channel 24

সর্বশেষ

  • যুবলীগ নেতা খালেদ ভূঁইয়া দল থেকে বহিষ্কার

  • যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ আটক, ২শ' কোটি টাকার এফডিআর, নগদ টাকা, অস্ত্র উদ্ধার

  • অপকর্মে জড়িত নেতারা নজরদারিতে: কাদের

  • দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে, আর এতে মদদ দিচ্ছে সরকার: ফখরুল

  • ঢাবি শিক্ষার্থীরা পরবর্তীতে কোন প্রক্রিয়ায় ভর্তি হবেন, সে সিদ্ধান্ত অনুষদের: উপাচার্য

  • ঠাকুরগাঁও সীমান্তে বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

  • রাজশাহীর বড়াল নদী থেকে ৪ জনের গলিত মরদেহ উদ্ধার

  • ত্রিদেশীয় সিরিজে আজ মুখোমুখি আফগানিস্তান-জিম্বাবুয়ে

  • যুবলীগ নেতা খালেদের মামলা তদন্ত করবে ডিবি উত্তর

দুর্নীতির অভিযোগে যেকোনো সময় পদত্যাগ ইসলামী ফাউন্ডেশনের ডিজির

দুর্নীতির অভিযোগে যেকোনো সময় পদত্যাগ ইসলামী ফাউন্ডেশনের ডিজির

দুর্নীতি আর অনিয়মের নানা অভিযোগে ইসলামী ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজালকে মন্ত্রণালয় থেকে পদত্যাগের কথা বলা হলেও এখন স্বপদে বহাল আছেন তিনি। অদৃশ্য ক্ষমতার বলে দীর্ঘ ১১ বছর ধরে ইসলামী ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালকের পদটি দখল করে রেখেছেন তিনি। নানা অনিয়মের ফিরিস্তি থাকলেও সবশেষ বায়তুল মোকারাম মসজিদের পিলার ভাঙার ঘটনায় এক পরিচালককে অনৈতিকভাবে বহিষ্কারের ঘটনায় ফেঁসে যান তিনি। প্রতিষ্ঠানটির সচিব বলছে, যেকোনো সময় পদত্যাগ করবেন ডিজি, তবে নিতে পারবেন না কোনো নথিপত্র।

ঘটনার শুরু একটি দোকানের ভেতর পিলার ভাঙাকে কেন্দ্র করে। রমজান মাসে রাতের বেলা গোপনে বায়তুল মোকারাম মসজিদ মার্কেটের ভেতরের একটি বড় পিলার ভেঙে ফেলা হয়। খবর পেয়ে ইসলামী ফাউন্ডেশনের মসজিদ কমিটির পরিচালক মহিউদ্দিন মজুমদার দোকানটি বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় এবং দোকান মালিকের নামে থানায় অভিযোগ করে।

আর এটিই কাল হয়ে দাঁড়ায় তার জন্য। মহিউদ্দিন মজুমদার অভিযোগ করেন, ইসলামী ফাউন্ডেশনের ডিজি এ ঘটনায় চড়াও হয়ে তাকে অনৈতিক ভাবে তার পদ থেকে অব্যহতি দেন। শুধু এ ঘটনা নয় আরও ডিজির নামে নানা ধরনের দুর্নীতির ঘটনার ব্যখ্যা দেন তিনি।

এ ঘটনার সত্যতার প্রমাণ পেয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয় ইসলামী ফাউন্ডেশনের ডিজি সামীম মোহাম্মদ আফজালকে দ্রুত সময়ের মধ্যে পদত্যাগের নির্দেশ দেন এবং সে যাতে কোনো ধরনের নথিপত্র সরাতে না পরে এজন্য সচিবকে নির্দেশ দেয়া হয়।

তবে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশের পরও সামীম মোহাম্মদ আফজাল পদত্যগ না করে উল্টো শনিবার বন্ধের দিনে অফিসে আসে নথিপত্র সরানোর সময় বাধা দেন ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা। এসময় তাদের তোপের মুখে অফিস থেকে চলে যেতে বাধ্য হন তিনি।

এ বিষয় প্রতিষ্ঠানটির সচিব জানান পিলারের বিষয়ে ডিজির নেয়া সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক। ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন তিনি। মন্ত্রণালয় থেকে পদত্যাগে নির্দেশসহ প্রয়োজনীয় নথীপত্র সরানোর বিষয়েও নিষেধাজ্ঞা আছে তার বিরুদ্ধে।

এবিষয়ে ডিজির সাথে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কোনো কথা বলতে রাজি হননি তিনি। অফিসে থাকার পরও ক্যামেরার সামনে কথা বলবেন না বলেও জানিয়েছেন তার সহকারী।

তবে কথা বলেছেন ধর্মমন্ত্রী। তিনি বলেন, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না হবে ডিজির বিরুদ্ধে। মন্ত্রী জানান, অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে এখনও পদত্যাগ করেননি তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর