channel 24

সর্বশেষ

  • বিএনপি-জামায়াতের মদদেই ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা...

  • হামলার দায় খালেদা জিয়া এড়াতে পারেন না: প্রধানমন্ত্রী

  • আগস্ট মাস এলেই যেন অশনিসংকেত বয়ে নিয়ে আসে....

  • বিএনপি-জামায়াতের মদদ ছাড়া গ্রেনেড হামলা হতে পারে না...

  • বিচারপতি জয়নুল আবেদীনের তদন্ত রিপোর্ট ছিল ফরমায়েশি...

  • ২১ আগস্টের আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

  • ২১২টি ছাগল ছিনতাইচেষ্টা মামলা: মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রলীগের...

  • সভাপতি তান্নার আগাম জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল

  • বিএনপি ২১ আগস্টের মাধ্যমে রাজনীতিতে যে দেয়াল তৈরি করেছে তা...

  • এড়ানো সম্ভব নয়, হামলাকারীদের বিচার নিশ্চিত করা হবে: কাদের...

  • যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত ১৯ জনের সাজা বৃদ্ধির আপিল করেনি রাষ্ট্রপক্ষ

  • জাহালম ইস্যুতে ১১ তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা...

  • ৩৩টি মামলারই পুনঃতদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুদক

  • পঞ্চগড় কারাগারে আইনজীবী পলাশ আত্মহত্যা করেছিলেন...

  • বিচার বিভাগীয় প্রতিবেদন হাইকোর্টে জমা...

  • সারা দেশের কারাগারে আসামিদের নিরাপত্তায় কী ব্যবস্থা নেয়া হয়...

  • স্বরাষ্ট্র সচিব ও আইজি প্রিজন্সের কাছে জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

  • প্রত্যাবাসন নিয়ে ২য় দিনের মতো তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গাদের মতামত নেয়া শুরু

  • ক্রিকেট: রাসেল ডমিঙ্গো ও চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্টের কন্ডিশনিং ক্যাম্প পর্যবেক্ষণ...

  • সাফল্যের জন্য তরুণ ক্রিকেটারদের উন্নতি করতে হবে: ডমিঙ্গো

আরও ৫ বছর দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ বাড়লো

আরও ৫ বছর দ্রুত বিচার আইনের মেয়াদ বাড়লো

আরও ৫ বছর মেয়াদ বাড়লো দ্রুত বিচার আইনের। মঙ্গলবার রাতে, ‘আইন-শৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) (সংশোধন) আইন-২০১৯’ বিল পাস হয়েছে জাতীয় সংসদে। এ নিয়ে নয়বারের মতো আইনটির মেয়াদ বাড়ানো হলো।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) জাতীয় সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বিলটি উপত্থাপন করে পাস করার জন্য প্রস্তাব করেন। এর আগে বিলের ওপর আনা জনমত যাচাই-বাছাই কমিটিতে পাঠানো ও সংশোধনী প্রস্তাব কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। পরে বিলটি কণ্ঠভোটে পাস হয়।

এই বিলের বিদ্যমান আইনে চাঁদাবাজি, যান চলাচলে বাধাসহ ত্রাস ও অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির দায়ে সর্বোচ্চ সাত বছর পর্যন্ত সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে।

বিলটি উত্থাপনের সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিলের মেয়াদ বাড়ানোর কারণ হিসেবে বলেছিলেন, আইনটির অধীনে এক হাজার ৭০৩টি মামলা নিষ্পত্তির লক্ষ্যে মেয়াদ বাড়ানো প্রয়োজন। এজন্য আইনটির মেয়াদ আরো পাঁচ বছর বাড়িয়ে ২০২৪ সাল পর্যন্ত বহাল রাখার প্রস্তাব করেন। এরআগে ২০১৪ সালে পাঁচ বছরের জন্য আইনটির মেয়াদ বাড়ানো হয়। গত ৯ এপ্রিল আইনের মেয়াদ শেষ হয়েছে।

চাঁদাবাজি, ছিনতাই, যানবাহনের ক্ষতিসহ বিভিন্ন অপরাধে দ্রুত বিচারের জন্য ২০০২ সালে প্রথম এটি সংসদে পাস হয় এবং দুই বছরের জন্য তা কার্যকর হয়। এরপর বিভিন্ন সময়ে ছয় বার এ আইনের মেয়াদ দুই বছর করে বাড়ানো হয়।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারির ১১ তারিখে এ আইনের অধীনে সংঘটিত অপরাধে সর্বোচ্চ সাজার মেয়াদ পাঁচ বছর থেকে বাড়িয়ে সাত বছর পর্যন্ত করা হয়। এছাড়া এ আইনে ১২০ দিনের মধ্যে বিচারকাজ নিষ্পত্তি করার বিধান রয়েছে। এই সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করা না গেলে আরও ৬০ দিন সময় পাওয়া যাবে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর