channel 24

সর্বশেষ

  • সড়ক দুর্ঘটনায় সৌদি আরবের মদিনায় ৪ বাংলাদেশিসহ নিহত ৭

  • রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সমর্থন আদায়ে সরকার ব্যর্থ...

  • মিয়ানমারের কাছে নতি স্বীকার করেছে: মির্জা ফখরুল

  • শুধু আ.লীগ নয়, সব দলেরই বঙ্গবন্ধুর ছবি ব্যবহার করা উচিত: সালমান এফ রহমান

  • সড়ক দুর্ঘটনায় ফরিদপুর সদরে ৮ ও তালমায় ২ জন নিহত

  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের ব্যর্থতা নেই: ওবায়দুল কাদের

  • ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেলে শিশুর মৃত্যু...

  • গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১,১৭৯: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণের জন্য আমাকে সম্মাননা দেয়া হয়নি: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

  • শিশু আইন নিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনা এখন থেকে...

  • আইন হিসেবে কার্যকর হবে: বিচারপতি ইমান আলী

  • শিশুকে অপরাধী বলা যাবে না; আসামি বা সাক্ষী হলে...

  • ছবি ও পরিচিতি দেখানো যাবে না: বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ

  • জাহালম ইস্যু: দায় স্বীকার করে হাইকোর্টে সোনালী ব্যাংকের প্রতিবেদন...

  • জড়িত ৮ জনের বিরুদ্ধে নেয়া হয়েছে বিভাগীয় ব্যবস্থা

  • সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় কমরেড মোজাফফর আহমদের জানাজা শেষে...

  • রাষ্ট্রপতির পক্ষে সামরিক সচিব, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শ্রদ্ধা

  • রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাঙচুরের অভিযোগে...

  • ছাত্রলীগ নেতা ফয়সালসহ গ্রেপ্তার ২; অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরাতে সবার সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চীনে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সভায় এ সহযোগিতা চান তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারের সাথে আলোচনা চলছে।

চীনের দালিয়ান শহরে চলছে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বার্ষিক সভা। এতে যোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

মঙ্গলবার (২ জুলাই) প্যানেল আলোচনায় সঞ্চালক বলেন, বাংলাদেশ উন্নত দেশের কাছে জনপ্রিয়। এ সময় শেখ হাসিনার কাছে সঞ্চালক জানতে চান, ভবিষ্যতে এ সব দেশের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্পর্ক কেমন হবে?

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো দেশ একা চলতে পারে না। প্রতিবেশি দেশের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক ভালো। এছাড়া, ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলে যেকোন পদক্ষেপ নেয়ার আগে, ৫টি বিষয় বিবেচনা করা উচিত।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,'বর্তমানে পৃথিবী বৈশ্বিক গ্রামে পরিণত হয়েছে। তাই কোন দেশ একা চলতে পারে না। প্রতিবেশি দেশের সাথে সমস্যা থাকতে পারে। তবে, সেগুলো আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। ইন্দো প্যাসিফিক অঞ্চলে যেকোনো পদক্ষেপ নেবার ক্ষেত্রে শান্তি, নিরাপত্তার পরিবেশ তৈরি করতে হবে।, টেকসই উন্নয়নে জোর দিতে হবে। পারস্পরিক লাভের জন্য পয়োজন পারস্পরিক আস্থা। উন্নয়ন হতে হবে আন্তর্ভুক্তিমূলক। প্রতিযোগিতা থাকবে তবে কোনো দ্বন্দ্ব থাকবে না। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছে। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে দিতে দেশটির সাথে আলোচনা চলছে। আমরা সবার সহযোগিতা চাই।'

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বাংলাদেশে দীর্ঘ মেয়াদে সামরিক শাসন ছিল। তাই সেসময় দেশে উন্নয়ন হয়নি। বর্তমান সরকারের আমলে দেশে অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে। যখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকে তখনই বাংলাদেশের উন্নয়ন হয়। ২০০৯ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত দেশের অভাবনীয় উন্নয়ন হয়েছে। আমরা জনগণের জন্য উন্নয়ন চাই। দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করতে চাই।

বাংলাদেশের সরকারপ্রধান বলেন, দেশে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরি করা হয়েছে। দেশের অর্থনীতি উন্মুক্ত করা হয়েছে। দেশি বিদেশী যেকোন বিনিয়োগকে আমরা স্বাগত জানাই। বর্তমানে বিদেশী ঋণ জিডিপির ৪০.৩ শতাংশ। যা টেকসই অর্থনীতির প্রতীক। গেলো বছর আমাদের জিডিপির প্রবিৃদ্ধি ছিলো ৮.১ শতাংশ। আমরা আশা করছি নতুন অর্থ বছরে এটি দাড়াবে ৮.২ শতাংশ। আর বাংলাদেশ বিদেশী ঋণ পরিশোধে কখনও ব্যর্থ হয়নি। প্রতিবেশি দেশ থেকে বিনোয়োগ আসলে আমাদের কোন সমস্যা নেই।

এবারের সভায় বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, সরকার প্রধানসহ প্রায় ১ হাজার ৮শর বেশি প্রতিনিধি অংশ নিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর