channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

পলিথিনের ব্যবহারে শুধু পরিবেশ দূষণই নয়, ধ্বংস হচ্ছে মৎস্যসম্পদ

পলিথিনের ব্যবহারে শুধু পরিবেশ দূষণই নয়, ধ্বংস হচ্ছে মৎস্যসম্পদ

পলিথিনের ব্যবহারে শুধু জলাবদ্ধতা আর পরিবেশ দূষণই হচ্ছে না কমাচ্ছে জমির উৎপাদনশীলতাও।

এমনটাই বলছেন গবেষকরা। তাদের মতে, ভাসমান এসব বর্জ্যের শেষ ঠিকানা সমুদ্র হওয়ায় ভয়াবহ বিপদের সম্মুখীন হচ্ছে মৎস্যসম্পদ। গবেষকদের আশঙ্কা, ২০৫০ সাল নাগাদ সমুদ্রে মাছের পরিমাণ ছাড়িয়ে যাবে প্লাষ্টিক। এখন বৃষ্টি মানেই দেশের বড় শহরগুলোতে জলাবদ্ধতায় নাগরিক ভোগান্তি। গবেষকরা বলছেন, এই জলাবদ্ধতার বড় কারণ প্লাস্টিক বর্জ্য। ৫ মাইক্রোন ওজন বা পাতলা পলিথিনের যথেচ্ছ ব্যবহারে তৈরি হচ্ছে এ সংকট। অপচনশীল এ পণ্য নগরীর পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থাকে আটকে দিয়ে তৈরি করছে জলাবদ্ধতা।    

শুধু জলাবদ্ধতা নয় পরিবেশ দূষণসহ নানা কারণে সারা বিশ্বে ১০০ মাইক্রোনের নিচে পলিথিন উৎপাদন নিষিদ্ধ। গবেষণা বলছে, দেশে প্রতিদিন মাথাপিছু কমপক্ষে ৪ টি পলিথিন ব্যবহার হয়। এ কারণেই পলিথন ব্যবহারে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান দশম। আর শীর্ষে চীন। আন্তর্জাতিক পরিবশে সংরক্ষণ সংস্থা আইইউসিএন বলছে, মোট প্লাস্টিকের ২ ভাগেরই গন্তব্য সমুদ্র। যা একপর্যায়ে মেশে মাছসহ বিভিন্ন জীবের দেহে।গবেষকরা বলছেন, বর্তমানে যে হারে পাস্টিক বর্জ্য সমুদ্রে পড়ছে, এটি কমাতে না পারলে ২০৫০ সাল নাগাদ তা সমুদ্র তলদেশের মাছের পরিমাণকেও ছাড়িয়ে যাবে। তাই বাংলাদেশসহ বিশ্বের বেশির ভাগ দেশই প্লাষ্টিক ঠেকাতে নিয়েছে পদক্ষেপ।

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর