channel 24

ব্রেকিং নিউজ

  • পদ্মা সেতুর মূল অংশে ৭৩ শতাংশ কাজের অগ্রগতি...

  • নদী শাসন ৫০ ও সার্বিক অগ্রগতি ৬৩ শতাংশ: সেতুমন্ত্রী

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের...

  • উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • হাতিরঝিল থানার নাশকতা মামলায় মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির...

  • শীর্ষ ৫ নেতার জামিনের বিরুদ্ধে আপিল শুনানি বৃহস্পতি

  • তিন সন্তানের জননীকে গণধর্ষনের বিচার দাবিতে...

  • নোয়াখালীর কবিরহাটে হাজারো মানুষের মানববন্ধন

  • সৌদি থেকে দেশে ফিরছেন আরও ৮০ নির্যাতিতা নারী

  • হাতিরঝিল থানার নাশকতা মামলায় মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির...

রাষ্ট্রপতির ক্ষমার পরও ১০ বছর কারাগারে

রাষ্ট্রপতির ক্ষমার পরও ১০ বছর কারাগারে

উচ্চ আদালতকে অবহিত না করায় রাষ্ট্রপতির সাধারণ ক্ষমা পেয়েও গত ১০ বছর ধরে কারাভোগ করছেন জামালপুরের ৭০ বছরের বৃদ্ধ আজমত আলী।

দীর্ঘ আইনি লড়াই করেও কারাগারের চার দেয়াল থেকে তাকে মুক্ত করতে পারেননি পরিবারের সদস্যরা। এই অবস্থায় তারা সহায়তা চেয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইডের।

জামালপুরের সরিষাবাড়ি উপজেলার পাখিমারা গ্রামের আজমত আলী। ১৯৮৭ সালে গ্রামের একটি মামলায় অনেকের সঙ্গে আসামি হন। কিন্তু মামলার সব আসামি জামিনে বেরিয়ে গেলেও দরিদ্র আজমত আলী থেকে যান কারাগারে।

১৯৮৯ সালে বিচারিক আদালতে তার যাবজ্জীবন সাজা হয়। এর বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করেন আজমত। তবে ১৯৯১ সালের কারাবিধির বিবেচেনায় ১৯৯৬ সালে রাষ্ট্রপতির সাধারণ ক্ষমায় মুক্তি পান তিনি। সে সময়ে হাইকোর্টেও খালাস পান আজমত।

মুক্তির আনন্দ মিলিয়ে যায় ৮ বছরের মাথায়। কারণ হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আবেদন করা হলেও আপিল বিভাগে শুনানির সময় গোপন করা হয় রাষ্ট্রপতির সাধারণ ক্ষমার বিষয়টি। ফলে ২০০৮ সালে হাইকোর্টের রায় বাতিল করে বহাল রাখা হয় বিচারিক আদালতের রায়। ২০০৯ সালে আবারও কারাগারের জীবন শুরু আজমত আলীর।আজমত আলী।

আইনজীবীর পিছনে ঘুরে নিঃস্ব পরিবারের সদস্যরা আসেন সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইডের অফিসে। লিখিত অভিযোগ পেয়ে কী পদক্ষেপ নিচ্ছেন তা জানান লিগ্যাল এইডের আইনজীবীরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর