channel 24

সর্বশেষ

  • ভারী ট্রাক চলাচলে গোপালগঞ্জের কালনা ফেরিঘাট থেকে ভাটিয়াপাড়া সড়কের বেহাল দশা

  • নিষিদ্ধ সময়ে চারঘাট সীমান্তে পদ্মায় ইলিশ ধরেন ভারতীয় জেলেরা; বিএসএফের বিরুদ্ধে সহযোগিতার অভিযোগ

  • ঢাকা উত্তর সিটির আলোচিত কাউন্সিলর রাজিব গ্রেপ্তার; কার্যালয়সহ বাসায় তল্লাশি; অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার

নামেই হেলমেট, কাজে নয়

নামেই হেলমেট, কাজে নয়

বিভিন্ন রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান থেকে ফ্রিতে দেয়া নিম্নমানের হেলমেট ব্যবহারের ফলে, নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রাজধানীর হাজার-হাজার মোটরসাইকেল আরোহী।

ঢাকার রাস্তায় এখন মোটর সাইকেলের রাজত্ব। যাত্রীকল্যাণ সমিতির তথ্য মতে, রাজধানীতে মোটরবাইক চলছে প্রায় ৫ লাখ, বছর খানেক আগেও যে সংখ্যা ছিলো লাখ তিনেক।

এছাড়া, দৈনিক নতুন নিবন্ধন হচ্ছে আরো প্রায় আড়াইশোটি।

মূলত গত বছর, অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালুর পর হু-হু করে বাড়ছে দুই চাকার এই বাহনের ব্যবহার। সঙ্গে বাড়ছে দুর্ঘটনার ঝুঁকিও।

ট্রাফিক পুলিশের কড়াকড়ির কারণে, এখন হেলমেট ব্যবহারের করছেন চালক ও যাত্রীরা। কিন্তু পাঠাও, উবার, ওভাই কিংবা সহজের যাত্রীদেরকে যে হেলমেট দেয়া হচ্ছে তা কতটুকু কার্যকর?

অনুসন্ধান বলছে, চালকের নিজের হেলমেটটি মজবুত হলেও, যাত্রীকে দিচ্ছেন নিম্নমানের। যা দিয়ে কান, মুখ ও থুতনি ঢাকছে না।

বেশিরভাগ চালক যাত্রীর হেলেমেটের জন্য আলাদা পয়সা খরচ করেন না। রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে যে ফ্রি হেলমেট দেয়া হয়, তা দিয়েই চালিয়ে নেন চালকরা।

আর একই হেলমেট রোজ বহুজন ব্যবহারের ফলে স্বাস্থ্যগত ঝুঁকিতেও আছেন অ্যাপভিত্তিক মোটরবাইকের যাত্রীরা। একজনের ব্যবহারের পর ঘামে ভেজা হেলমেট অন্যজন পড়তে আগ্রহী না হলেও, উপায় থাকে না।

চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ, অধ্যাপক এম এন হুদা বলেন, একই হেলমেট বহুজন ব্যবহারের ফলে যাত্রীদের মাঝে ফাঙ্গাল ইনফেকশন, খুশকি ও এলার্জিসহ নানা চর্মরোগ সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি আছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর