channel 24

সর্বশেষ

  • আ.লীগের ভেতরে থাকা রাজাকারের তালিকা করা উচিত: গাফফার চৌধুরী

  • কাদের মোল্লাকে 'শহীদ' বলায় সংগ্রাম পত্রিকার বিরুদ্ধে...

  • কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

  • ভারতে থাকা অবৈধ বাংলাদেশিদের তালিকা চাওয়া হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাসের ধাক্কায় নারী নিহত; বাস আটক

  • ৪৭ হাজার গ্রামপুলিশকে জাতীয় স্কেলের...

  • চতুর্থ শ্রেণির সমান বেতন দেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

  • দেশের কল্যাণে যেকোনো ত্যাগ স্বীকারে...

  • সশস্ত্র বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার আহবান প্রধানমন্ত্রীর

  • প্রথম ধাপে ১০ হাজার ৭৮৯ রাজাকারের তালিকা প্রকাশ...

  • প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার সংখ্যা ২ লাখ ১০ হাজারের বেশি নয়: মুক্তিযুদ্ধমন্ত্রী

হোটেল-রেস্টুরেন্টের খাবারের মান নিশ্চিতকরণে কমিটি ও নীতিমালা তৈরির নির্দেশ

হোটেল-রেস্টুরেন্টের খাবারের মান নিশ্চিতকরণে কমিটি ও নীতিমালা তৈরির নির্দেশ

দেশের হোটেল কিংবা রেস্টুরেন্টগুলোয় আবহাওয়া উপযোগী খাবারের মান ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কমিটি গঠনের মা্যধমে একটি নীতিমালা তৈরীর নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা সহ এ রিটের অন্যান্য বিবাদীদের নিয়ে ওই বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

একইসঙ্গে এক মাসের মধ্যে ওই বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করে পরবর্তী ২ মাসের মধ্যে বিদেশী ও স্থানীয় চা/কফি/উষ্ণ পানীয় পরিবেশনের নীতিমালা করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি ওই নীতিমালা আগামী ২২ অক্টোবর প্রতিবেদন আকারে জমা দিতে বলা হয়েছে এবং ২৪ অক্টোবর মামলার শুনানির জন্য দিন ধার্য্য করা হয়েছে। জনস্বার্থে দায়ের করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার (১ জুলাই) বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রুল সহ এসব অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রিশাদ ইমাম, জুবায়দা গুলশান আরা প্রমুখ।  রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল নাজমা আফরিন।

এছাড়াও ২০১৪ সালের হোটেল ও রেস্টুরেন্ট আইন অনুসারে জেলা প্রশাসক এবং ২০০৯ সালের ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের বিধান অনুসারে অভিযোগ পাওয়া সত্ত্বেও সে বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় বিবাদীদের ব্যার্থতা কেন বেআইনী ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবেনা, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ক্ষতিগ্রস্থ সিহিনথাকে প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ দিতে নাভানা ফুডস লিমিটেডকে কেন নির্দেশ দেওয়া হবেনা, অন্যথায় ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যার্থতায় ক্যাফটির লাইসেন্স কেন বাতিল করা হবেনা, রুলে তাও জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

দুই সপ্তাহের মধ্যে ঢাকার জেলা প্রশাসক, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বেসরকারী বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং নাভানা ফুডস লিমিটেডকে এসব রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

মামলার বিবরনী থেকে জানা গেছে, গ্লোরিয়া জিন’স ক্যাফে নামে ঢাকায় নাভানা ফুডস লিমিটেডের চারটি আউটলেট রয়েছে। গত বছরের মে মাসে সিহিনথা সাবিন খান নামের একজন ক্রেতা গুলশানস্থ গ্লোরিয়া জিন’স ক্যাফে গিয়ে দুপুরের খাবার শেষে ক্যাফটির নিজস্ব ঢাকনাযুক্ত একটি চায়ের কাপ নিয়ে গাড়ীতে ওঠেন। তবে গাড়ী ছাড়ার পূর্বেই তিনি কাপটি হাতে নিলে বিস্ফোরনের মত কাপটি ফেটে তার শরীরে পড়ে। চা অতিরিক্ত গরম হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গেই সিহিনথার পেট ও পায়ের পেছন দিকের কিছু অংশ পুড়ে যায়। এরপর তিনি দৌঁড়ে গ্লোরিয়া জিন’স ক্যাফটিতে দৌঁড়ে যান। কিন্তু প্রাথমিকভাবে ক্যাফের কোন কর্মকর্তা তাকে হাসপাতালে না নিয়ে ঠান্ডা পানি দিয়ে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

তবে ঘটনার কিছুপর ভুক্তভোগীর বাবা-মা এসে সিহিনথাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। সিহিনথার পোড়া ছিলো থার্ড ডিগ্রী বার্ণ টাইপের। এ ধরণের বার্ণ হতে হলে চায়ের তাপমাত্রা তীব্রতর হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে ওই ক্যাফের চায়ের তাপমাত্রা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন ডাক্তাররা।  

এরপর থেকে ব্যাংকক গিয়ে প্রতি মাসে সিহিনথাকে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে। যদিও ঢাকনাযুক্ত ত্রুটিপূর্ণ চায়ের কাপ ও চায়ের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রিত না থাকার বিষয়টি ক্যাফ কর্তৃপক্ষ কখনো স্বীকার করেনি। তাই চলতি বছর ওই ঘটনার বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের ব্যাখ্যা দিতে একটি আইনি নোটিশ দেওয়া হয়। এ নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে কয়েকবার আলোচনা হলেও ক্যাফের মালিকপক্ষ কোন ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হননি।   

রিটকারীর আইনজীবী রাশনা ইমাম বলেন, বিধান অনুসারে জেলা প্রশাসক স্থানীয় হোটেল ও রেস্টুরেন্টের লাইসেন্স দেওয়া ও বাতিল করতে পারেন। আবার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের অধীনেও এর অধিদপ্তরকে হোটেল-রেস্টুরেন্ট পরিদর্শন ও ভোক্তাদের অভিযোগ তদন্ত করার বিষয়ে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রিটকারী সিহিনথার অভিযোগের বিষয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই প্রতিকার চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর