channel 24

সর্বশেষ

  • রূপপুর বালিশকাণ্ড: মাসুদুল আলমসহ ১৩ প্রকৌশলীকে গ্রেপ্তার করেছে দুদক

  • চ্যারিটেবল মামলা: খালেদা জিয়াকে জামিন দেননি আপিল বিভাগ...

  • কেন এই আদেশ, বিবেচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত: জয়নুল আবেদীন

  • খালেদা জিয়ার অনুমতি সাপেক্ষে উন্নত চিকিৎসা...

  • দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত: অ্যাটর্নি জেনারেল

  • মিছিলের চেষ্টার সময় হাইকোর্টের সামনে থেকে ২ জন আটক

  • খালেদা জিয়া রাজি না হওয়ায় আরও উন্নত চিকিৎসা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না...

  • ডায়াবেটিস, অ্যাজমা ও শারীরিক দুর্বলতা রয়েছে: বিএসএমএমইউ'র রিপোর্ট...

  • খালেদা জিয়ার আর্থ্রাইটিস ৩০ বছর ও ডায়াবেটিস ২০ বছর ধরে...

  • বাম হাঁটুতে ব্যথা ৯৭ সাল থেকে: শুনানিতে অ্যাটর্নি জেনারেল

  • প্রধানমন্ত্রীর পদে থেকে ট্রাস্টের নামে অর্থ সংগ্রহ করে তছরুপ করা অপরাধ: দুদক

  • স্বাস্থ্য পরীক্ষার প্রতিবেদন ভুয়া: জয়নুল আবেদীন...

  • খালেদা জিয়ার অবস্থা পঙ্গুত্বের দিকে যাচ্ছে

  • খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয় আদালতের এখতিয়ার: কাদের

  • আদালতে নিরাপত্তা জোরদার; বিএনপিপন্হি আইনজীবীদের হট্টগোল...

  • দুপক্ষের আইনজীবীদের মিছিল; মাজার গেটে এক আইনজীবী আটক

  • কেরাণীগঞ্জে প্লাস্টিক কারখানার আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১২...

  • বারবার দুর্ঘটনার জন্য সরকারি কিছু সংস্থা ও মালিকপক্ষ দায়ী: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তল্লাশি না করতে র‌্যাবকে ১০ কোটির প্রস্তাব দেন জি কে শামীম

তল্লাশি না করতে র‌্যাবকে ১০ কোটির প্রস্তাব দেন জি কে শামীম

যুবলীগ নেতা ও প্রভাবশালী ঠিকাদার গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমের নিকেতনের অফিস শুক্রবার ভোর থেকেই ঘিরে রাখে র‌্যাব। র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম নিকেতনে এলে একপর্যায়ে শুরু হয় অভিযান ও তল্লাশির প্রস্তুতি।

এসময় জি কে শামীম র‌্যাব কর্মকর্তাদের অভিযান ও তল্লাশি করতে বারণ করেন। অভিযান না করার পরিবর্তে র‍্যাবের এক কর্মকর্তাকে ১০ কোটি টাকা ঘুষ দেওয়ার প্রস্তাব দেন। তবে র‌্যাব তার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে অভিযান চালায়। জব্দ করা হয় নগদ টাকা, সরঞ্জাম, এফডিআরসহ মাদক।

র‌্যাবের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সারওয়ার-বিন-কাশেম বলেন, ‘জি কে শামীম তার অফিস ও বাসায় অভিযান না চালাতে এবং গ্রেফতার এড়াতে আমাকে ১০ কোটি টাকার ঘুষ প্রস্তাব করেছিলেন। প্রস্তাব আমলে না নিয়ে আমরা জি কে শামীমের কার্যালয়ে অভিযান চালাই, তাকেসহ তার সাত দেহরক্ষীকে গ্রেফতার করি।’

তিনি আরও বলেন, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, মানি লন্ডারিংয়ের সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জি কে শামীমকে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তিনি এখন ডিবি হেফাজতে রয়েছেন।

রিমান্ডে নেয়ার আগে শামীমকে জিজ্ঞাসাবাদে করে র‌্যাব। দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, জিজ্ঞাসাবাদের পর শামীম গণপূর্ত অধিদফতরের ২০ জন সাবেক সরকারি কর্মকর্তার নাম বলেছেন, যাদের মাসে ২-৫ লাখ টাকা দিতেন তিনি। সরকারি কর্মকর্তারা টাকার বদলে শামীমকে ঠিকাদারির কাজের টেন্ডার পেতে সাহায্য করতেন।

র‌্যাব সূত্র জানায়, ক্ষমতাসীন দলের ভুয়া পরিচয় দিয়ে চলাফেরা করতেন শামীম। তিনি একসময় বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসের 'ডান হাত' হিসেবে পরিচিত ছিলেন। যুবদল ঢাকা মহানগরের সহ-সম্পাদকও ছিলেন তিনি। তবে ক্ষমতার পালাবদলে শামীমও তার পরিচয় বদলে ফেলেন। রাতারাতি ভোল পাল্টে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগে ভিড়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর