channel 24

সর্বশেষ

  • ভবিষ্যতে কেউ যাতে দেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি...

  • খেলতে না পারে সে ব্যাপারে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সতর্ক থাকতে হবে...

  • ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডে জিয়াউর রহমান জড়িত ছিলেন বলেই...

  • খন্দকার মোশতাক তাকে সেনাপ্রধান করেছিলেন...

  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী

  • ব্রিটেনে নির্বাচনে জয়ী হওয়ায় বরিস জনসনকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণে পুরো দেশ...

  • মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা কাদের মোল্লাকে 'শহীদ' বলায়...

  • দৈনিক সংগ্রামের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত: ওবায়দুল কাদের

  • জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে: ফখরুল

  • মুন সিনেমার মালিকানা নিয়ে সংবিধান সংশোধনী...

  • কতটা যৌক্তিক, প্রশ্ন সাবেক বিচারপতি আব্দুল মতিনের

  • বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী রুম্পার শরীরে ধর্ষণের আলামত মেলেনি: চিকিৎসক...

  • কাল পুলিশের কাছে দেয়া হবে প্রাথমিক প্রতিবেদন

  • সাময়িক বন্ধ থাকার পর স্বাভাবিক হয়েছে তামাবিল সীমান্তে যাত্রী চলাচল

  • সড়ক দুর্ঘটনায় পাবনার আটঘরিয়ায় জামাই-শ্বশুর নিহত

গত দেড় মাসেও মশার ওষুধ যারা দেন তাদের দেখিনি: ফখরুল

গত দেড় মাসেও মশার ওষুধ যারা দেন তাদের দেখিনি: ফখরুল

গত দেড় মাসেও আমার বাসার পাশের ড্রেনে মশার ওষুধ যারা দেন তাদের দেখিনি। রাজধানীর অলিগলি পরিষ্কার না থাকায় উষ্মা প্রকাশ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা বলেন। শনিবার (৩ আগস্ট) রাতে গুলশানে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক শেষে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ডেঙ্গু একটা বড় রকমের সমস্যা তৈরি হয়েছে যেটা মোকাবিলায় আমি আপদকালীন জরুরি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলে জরুরি অবস্থার কথাটা বলেছিলাম। ডেঙ্গু অবস্থায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বিদেশ যাওয়া এবং সিটি করপোরেশনের মেয়রদের বক্তব্যগুলো মিলিয়ে এটা একটা লেজেগোবরে তৈরি করে ফেলেছে সরকার। তারা এই সমস্যা সমাধান করতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু এখন ৬৪ জেলায় চলে গেছে। এটা নিয়ন্ত্রণ করার জন্য যে ব্যবস্থা দরকার ছিল, সে ব্যবস্থা সরকার নিতে পারেনি। মশা মারার জন্য যে ওষুধ দরকার, তা তারা আনতে পারেনি এবং এত অল্প সময়ের মধ্যে আমদানি করার সম্ভব হবে বলে মনে হয় না।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, আমরা প্রস্তাব রাখছি যে সেটা হচ্ছে, সরকার ডেঙ্গু চিকিৎসায় জন্য প্রয়োজনীয় ভুর্তকি দেবে। জনগণের জন্য ডেঙ্গুর পরীক্ষার ব্যবস্থা বিনামূল্য করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল কোটি কোটি টাকা জমা হয়, সেটা দেখা যায় যে তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের জন্য চলে যায়। কিন্তু সমাজ রাষ্ট্রের মানুষ যখন বিপদে পড়েছে, তখন তাদের জন্য এই অর্থ ব্যবহার করাটা অত্যন্ত জরুরি বলে আমরা মনে করি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিএনপির কেন্দ্রীয় অফিসে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) সহযোগিতায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। সেখানে থেকে অনলাইনে ডেঙ্গু রোগীদের ডাক্তাররা পরামর্শ দেবেন।

লন্ডন থেকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন . খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমিরউদ্দিন সরকার, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর