channel 24

সর্বশেষ

  • কোচিং বাণিজ্য: উইলস লিটল স্কুলের ৩০ শিক্ষককে দুদকের শোকজ

  • নাটোরের বাগাতিপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের নিহত ৩

  • রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধান দীর্ঘায়িত হলে বাংলাদেশ সমস্যায় পড়বে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • এসএসসি ও সমমান পরীক্ষাকালীন কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধীর সন্তানরা যেন সরকারি চাকরি না পায়...

  • তার জন্য আইন করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

  • সমাজে ব্যাধির মতো ছড়িয়ে গেছে দুর্নীতি: প্রধানমন্ত্রী...

  • সব অপরাধ দমনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে তৎপর থাকার নির্দেশ

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের...

  • উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • রিজার্ভ চুরি: চলতি মাসেই নিউইয়র্কে মামলা- অর্থমন্ত্রী

  • হলি আর্টিজান মামলার আসামি জঙ্গিনেতা মামুন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক রমিজ উদ্দিন সরকার ও...

  • তার স্ত্রীর সম্পদের হিসাব দিতে দুদকের নোটিশ

এখনো বড় চ্যালেঞ্জ বৈষম্য কমানো ও বেকারত্ব দূর করা

এখনো বড় চ্যালেঞ্জ বৈষম্য কমানো ও বেকারত্ব দূর করা

চার যুগে পা দেয়া বাংলাদেশ এখন শক্ত অর্থনৈতিক ভিতে প্রতিষ্ঠিত। যাকে বহু স্বীকৃতি দিয়েছে পুরো বিশ্ব। তবে, এখনো বড় চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে বৈষম্য কমানো, বেকারত্ব দূর করা এবং প্রবৃদ্ধির গুণগত বণ্টন। বিশ্লেষকরা মনে করেন, এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা গেলে সমৃদ্ধির সোপানে আরো একধাপ এগুবে বাংলাদেশ।

সোনার চেয়ে খাঁটি এই বাংলাদেশে বিজয়ের মাস এলেই হলুদে ছেয়ে যায় গোটা প্রকৃতি। সূর্যের আলোর সাথে শিশিরকণার লুকোচুরি শেষ হলে, আড়মোড়া ভাঙে চারদিকে। আর নরম সূর্যটির তেজ বাড়লে শিমের ডগায় উঁকি দেয় আরো একটি স্বপ্ন। যেই স্বপ্নের বীজ বোনা হয়েছে চারযুগ আগে লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে। 

এদেশের মাটিতে সোনা ফলে অবিরাম। ৪০ বছরের কৃষক জহুরুল ইসলাম তাই সেই সোনার খোঁজে প্রতিনিয়তই ছোটেন নিজ জমিনে। নিত্য এই রুটিনে অন্যতম সঙ্গী তিন বছরের ছোট্ট সন্তানটি। তার মতে, মাত্র এক দশকের ব্যবধানে, গ্রামীণ অর্থনীতি যে বেশ খানিকটা চাঙ্গা হয়েছে, তার প্রমাণ তিনি নিজেই।

এক সময়ে কৃষি নির্ভর বাংলাদেশে এখনো অর্থনীতির অন্যতম ভরসা এই খাত। যার মূল্য সংযোজন বেড়েছে বহুগুণ। সবজি, মাছ কিংবা চালের উৎপাদনের গড়ছে নিত্য রেকর্ড। থেমে নেই প্রযুক্তির ব্যবহার। যদিও, গোটা অর্থনীতিতে এর অংশ কমছে ধীরে ধীরে। যা দখল করছে শিল্প খাত। তবে, এক রকম সস্তা মজুরির ওপর ভিত্তি করে এগুনো এই খাতকে আরো সামনে নিতে হলে, দরকার নতুন আঙ্গিকে বিনিয়োগ এবং পরিকল্পনা।

গেলো এক দশকে অর্থনীতিতে গড় প্রবৃদ্ধি ছাড়িয়েছে সাড়ে ছয় শতাংশ। মাথাপিছু আয়ও গেছে পৌনে দুই হাজার ডলারের ওপরে। কিন্তু, এই আয়ের বণ্টণ হয়নি সুষমভাবে। ফলে, প্রায় অর্ধেক মানুষই রয়ে গেছে নিম্ন আয়ের কাতারে। গরিব মানুষের হার কমলেও, মোট সংখ্যা এখনো দুশ্চিন্তার। এছাড়া, তরুণ জনশক্তিকে কাজে লাগানোর ক্ষেত্রেও রয়ে গেছে নানামুখী ঘাটতি।

এমন বাস্তবতায়, ভবিষ্যত পরিকল্পনা কিংবা অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে আরো একটু ভাববার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর