channel 24

সর্বশেষ

  • বিশ্বে মৃত্যু ছাড়ালো ৪৪ হাজার, আক্রান্ত প্রায় ৯ লাখ

  • চট্টগ্রামে বেসরকারি উদ্যোগে অস্থায়ী হাসপাতাল হচ্ছে

  • চট্টগ্রামে লকডাউনের ভুতুড়ে পরিবেশে সুযোগ নিচ্ছে ছিনতাইকারী

  • নিম্নআয়ের মানুষের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে বিভিন্ন সংগঠন-সংস্থা

  • নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের নৃশংসতা, কুপিয়ে হত্যা করলো ব্যবসায়ীকে

  • করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কাজ করছে সেনাবাহিনী: সেনাপ্রধান

  • শক্তিশালী ও সমন্বিত নীতির মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছে সরকার

  • করোনা নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বরিশালে ইমাম-শিক্ষকসহ ৬ জন আটক

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রিকেট ও লুডু খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৩০

  • নিজের ভালোটাও বুঝছেন না অনেকে, বিনা কারণে নামছেন সড়কে

  • বাগেরহাটে জমি নিয়ে বিরোধে গৃহবধূকে হত্যা

  • এবার ঢাকা ছাড়ছেন জাপানি নাগরিকরা

  • করোনায় আক্রান্ত দুধের বাজারও, বিক্রি হচ্ছে পানির দামে

  • ডিজিটাল প্লাটফর্মে চলছে বসুন্ধরা কিংসের অনুশীলন

  • ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ সরকারি-বেসরকারি অফিস, প্রজ্ঞাপন জারি

ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা: নির্বাচন কমিশনের কর্মী জড়িত; বড় চক্রের সন্ধান

ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা: নির্বাচন কমিশনের কর্মী জড়িত; বড় চক্রের সন্ধান

ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা অন্তর্ভুক্তি ঠেকাতে, অভিযান শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। যাতে এক বিশাল চক্রের সন্ধান মিলেছে। নানা কৌশলে, মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে যারা ভোটার করছেন রোহিঙ্গাদের। এরই মধ্যে আটক করা হয়েছে, ঐ চক্রের কয়েকজনকে। জড়িত থাকার অভিযোগ মিলেছে, ইসির কয়েক কর্মীর বিরুদ্ধে। এ জন্য আরও কঠোর হওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে, নির্বাচন কমিশন।

ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রমের শুরু থেকেই রোহিঙ্গাদের বিষয়ে বেশ কড়াকড়ি ছিলো নির্বাচন কমিশন।

যাচাই বাছাই শুরু হলেই একে একে বেরিয়ে আসতে থাকে থলের বিড়াল। ভোটার তালিকায় সন্ধান মেলে একের পর এক রোহিঙ্গার নাম। এ সংখ্যা দুই হাজারেরও বেশি। যা দেখে বিষ্মিত ইসি। এরপরই কক্সবাজার, টেকনাফ ও চট্টগ্রাম অঞ্চলে শুরু হয় ইসির বিশেষ অভিযান। রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে আটক করা হয় হাফেজ ওবায়দুল্লাহ নামে চক্রের এক সদস্যকে।

ইসির অভিযান পরিচালনাকারী দলের সদস্যরা চ্যানেল টুয়েন্টিফোরকে জানায়, ওবায়দুল্লাহর দেয়া তথ্যে বড় একটি চক্রের খোঁজ পায় কমিশন। সাথে রোহিঙ্গাদের ভোটার করা কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের আশপাশের এলাকাও চিহ্নিত হয়েছে।

ইসির চোখ ফাঁকি দিতে এক্ষেত্রে কয়েকটি উপজেলার ইউজার নেইম পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা হয়। বেশিরভাগ রোহিঙ্গা ভোটার বানাতে ব্যবহার হয় দুটি নির্দিষ্ট ল্যাপটপ ও একটি স্ক্যানার। এর সাথে মাঠ পর্যায়ের কিছু অপারেটর জড়িত থাকতে পারে বলেও মনে করছে কমিশন।

অভিযানে থাকা কর্মকর্তারা বলছেন, পাঁচ থেকে ছয় কোটি টাকারও বেশি লেনদেনের খোঁজ পেয়েছেন তারা। আটক করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে। এরই মধ্যে ওবায়দুল্লাহ, তার ভাই আব্দুল্লাহ, নুরুল মোহাম্মাদসহ ৬ শ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। চক্রটিকে পুরোপুরি আটক করা পর্যন্ত অভিযান অব্যহত রাখার ঘোষণা ইসির।

রোহিঙ্গাদের ভোটার করতে কোন জনপ্রতিনিধি যুক্ত থাকলে, তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থার হুঁশিয়ারি দিয়েছে কমিশন।

চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে আগামী বছরের জানুয়ারির শেষে।

নিউজটির বিস্তারিত প্রতিবেদন ভিডিওতে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর