channel 24

সর্বশেষ

  • গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ আসনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই সম্পন্ন

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহানন্দা নদী তীরবর্তী এলাকায় পর্যটন কেন্দ্র নির্মাণ বেআইনি

  • অর্থপাচার মামলায় আটক পাপিয়াকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার

  • স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মৃত্যু

  • দুদিনের সফরে কাল ভারত আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

  • নির্বাচনি প্রচারণায় আসছে নানা বিধিনিষেধ; যত্রতত্র পোস্টার-মাইকিং নয়

  • উন্নয়ন পরিকল্পনা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে দুর্ভোগে পড়তে হয় জনগণকে

  • দেশের পুঁজিবাজারে আজও সূচকের পতন

  • আন্তর্জাতিক জ্বালানি খাতে নিজেদের আধিপত্য বাড়াতে চায় সৌদি আরব

  • ভুতুড়ে বিল বন্ধ করতে প্রযুক্তি ব্যবহারের বিকল্প নেই: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

  • কানাডার সাস্কাটুনে বসন্তের ফুল ফুটবে ২৯ ফেব্রুয়ারি

  • রোহিঙ্গা ও স্থানীয় অপরাধীদের এক হতে দেয়া যাবে না: ভূমিমন্ত্রী

  • পা দিয়ে ছবি এঁকে জাতীয় পুরস্কার জিতেছেন ফেনীর মোনায়েম

  • ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজ যথাসময়ে শেষ করার নির্দেশ

  • চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: ৮৫ হাজার নতুন ভোটারের ভোটদানে অনিশ্চয়তা

'নব্য জেএমবি নামে জামায়াত-শিবিরের লোকজনই পুলিশের ওপর হামলা চালাচ্ছে'

'নব্য জেএমবি নামে জামায়াত-শিবিরের লোকজনই পুলিশের ওপর হামলা চালাচ্ছে'

ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, নব্য জেএমবি নামে জামায়াত-শিবিরের লোকজনই পুলিশকে টার্গেট করে হামলা চালাচ্ছে। সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সায়েন্সল্যাবে এলাকায় পুলিশের ওপর চালানো হামলা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের করা এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম বলেন, জেএমবি ছিল মূলত জামায়াত-শিবিরের সাবেক নেতাকর্মীদের তৈরি একটি জঙ্গিবাদী সংগঠন। ২০১৬ সালের পরে যারা জড়িত হচ্ছে তাদের মধ্যে অনলাইন অ্যাকটিভিস্টই বেশি। হলি আর্টিজানের পরে তাদের যে সাংগঠনিক কাঠামো গড়ে উঠেছিল, তাতে সাবেক শিবির ছাড়াও আরও কিছু তরুণ যোগ দেয়। অনলাইন প্রচারণার ল্যাংগুয়েজ এবং ছাত্রশিবিরের ব্যবহৃত কিছু ট্রেডমার্ক ল্যাংগুয়েজ এখন পর্যন্ত ব্যবহৃত হচ্ছে। বিভিন্ন সময় যারা ধরা পড়ছে তারাও দেখা গেছে শিবিরের সঙ্গে জড়িত ছিল।

তিনি বলেন, আগের সব সন্ত্রাসী ঘটনার রহস্য উদঘাটন এবং অধিকাংশ মামলার চার্জশিট হয়েছে। এছাড়া কিছু কিছু মামলায় বিচার হয়েছে। এসব কারণে পুলিশের প্রতি তাদের প্রচণ্ড একটা ক্ষোভ আছে। এখন পর্যন্ত যতটুকু তথ্য-উপাত্ত পাওয়া গেছে তাতে পুলিশই মূলত এর টার্গেট ছিল।

পুলিশকে টার্গেটের পেছনে নানা কারণ আছে উল্লেখ করে সিটিটিসি প্রধান বলেন, ২০১৩, ২০১৪ ২০১৫ সালে এক ধরনের রাজনৈতিক সহিংসতা দেখেছেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু হওয়ার পর যখন গণজাগরণ মঞ্চের উত্থান হয়, তখন থেকেই জঙ্গিবাদ বিস্তার শুরু হয়। ব্লগার হত্যাকাণ্ড শুরু হয়। ব্লগার, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট মানেই নাস্তিক, এরকম আখ্যা দিয়ে তাদের প্রতিপক্ষ হিসেবে দেশবাসীকে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, রাজনৈতিকভাবে যুদ্ধাপরাধের বিচার শুরু হলে, তারা যে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চেয়েছিল, তখন প্রধান প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা দেখেছে পুলিশকে। ফলে সেদিক থেকে পুলিশের প্রতি তাদের একটি ক্ষোভ রয়েছে। তারা মনে করে যখনই সংগঠিত হতে চেয়েছে, পুলিশের কারণে পারেনি।

এজন্য পুলিশের প্রতি তাদের সাংগঠনিক যে ক্ষোভ ছিল, সেটাকে তারা কাজে লাগাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর