channel 24

সর্বশেষ

  • একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র ৪০ হাজার ১৮৩টি...

  • মোট ভোটার ১০ কোটি ৪২ লাখ ৩৮ হাজার ৬৭৩ জন...

  • পুরুষ ভোটার ৫ কোটি ২৫ লাখ ৭২ হাজার ৩৬২ জন...

  • নারী ভোটার ৫ কোটি ১৬ লাখ ৬৬ হাজার ৩১১ জন

  • আওয়ামী লীগের ২৫৮, ১৪ দলের ১৬ এবং...

  • জাতীয় পার্টির ২৬ জন প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ

  • বিএনপির ২৪২ এবং শরিকদের জন্য ৫৮টি আসন ছেড়ে...

  • জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ

  • প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার রিটের শুনানি কাল

  • প্রথম ওয়ানডেতে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ...

  • স্কোর: উইন্ডিজ ১৯৫/৯ (মাশরাফী ৩/৩০, মোস্তাফিজ ৩/৩৫), বাংলাদেশ ১৯৬/৫

  • ১৮ বছর ধরে খেলছি; কোন কিছুতেই মনযোগ হারানোর সুযোগ নেই: মাশরাফী

'ডাকসু নির্বাচনে সরকার আর বিশ্ববিদ্যালয়ের সদিচ্ছা প্রয়োজন'

'ডাকসু নির্বাচনে সরকার আর বিশ্ববিদ্যালয়ের সদিচ্ছা প্রয়োজন'

সরকার আর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন চাইলেই কেবল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ নির্বাচন সম্ভব। এমনটাই মনে করছেন ডাকসু'র সাবেক নেতারা।

আর নির্বাচনের জন্য বাড়তি সময় দরকার, তাই উচ্চ আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

তবে দীর্ঘদিনের বিরতিতে হলেও, নির্বাচনের ভাবনাকে স্বাগত জানিয়েছেন সাবেক আন্দোলনকারিরা।

শিক্ষা আন্দোলন থেকে শুরু করে বাঙালীর স্বাধিকার আন্দোলন, ওতোপ্রতোভাবে জড়িয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসু। এখানকার নির্বাচিত ছাত্রনেতারাই পরে নেতৃত্ব দেন দেশকে।

কিন্তু ১৯৯০-এর পর আর নির্বাচন না হওয়ায়, আটকে যায় গণতান্ত্রিক নেতৃত্ব তৈরির সেই প্রক্রিয়া।  

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা সরকার, বিভিন্ন সময় সবাই বলেছেন, তারাও চান নির্বাচন। তারপরও ২৮ বছরেও কেন খোলেনি সেই বন্ধ দুয়ার?

ডাকসুর সাবেক ভিপি মাহফুজা খানম ও মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলছেন, এজন্য সরকার আর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সদিচ্ছার অভাবই দায়ী।

২০১২ সালে ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনে নামেন একদল শিক্ষার্থী। পরে নির্বাচন চেয়ে, দুটি রিট হয় উচ্চ আদালতে। এরই প্রেক্ষিতে ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। তারপরই নড়েচড়ে বসে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

যদিও এরইমধ্যে সময় পার হওয়া উচ্চ আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) ড. মোহাম্মাদ সামাদ। বৈধ সিনেট সভার জন্য ডাকসুর বিকল্প নেই বলে মত দেন এই শিক্ষক।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর