channel 24

সর্বশেষ

  • রাজবাড়ি জেলা রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে চাকরির প্রলোভনে প্রতারণার অভিযোগ

  • অবিশ্বাস্য হারে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় বার্সেলোনার

  • জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • বঙ্গবন্ধুর পলাতক ৫ খুনির ফাঁসি এখনও কার্যকর হয়নি

  • বাঙালীর কলঙ্কময় দিন আজ

  • চট্টগ্রামের পাহাড়তলি বস্তিতে আগুন, শিশুসহ নিহত ২

  • গোপালগঞ্জে বিয়ের আসরে গুলি!

  • বেরিয়ে আসছে যুবলীগ নেতা ডিজে শাকিলের নানা অপকর্ম

  • ১৫ ও ২১ আগস্টের কুশীলবরা এখনো সক্রিয়: কাদের

  • ঝিনাইদহে রাস্তার পাশে ঝোপ থেকে নবজাতক উদ্ধার

  • চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা পজেটিভ ১১৮

  • হামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মেডিকেলে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি

  • বন্যার পানি দ্রুত সরে যেতে ৫শ' খাল খনন চলছে: প্রতিমন্ত্রী

  • আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রতিযোগিতায় সেরা মুখ জয়পুরহাটের আসাফ উদ দৌলা

  • আশুলিয়ায় বিষ ঢেলে খামারের ৫০ টন মাছ মেরে ফেলার অভিযোগ

তল্লাশি না করতে র‌্যাবকে ১০ কোটির প্রস্তাব দেন জি কে শামীম

তল্লাশি না করতে র‌্যাবকে ১০ কোটির প্রস্তাব দেন জি কে শামীম

যুবলীগ নেতা ও প্রভাবশালী ঠিকাদার গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমের নিকেতনের অফিস শুক্রবার ভোর থেকেই ঘিরে রাখে র‌্যাব। র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম নিকেতনে এলে একপর্যায়ে শুরু হয় অভিযান ও তল্লাশির প্রস্তুতি।

এসময় জি কে শামীম র‌্যাব কর্মকর্তাদের অভিযান ও তল্লাশি করতে বারণ করেন। অভিযান না করার পরিবর্তে র‍্যাবের এক কর্মকর্তাকে ১০ কোটি টাকা ঘুষ দেওয়ার প্রস্তাব দেন। তবে র‌্যাব তার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে অভিযান চালায়। জব্দ করা হয় নগদ টাকা, সরঞ্জাম, এফডিআরসহ মাদক।

র‌্যাবের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম বলেন, ‘জি কে শামীম তার অফিস ও বাসায় অভিযান না চালাতে এবং গ্রেফতার এড়াতে আমাকে ১০ কোটি টাকার ঘুষ প্রস্তাব করেছিলেন। প্রস্তাব আমলে না নিয়ে আমরা জি কে শামীমের কার্যালয়ে অভিযান চালাই, তাকেসহ তার সাত দেহরক্ষীকে গ্রেফতার করি।’

তিনি আরও বলেন, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, মানি লন্ডারিংয়ের সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জি কে শামীমকে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনি এখন ডিবি হেফাজতে রয়েছেন।

রিমান্ডে নেয়ার আগে শামীমকে জিজ্ঞাসাবাদে করে র‌্যাব। দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, জিজ্ঞাসাবাদের পর শামীম গণপূর্ত অধিদফতরের ২০ জন সাবেক সরকারি কর্মকর্তার নাম বলেছেন, যাদের মাসে ২-৫ লাখ টাকা দিতেন তিনি। সরকারি কর্মকর্তারা টাকার বদলে শামীমকে ঠিকাদারির কাজের টেন্ডার পেতে সাহায্য করতেন।

র‌্যাব সূত্র জানায়, ক্ষমতাসীন দলের ভুয়া পরিচয় দিয়ে চলাফেরা করতেন শামীম। তিনি একসময় বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসের 'ডান হাত' হিসেবে পরিচিত ছিলেন। যুবদল ঢাকা মহানগরের সহ-সম্পাদকও ছিলেন তিনি। তবে ক্ষমতার পালাবদলে শামীমও তার পরিচয় বদলে ফেলেন। রাতারাতি ভোল পাল্টে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগে ভিড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর