channel 24

সর্বশেষ

  • যুক্তরাজ্যের কনজারভেটিভ দলের নেতা নির্বাচিত বরিস জনসন...

  • পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৫৩ ভোট; হতে যাচ্ছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী

  • গাজীপুরে ২ ও জামালপুরে নারীকে গণপিটুনি; নবাবগঞ্জে নারীকে পুলিশে সোপর্দ...

  • এ পর্যন্ত গণপিটুনিতে নিহত ৬ জন; ৯টি মামলায় গ্রেপ্তার ৮১...

  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ালে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • নেতৃত্বের প্রশ্নে জাতীয় পার্টিতে কোনো দ্বন্দ্ব নেই: জি এম কাদের

  • ঘুষ গ্রহণের মামলায় সাময়িক বরখাস্ত হওয়া দুদক পরিচালক...

  • এনামুল বাছিরের জামিন নামঞ্জুর; কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

  • শুধু ডেঙ্গুতে নয়, অন্য রোগ থাকলে মৃত্যুঝুঁকি বাড়ে: ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য বিএসএমএমইউ

  • সার্চলাইটে সংবাদ প্রচারের পর মেহেরপুরে ভুয়া ডাক্তার হান্নানকে...

  • ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও চেম্বার সিলগালা, চিকিৎসা না দেয়ার মুচলেকা

এখনো বড় চ্যালেঞ্জ বৈষম্য কমানো ও বেকারত্ব দূর করা

এখনো বড় চ্যালেঞ্জ বৈষম্য কমানো ও বেকারত্ব দূর করা

চার যুগে পা দেয়া বাংলাদেশ এখন শক্ত অর্থনৈতিক ভিতে প্রতিষ্ঠিত। যাকে বহু স্বীকৃতি দিয়েছে পুরো বিশ্ব। তবে, এখনো বড় চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে বৈষম্য কমানো, বেকারত্ব দূর করা এবং প্রবৃদ্ধির গুণগত বণ্টন। বিশ্লেষকরা মনে করেন, এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা গেলে সমৃদ্ধির সোপানে আরো একধাপ এগুবে বাংলাদেশ।

সোনার চেয়ে খাঁটি এই বাংলাদেশে বিজয়ের মাস এলেই হলুদে ছেয়ে যায় গোটা প্রকৃতি। সূর্যের আলোর সাথে শিশিরকণার লুকোচুরি শেষ হলে, আড়মোড়া ভাঙে চারদিকে। আর নরম সূর্যটির তেজ বাড়লে শিমের ডগায় উঁকি দেয় আরো একটি স্বপ্ন। যেই স্বপ্নের বীজ বোনা হয়েছে চারযুগ আগে লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে। 

এদেশের মাটিতে সোনা ফলে অবিরাম। ৪০ বছরের কৃষক জহুরুল ইসলাম তাই সেই সোনার খোঁজে প্রতিনিয়তই ছোটেন নিজ জমিনে। নিত্য এই রুটিনে অন্যতম সঙ্গী তিন বছরের ছোট্ট সন্তানটি। তার মতে, মাত্র এক দশকের ব্যবধানে, গ্রামীণ অর্থনীতি যে বেশ খানিকটা চাঙ্গা হয়েছে, তার প্রমাণ তিনি নিজেই।

এক সময়ে কৃষি নির্ভর বাংলাদেশে এখনো অর্থনীতির অন্যতম ভরসা এই খাত। যার মূল্য সংযোজন বেড়েছে বহুগুণ। সবজি, মাছ কিংবা চালের উৎপাদনের গড়ছে নিত্য রেকর্ড। থেমে নেই প্রযুক্তির ব্যবহার। যদিও, গোটা অর্থনীতিতে এর অংশ কমছে ধীরে ধীরে। যা দখল করছে শিল্প খাত। তবে, এক রকম সস্তা মজুরির ওপর ভিত্তি করে এগুনো এই খাতকে আরো সামনে নিতে হলে, দরকার নতুন আঙ্গিকে বিনিয়োগ এবং পরিকল্পনা।

গেলো এক দশকে অর্থনীতিতে গড় প্রবৃদ্ধি ছাড়িয়েছে সাড়ে ছয় শতাংশ। মাথাপিছু আয়ও গেছে পৌনে দুই হাজার ডলারের ওপরে। কিন্তু, এই আয়ের বণ্টণ হয়নি সুষমভাবে। ফলে, প্রায় অর্ধেক মানুষই রয়ে গেছে নিম্ন আয়ের কাতারে। গরিব মানুষের হার কমলেও, মোট সংখ্যা এখনো দুশ্চিন্তার। এছাড়া, তরুণ জনশক্তিকে কাজে লাগানোর ক্ষেত্রেও রয়ে গেছে নানামুখী ঘাটতি।

এমন বাস্তবতায়, ভবিষ্যত পরিকল্পনা কিংবা অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে আরো একটু ভাববার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর