channel 24

সর্বশেষ

  • ওসির অনুরোধ 'স্যার ডাকবেন না'

  • 'শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউশন আইন-২০২০' এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

  • গাজীপুরে অবৈধ ইটভাটায় উচ্ছেদ অভিযান

  • নিয়ম ভেঙে কর্ণফুলি নদীর ঘাট ইজারা পছন্দের লোককে দেয়ার চেষ্টা

  • কাপ্তাই লেকে নৌ চলাচলে শৃঙ্খলা আনতে প্রশাসনের কঠোর অবস্থান

  • বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ে ইতিহাস বিভাগের অনুমোদন দাবিতে টানা আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

  • জিম্বাবুয়ে-বিসিবি একাদশের প্রস্তুতি ম্যাচ কাল শুরু

  • রংপুরে চীনা নাগরিক জিংজংয়ের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ

  • বন্ধুদের দলাদলি, খুলনায় প্রাণ গেল অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রের

  • অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও থাইল্যান্ডে উৎপাদন বন্ধ করবে জেনারেল মোটরস

  • বরিশালে বিএনপি অফিসে অগ্নিকাণ্ড

  • ফরিদপুরে নুরুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

  • চট্টগ্রাম সিটিতে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী আ.লীগ প্রার্থী রেজাউল করিম

  • রিফাত হত্যা: মিন্নির আদালত পরিবর্তনের আবেদন শুনবেন হাইকোর্ট

  • কাতারে নতুন করে পাঠানো হবে আরও শ্রমিক: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আন্তর্জাতিক চক্রের অভিনব প্রতারণা, হাতিয়ে নিচ্ছে সর্বস্ব

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আন্তর্জাতিক চক্রের অভিনব প্রতারণা, হাতিয়ে নিচ্ছে সর্বস্ব

প্রথমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গড়ে তুলে সখ্যতা। কিছুদিন পর প্রতারণার জালে আটকে কেড়ে নেয়া হয় সর্বস্ব। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক প্রতারক চক্রের এক নাইজেরিয়ানসহ চারজনকে গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে আসে এমন তথ্য। ভুক্তভোগীরা বলছেন, একেক জনকে একেক ধরনের ফাঁদে ফেলে প্রতারক চক্র হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা। অপরাধীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রাখার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতারণার শিকার বেলাল হোসেন পেশায় একজন স্থপতি। যুক্তরাষ্ট্র থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে জেনিট নরমানি নামের এক মেয়ে। কিছু দিন পর ব্যবসার কথা বলে দেড় মিলিয়ন ডলার পাঠানোর আশ্বাস দেয় জেনিট। যা পাঠানো হয় এক নাইজেরিয়ানের মাধ্যমে। পরে বেলালকে বলা হয় বিমানবন্দরে দেড় মিলিয়ন ডলার আটকে দেয়া হয়েছে। যা ছাড়াতে ৮৫০ ডলার লাগবে। বেলাল একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দেয়ার পর বুঝতে পারেন প্রতারণার ফাঁদে পড়েছেন তিনি।

পুরো প্রক্রিয়াটির সাথে জড়িত দেশি-বিদেশি প্রতারক চক্র। এর কয়েক সদস্যকে রাজধানীর উত্তরাসহ বেশ কয়েকটি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় বিভিন্ন ব্যাংকের ডেভিড কার্ড ও চেকবই।

গ্রেপ্তারকৃতরা জানায়, প্রথমে তারা কিছু মানুষকে বাছাই করে। পরে তাদের সাথে বিদেশি নারী পুরুষের মাধ্যমে সখ্যতা গড়ে তোলে। এরপর অভিনব কায়দায় হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা। এই অর্থের ১০ শতাংশ পায় তারা।

চক্রটি একেক জনকে একেকভাবে প্রতারণার ফাঁদে ফেলছে। লোভের কারণেই সাধারণ মানুষ প্রতারণার শিকার হচ্ছে বলছে গোয়েন্দা পুলিশ। আন্তর্জাতিকভাবে অনেকে জড়িত থাকায়, বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার সহায়তা নেয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নিউজটির ভিডিও-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর