channel 24

সর্বশেষ

  • দিল্লিতে সহিংসতার প্রতিবাদ জানিয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ

  • অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় র‍্যাবের হাতে লাঞ্ছিত ম্যাজিস্ট্রেট

  • ব্যাংক খালি হয়ে গেছে: হাইকোর্ট

  • ডাকঘর সঞ্চয়ে সুদহার আগের মতোই থাকছে: অর্থমন্ত্রী

  • দুদককে নিয়ে টিআইবির প্রতিবেদন সত্য নয়: দুদক সচিব

  • একে একে বেরিয়ে আসছে পাপিয়ার নানা পাপ

  • উন্নত চিকিৎসায় সম্মত হননি খালেদা জিয়া

  • দিল্লিতে গুজরাটের ছায়া; শিশু ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাসহ প্রাণ গেছে ২৩ জনের

  • কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে গ্রাহকরা সব টাকা পাবেন

  • ঢাকা মেডিকেলে পরজীবী শিশু আলাদা করে সফল অস্ত্রোপচার

  • ভর্তি পরীক্ষা হবে ৪টি গুচ্ছ পদ্ধতিতে, থাকছে না ঢাকাসহ ৫টি বিশ্ববিদ্যালয়

  • কোনো নারী বিয়ে পড়াতে পারবেন না: হাইকোর্ট

  • কাপ্তাই হ্রদের পানি কমছে ধীরগতিতে, ফসল নিয়ে দু:চিন্তায় চাষীরা

  • দেশের পুঁজিবাজারে বড় পতন

  • অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষায় নামছে বাংলাদেশ নারী দল

জব্দ করা ইয়াবা নিজেদের মধ্যে বণ্টন করে নেয়ায় ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

জব্দ করা ইয়াবা নিজেদের মধ্যে বণ্টন করে নেয়ায় ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

আসামিকে ছেড়ে দিয়ে জব্দ করা ইয়াবা বণ্টন করে নেয়ার ঘটনায় রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার মামলায় ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) গ্রেপ্তারের পর তাদের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ৫২২ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

তারা হলেন- গুলশান থানার এএসআই মাসুদ আহমেদ মিয়াজি, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের নায়েক জাহাঙ্গীর আলম (২৭), কনস্টেবল প্রশান্ত মণ্ডল (২৩), কনস্টেবল রনি মোল্লা (২১) ও কনস্টেবল শরীফুল ইসলাম (২৩)।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার ১ নং আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের একটি দল জানতে পারে, ১ নং ব্যারাক ভবনের চতুর্থ তলার বাথরুমে পুলিশের কয়েকজন সদস্য ইয়াবা ভাগ-বাঁটোয়ারা করছে। পরে সেখানে অভিযান চালিয়ে প্রথমে প্রশান্ত, রনি ও শরীফুলকে আটক করা হয়। শরীর তল্লাশি করে প্রশান্তের পকেট থেকে ১৫৮ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে তার কাছে আরও ইয়াবা থাকার কথা স্বীকার করে। পরে তার কক্ষ থেকে আরও ৩৯৪ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া শরীফের কাছ থেকে ইয়াবা বিক্রির ১৫ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কনস্টেবল প্রশান্ত জানায়, গত ১১ সেপ্টেম্বর গুলশানের গুদারাঘাট এলাকায় চেকপোস্ট পরিচালনা করার সময় সে একজন মোটরসাইকেল আরোহীর কাছ থেকে ইয়াবা উদ্ধার করে। পরে টাকার বিনিময়ে তাকে ছেড়ে দেয় সে। উদ্ধার ইয়াবার মধ্যে ২০০ পিস ইয়াবা গুলশান থানার এএসআই মাসুদ আহমেদ মিয়াজী নিজের কাছে রেখে দেয়। নায়েক জাহাঙ্গীর আলম রাখে ১৫০ পিস। এসব ইয়াবা তারা মাদক ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করেছে বলে জানা গেছে।

গ্রেপ্তার ৫ জনের মধ্যে কনস্টেবল প্রশান্ত মণ্ডল, এএসআই মাসুদ আহমেদ মিয়াজী ও নায়েক জাহাঙ্গীর আলমকে ৩ দিনের এবং বাকি দুজন রনি মোল্লা ও শরিফুল ইসলামকে ২ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর