channel 24

সর্বশেষ

  • নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া...

  • ইটপাটকেল-টিয়ারশেল নিক্ষেপ; পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন

গতি ফিরেছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণকাজে

গতি ফিরেছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণকাজে

প্রায় সাত বছর পর গতি এলো, রাজধানীর এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজে। ভূমি অধিগ্রহণ ও বিনিয়োগ সমস্যা কেটে যাওয়ায়, দ্রুতই দৃশ্যমান হচ্ছে বহু কাঙ্ক্ষিত এই প্রকল্প। এরইমধ্যে বিমানবন্দর থেকে বনানী অংশের কাজ হয়েছে ২৫ শতাংশ, আর সার্বিক অগ্রগতি ১০ শতাংশ। প্রকল্প সংশিষ্টরা বলছেন, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে পুরোপুরি চালু হবে ২০২১ সালের মধ্যে। আর তখন কমবে ঢাকার যানজট।

ঢাকা। মানুষ ও গাড়ির তুলনায় চলাচলের রাস্তা খুবই কম। এতো বড় শহরে মাত্র ৪টি প্রধান সড়ক দিয়েই চলে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার গাড়ি। তাই ফ্লাইওভারে মতো বড় প্রকল্পেও আসেনি যানজটের সমাধান।
এলিভেটেড এক্সপ্রেক্সওয়ে বা উঁচু রাস্তা। রাজধানীর যানজট মোকাবেলায় এই প্রকল্পটিকে সবচেয়ে কার্যকর সমাধান হিসেবে দেখা হচ্ছে। কেননা, এর ফলে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টের যানজট এড়িয়ে মাত্র ৪০ মিনিটে পৌঁছানো যাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুবুতখালীতে। এছাড়া, শহরের বিভিন্ন অংশে চলাচল করা যাবে নিমিষেই।
প্রায় ৪৭ কিলোমিটার এই এক্সপ্রেসওয়ে তিন ভাগে বিভক্ত। বিমানবন্দর থেকে বনানী, বনানী থেকে মগবাজার এবং মগবাজার থেকে কুতুবখালী। ২০১১ প্রকল্প নেয়া হলেও, ভূমি অধিগ্রহণ ও বিনিয়োগ জটিলতায়, প্রথম ৬ বছরে কাজ হয়েছে মাত্র ৭ শতাংশ। প্রকল্প পরিচালক বলছেন, সংকট কাটিয়ে এ বছর খুবই দ্রুত গতিতে কাজ এগিয়েছে। প্রয়োজনীয় ২২০ একর ভূমি অধিগ্রহণ প্রায় শেষ। পিয়ার স্থাপনও হয়ে গেছে বনানী রেল স্টেশন পর্যন্ত।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী জানান, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ২৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। ২০২০ সালের অক্টোবরে চালু হবে বনানী থেকে মগবাজার অংশ। আর পুরোটা ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর