channel 24

সর্বশেষ

  • নলডাঙ্গায় কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

  • বাংলাদেশি পোশাকের নতুন বাজার হতে পারে অস্ট্রিয়াসহ মধ্য ইউরোপের দেশগুলো

  • দ্বন্দ্ব ও ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে একসাথে কাজ করার আহ্বান বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্টের

  • বগুড়ায় করতোয়া নদীতে ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ

  • আসামের এনআরসি প্রধানকে মধ্যপ্রদেশে বদলি

  • সুনামগঞ্জে দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০ বছরের শিশু নিহত

  • চট্টগ্রামের জহুর হকার্স মার্কেটে আগুন নিয়ন্ত্রণে

  • সুনামগঞ্জে দু'পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত

  • আফগানিস্তানে মসজিদে বোমা হামলায় নিহত অন্তত ৬২ জন

  • পারফরমেন্সের ভিত্তিতে টি টোয়েন্টি দলে আল আমিন-আরাফাত সানী: মিনহাজুল আবেদিন

  • সারাদেশে নানা আয়োজনে শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মবার্ষিকী পালিত

  • কাল পর্দা উঠছে শেখ কামাল ক্লাব কাপের তৃতীয় আসরের

  • প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী কালিদাস কর্মকার আর নেই

  • সব আদিবাসী বর্তমান সরকারের আমলেই নিরাপদ: গণপূর্ত মন্ত্রী

  • দেশের আর্থিক খাতের উন্নয়নে অনেক কাজ বাকি: অর্থমন্ত্রী

দুধ নিয়ে দ্বিধা

দুধ নিয়ে দ্বিধা

বাজারের পাস্তুরিত দুধে মানবদেহে ক্ষতিকারক কী আছে? এ নিয়ে একই দিনে দুই ধরণের তথ্য দিলো দুটি প্রতিষ্ঠান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টার এবং ফার্মেসি অনুষদ এই দুধে উদ্বেগজনক হারে এন্টিবায়োটিক, ফরমালিন ও ডিটারজেন্টের উপস্থিতি পেয়েছে। তারা সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানালেও একই দিন উল্টো তথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই)।

হাইকোর্টের আদেশে বিএসটিআই আদালতে যে তথ্য দিয়েছে সেখানে বলা হয়েছে বাজারের ১৮টি দুধে কোন ধরণের মানবদেহের ক্ষতিকারক কিছু নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই দুই বিভাগ ৭টি পাস্তরিত ও ৩টি অপাস্তুরিত দুধের পরীক্ষা নীরিক্ষা করে। আর বিএসটিআই পরীক্ষাটি করে ১৮টি পাস্তুরিত দুধের।

ঢাবির ওই দুই বিভাগ তাদের ল্যাবরেটরিতে বাজারে প্রচলিত পাস্তরিত ও অপাস্তুরিত দুধের নমুনা পরীক্ষা করে। তাদের পরীক্ষায় উদ্বেগজনক হারে এন্টিবায়োটিক, ফরমালিন ও ডিটারজেন্টের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের শিক্ষকদের বিশেষজ্ঞ দল সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য প্রকাশ করে।

তারা জানায়, পাস্তুরিত দুধগুলোর মধ্যে যেগুলো বেশি বিক্রি হয় এমন ৭টির নমুনা এবং অপাস্তুরিত দুধের ৩টি নমুনা ঢাকা মহনগীরর বিভিন্ন বাজার থেকে সংগ্রহ করে বিএসটিআই স্টান্ডার্ড অনুযায়ী পরীক্ষা করে এই ফলাফল পাওয়া গেছে ল্যাবরেটরিতে।

পাস্তুরিত দুধগুলো হলো মিল্ক ভিটা, আড়ং, ফার্ম ফ্রেশ, প্রাণ, ঈগলু, ঈগুলু চকোলেট এবং প্রাণ চকলেট।

গবেষণার ফলাফল থেকে জানা যায়, পাস্তুরিত ৭টি নমুনার সবগুলোতেই মানব চিকিৎসায় ব্যবহৃত এন্টিবায়োটিক লেভোফ্লক্সাসিন, সিপ্রোফ্লাক্সিন এবং ছয়টিতে এজিথ্রোমাইসনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।

বাজারের পাস্তুরিকৃত ১৮টি দুধে ক্ষতিকারক কোন কিছু পাওয়া যায় নি মর্মে আদালতে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে বিএসটিআই।

এদিকে সকালে বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি  ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে মঙ্গলবার (২৫ জুন) সকালে এ রিপোর্ট জমা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

পরে বিএসটিআইয়ের আইনজীবী জানান, বিএসটিআইয়ের তালিকাভুক্ত ১৮ টি দুধের পরীক্ষা শেষে এ রিপোর্ট প্রস্তুত করেছে তারা। এর আগে গত রোববার হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চ বাজারের সকল দুধ পরীক্ষা করে রিপোর্ট দিতে নির্দেশ দেয়।

শুনানির শুরুতে হাইকোর্টে পাস্তুরিত দুধ পরীক্ষার প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।  ব্র্যান্ডগুলো হলো- আড়ং ডেইরি, ফার্ম ফ্রেশ মিল্ক, মিল্ক ভিটা, পুরা, আয়রান, মো, আফতাব, আল্ট্রা, তানিয়া (২০০ গ্রাম ও ৫০০ গ্রাম), ইগলু, প্রাণ মিল্ক, ডেইরি ফ্রেশ, মিল্ক ফ্রেশ এবং কাউহেড পিওর মিল্ক।

নিউজটির ভিডিও-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর