channel 24

সর্বশেষ

  • প্রিয়া সাহার বক্তব্য ত্রুটিপূর্ণ ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়...

  • অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে আইনি ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী...

  • প্রিয়া সাহার বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য ও উসকানিমূলক: ওবায়দুল কাদের...

  • উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী ও মদদদাতাদের বিরুদ্ধে ২৮ জুলাই থেকে ব্যবস্থা

  • যোগাযোগে বিঘ্ন ঘটায় বন্যাদুর্গত এলাকায় ত্রাণ পৌঁছাতে সময় লাগছে: প্রতিমন্ত্রী

  • সরল বিশ্বাসের ব্যাখ্যায় দুর্নীতি শব্দটি ছিল না, দাবি দুদক চেয়ারম্যানের

  • আগস্টের মধ্যে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হবে, আশা প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর

  • 'ছেলেধরা' সন্দেহে গণপিটুনি: ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে নারীসহ নিহত ২...

  • চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, গাজীপুরে ৩ নারী ও পাবনায় যুবক আহত; কুষ্টিয়ায় আটক ১

  • তিন ওয়ানডে খেলতে শ্রীলঙ্কার পথে বাংলাদেশ দল...

  • সাকিব-মাশরাফী না থাকায় সিরিজ কঠিন হবে: তামিম ইকবাল

নিজেরাই হতাহতের তালিকা করছেন রোহিঙ্গারা

নিজেরাই হতাহতের তালিকা করছেন রোহিঙ্গারা

সাংবাদিক, আন্তর্জাতিক সংগঠন বা মানবাধিকার কর্মীদের ওপর নির্ভরশীল না থেকে এবার নিজেরাই হতাহতের তালিকা করছেন রোহিঙ্গারা।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হচ্ছে, কক্সবাজারের কুতুপালং শিবিরে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গারা এরইমধ্যে একটি প্রাথমিক তালিকাও তৈরি করেছেন, যেখানে দাবি করা হয়েছে, গত দুই বছরে মিয়ানমার সেনাদের হাতে প্রাণ হারিয়েছেন ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনাদের হত্যাযজ্ঞের তদন্তে এ পর্যন্ত আওয়াজ তুলেছে জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের বহু দেশ ও মানবাধিকার সংস্থা। এ নিয়ে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিলেও এখনও হতাহতের সুনির্দিষ্ট সংখ্যা পাওয়া যায়নি।

এবার হতাহতের পরিসংখ্যান তৈরিতে উদ্যোগী হয়েছেন রোহিঙ্গারাই। কমিটিতে আছেন কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরে আশ্রয় নেয়া সাবেক শিক্ষক, ধর্মীয় নেতা ও মানবাধিকারকর্মীরা। প্রাথমিক তালিকাও তৈরি করেছেন। সবশেষ বেসরকারি সেবা সংস্থা মেডিসিন সান ফ্রন্টিয়ার্স নিহত রোহিঙ্গাদের তালিকা প্রকাশ করে। যাতে বলা হয়, ২০১৬ সালের অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত মিয়ানমারের সেনাদের হাতে ৬ হাজার ৭শর বেশি রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে।

যদিও ওই তালিকায় ভুক্তভোগীদের নাম-ঠিকানা ছিল না। তবে রোহিঙ্গাদের করা প্রাথমিক তালিকা বলছে, এই সময়ের মধ্যে নিহতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে। শুধু সংখ্যা নয় নতুন এই তালিকায় নিহতদের নাম, পরিচয়, ঠিকানা এবং কিভাবে নিহত হয়েছেন তার বিস্তারিত লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া ধর্ষণের শিকার নারী, গ্রেপ্তার ও আহত রোহিঙ্গাদের নাম-পরিচয়ও রয়েছে। আছে নির্যাতনকারী সেনাদের নেতৃত্বে থাকা ব্যাটেলিয়ন কমান্ডারের নামও।

মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের বিচারে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নথি হবে এই তালিকা। তবে নতুন এই তালিকা সম্পর্কে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি মিয়ানমার। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত বছরের আগস্টে শুরু হওয়া নৃশংসতার শিকার হয়ে দলে দলে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গারা। এ যাত্রায় সাত লাখেরও বেশি মানুষ পালিয়ে আসে। এখানে আগে থেকে আছে আরও প্রায় ৫ লাখ বাস্তুচ্যুত মানুষ।

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর