channel 24

সর্বশেষ

  • গর্ভের শিশুর লিঙ্গ প্রকাশ বন্ধে রিট

  • বাণিজ্য মেলায় হকার-ভিক্ষুকের উপস্থিতি, আন্তর্জাতিন মান হারাচ্ছে মেলা

  • বিসিএস পরীক্ষার বয়সসীমা ৩২ বছর চেয়ে রিট দায়ের

  • ঢাকাকে স্মার্ট সিটি গড়ার ৩৮ প্রতিশ্রুতি দিয়ে আতিকের ইশতেহার

  • আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবসে টেলিছবি স্বর্ণমানব তিন

  • ইশরাকের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা

  • অনলাইনে ভ্রমণ করের উদ্বোধন, ৩টি স্থল বন্দরে মেলবে এই সুবিধা

  • চট্টগ্রামের 'শেখ রাসেল পানি শোধনাগার' উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • ইশতেহার ঘোষণা করলেন আতিকুল ইসলাম

  • ৫০০০ টাকা মুচলেকায় ড. ইউনূসের জামিন

  • ঢাকায় ভারতের ৭১তম গণতন্ত্র দিবস উদযাপন

  • এসএসসি পরীক্ষা পেছানোয় কিছুটা অস্বস্তিতে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা

  • বাঁশখালীতে র‍্যাবের সাথে 'বন্দুকযুদ্ধে' ডাকাত নিহত

  • কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • মুক্তাগাছায় ট্রাক-সিএনজির সংঘর্ষে নিহত ২

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চীনে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সভায় এ সহযোগিতা চান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারের সাথে আলোচনা চলছে।

চীনের দালিয়ান শহরে চলছে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বার্ষিক সভা। এতে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

মঙ্গলবার (২ জুলাই) প্যানেল আলোচনায় সঞ্চালক বলেন, বাংলাদেশ উন্নত দেশের কাছে জনপ্রিয়। এ সময় শেখ হাসিনার কাছে সঞ্চালক জানতে চান, ভবিষ্যতে এ সব দেশের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্পর্ক কেমন হবে?

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো দেশ একা চলতে পারে না। প্রতিবেশি দেশের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক ভালো। এছাড়া, ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলে যেকোন পদক্ষেপ নেয়ার আগে, ৫টি বিষয় বিবেচনা করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,'বর্তমানে পৃথিবী বৈশ্বিক গ্রামে পরিণত হয়েছে। তাই কোন দেশ একা চলতে পারে না। প্রতিবেশি দেশের সাথে সমস্যা থাকতে পারে। তবে, সেগুলো আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলে যেকোনো পদক্ষেপ নেবার ক্ষেত্রে শান্তি, নিরাপত্তার পরিবেশ তৈরি করতে হবে।, টেকসই উন্নয়নে জোর দিতে হবে। পারস্পরিক লাভের জন্য পয়োজন পারস্পরিক আস্থা। উন্নয়ন হতে হবে আন্তর্ভুক্তিমূলক। প্রতিযোগিতা থাকবে তবে কোনো দ্বন্দ্ব থাকবে না। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছে। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে দিতে দেশটির সাথে আলোচনা চলছে। আমরা সবার সহযোগিতা চাই।'

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে দীর্ঘ মেয়াদে সামরিক শাসন ছিল। তাই সেসময় দেশে উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সরকারের আমলে দেশে অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে। যখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকে তখনই বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়। ২০০৯ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত দেশের অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে। আমরা জনগণের জন্য উন্নয়ন চাই। দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে চাই।

বাংলাদেশের সরকারপ্রধান বলেন, দেশে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরি করা হয়েছে। দেশের অর্থনীতি উন্মুক্ত করা হয়েছে। দেশি বিদেশী যেকোন বিনিয়োগকে আমরা স্বাগত জানাই। বর্তমানে বিদেশী ঋণ জিডিপির ৪০.৩ শতাংশ। যা টেকসই অর্থনীতির প্রতীক। গেলো বছর আমাদের জিডিপির প্রবিৃদ্ধি ছিলো ৮.১ শতাংশ। আমরা আশা করছি নতুন অর্থ বছরে এটি দাড়াবে ৮.২ শতাংশ। আর বাংলাদেশ বিদেশী ঋণ পরিশোধে কখনও ব্যর্থ হয়নি। প্রতিবেশি দেশ থেকে বিনোয়োগ আসলে আমাদের কোন সমস্যা নেই।

এবারের সভায় বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, সরকার প্রধানসহ প্রায় ১ হাজার ৮শর বেশি প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর