channel 24

সর্বশেষ

  • ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ৪১ কোটি ১৩ লাখ টাকার...

  • অনিয়মে হাইকোর্টের বিস্ময়, ৬ মাসের মধ্যে তদন্তে ব্যবস্থার নির্দেশ দুদককে

  • রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে মরদেহ উদ্ধার হওয়া...

  • মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা; ময়নাতদন্তের রিপোর্ট

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ২১ পরিবারের ১০৫ সদস্যের মতামত গ্রহণ আরআরআরসি'র

  • ঢাকা মহানগরের দখল হওয়া খাল ও দখলদারদের...

  • তালিকা চেয়ে ওয়াসা ও জেলা প্রশাসককে দুদকের চিঠি

  • চট্টগ্রামে জঙ্গি সংগঠন হামজা ব্রিগেডের ৩৩ সদস্যের বিচার শুরু...

  • বিএনপি নেত্রী শাকিলা ফারজানার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

  • রিফাত হত্যা: মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে না: হাইকোর্টের রুল...

  • মামলার সব নথি তলব; এসপির প্রেস ব্রিফিংয়ের লিখিত ব্যাখ্যার নির্দেশ

  • ডেঙ্গুতে শরীয়তপুরে গৃহবধূ ও ফরিদপুরে শ্রমিকের মৃত্যু

  • পর্যায়ক্রমে বৈদ্যুতিক লাইন মাটির নিচ দিয়ে নেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  • কাশ্মীরে চালানো আগ্রাসনের কারণে ভারতীয় হিসেবে গর্ববোধ করি না...

  • গণতন্ত্র ছাড়া এ সমস্যার সমাধান নেই: নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন

  • আলোচিত বিষয়গুলোতে ঐকমত্যে পৌঁছেছি: বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী...

  • পারস্পরিক সমঝোতায় অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন সমস্যা সমাধানের আশা জয়শঙ্করের...

  • বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমারের স্বার্থে রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরে যাওয়া দরকার

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন: তালিকাভুক্তদের জানানো শুরু করেছে ইউএনএইচসিআর

  • মশার নতুন ওষুধ কার্যকরী, হাইকোর্টে উত্তর সিটির প্রতিবেদন...

  • দক্ষিণে আজ থেকে ছিটানো হবে নতুন ওষুধ: হাইকোর্টকে আইনজীবী...

  • ডেঙ্গু রোধে উত্তরের পদক্ষেপে সন্তুষ্ট হাইকোর্ট, দক্ষিণের ভূমিকায় ক্ষোভ...

  • ডেঙ্গু রোধে কাদের গাফিলতি, তদন্ত হওয়া দরকার: হাইকোর্ট

  • ডেঙ্গুতে শরীয়তপুরে গৃহবধূ ও ফরিদপুরে শ্রমিকের মৃত্যু

  • আন্তর্জাতিক চক্রান্তে চামড়া শিল্পের মতো সম্ভাবনাময় খাতগুলো মুখ থুবড়ে পড়ছে: ফখরুল

  • নিরাপত্তা চাইতে ডাকসুর ভিপি নুর হাইকোর্টে

বিশ্ব ঐতিহ্যের ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় আপাতত থাকছে না সুন্দরবন

বিশ্ব ঐতিহ্যের ঝুঁকিপূর্ণ তালিকায় আপাতত থাকছে না সুন্দরবন

ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটির বিশেষজ্ঞ মতামতের সাথে একমত হননি সদস্য রাষ্ট্রগুলো। তাই বৃহস্পতিবার আজারবাইজানের বাকুতে কমিটির ৪৩তম অধিবেশনে আপাতত সুন্দরবনকে বিশ্ব ঐতিহ্যের বিপন্ন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেননি তারা। অবশ্য এই সিদ্ধান্তকে নেতিবাচক হিসেবে দেখছে ঐতিহ্য কমিটির ইউরোপের সদস্যরা। অধিবেশনে আবারও সুন্দরবন রক্ষার অঙ্গীকারকে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ ও জ্বালানি উপদেষ্টা।

বুধবারই সুন্দরবনকে বিপন্ন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ নাকচ করে দেয় ২১টির মধ্যে ১৩ সদস্য রাষ্ট্র। কিউবা-চীন ও বসনিয়ার বিকল্প প্রস্তাবের বাইরে বিশেষজ্ঞ কমিটির সাথে একমত হয় নরওয়ে-হাঙ্গেরি ও অস্ট্রেলিয়া। তবে সবাইকে একসাথে বসে নতুন করে খসড়া প্রস্তাব দিতে বলেন অধিবেশনের সভাপতি।

নানা নাটকীয়তার পর সম্মিলিত প্রস্তাব দেয় ওই কমিটি। সেখানে সুন্দরবনকে আপাতত বিশ্ব ঐতিহ্যের বিপন্ন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়টি বাদ দেয়া হয়।

বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টার কিছু পরে বিষয়টি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। নতুন সিদ্ধান্তে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যেই পরিবেশ রক্ষায় বাংলাদেশ সরকার কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা জানাতে হবে ইউনেস্কোকে।

অবশ্য বিশেষজ্ঞ কমিটির মতামতের সাথে একমত হওয়া ইউরোপের কয়েকটি দেশ, এই সিদ্ধান্ত মেনে নিলেও তারা নোট অব ডিসেন্ট বা আপত্তি দেয়। তাদের পক্ষে হাঙ্গেরীর প্রতিনিধি বলেন, এভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া ঐতিহ্য কমিটির মতামতকে হালকা করে।

অধিবেশনে সরকারের পক্ষে জানানো হয়, সুন্দরবনকে রক্ষায় সম্ভাব্য সবকিছু করছে বাংলাদেশ।

রামপাল ও পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্র সুন্দরবনে কী প্রভাব ফেলবে, তা খতিয়ে দেখতে এ বছরের শেষদিকে একটি বিশেষজ্ঞ দল পাঠাবে ইউনেস্কো।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর