়েছে উদ্যোগ। তারা বলছে, রাজধানীর ৪৯ টি হোটেলকে চিহ্নিত করে সেগুলো মান অনুযায়ী কালার কোড লাগানো হবে।

পোকামাকড়কে ফাঁদে ফেলে খেয়ে ফেলছে উদ্ভিদ, সন্ধান মিলল বাংলাদেশে

শনিবার ঢাকার সড়কে চলাচলে ডিএমপির নির্দেশনা

সরকার যে রেস্টুরেন্টগুলোতে মান কোড বসাবে, সেগুলো দেখতে হাজির চ্যানেল টোয়েন্টিফোর। তোপখানার বৈশাখী হোটেলের রান্না ঘরে যেতে চাইলে বাধ সাধে কর্তৃপক্ষ। দেখা যায় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের দেয়া কোনো শর্তই তারা মানেনি। এই সংবাদ পেয়ে বৈশাখী রেস্তোরাকে কালার কোডের তালিকা থেকে বাতিল করে কর্তৃপক্ষ।

তবে অন্যান্য হোটেলের  রান্নাঘরের ব্যবস্থাপনা ভালো। তারা সরকারের এই পদক্ষেপকে আমলে নিয়েছে সুনামের অংশ হিসেবে। শুধু হোটেল মালিক নন, ভোক্তারাও প্রত্যাশা করছেন, এতে মিলবে নিরাপদ খাবার।

চলতি বছরের মধ্যে সারা দেশেই রেস্টুরেন্টগুলোকে কালার কোডের আওতায় আনতে চায় সরকার। তবে কালার কোড দেয়ার পরও যাতে রেস্টুরেন্টগুলো শর্ত না ভাঙে, সেজন্য কর্তৃপক্ষের নিয়মত নজরদারির তাগিদ দিয়েছেন ভোক্তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর