channel 24

সর্বশেষ

  • সিরাজগঞ্জে দুর্বৃত্তের এসিডে ঝলসে গেছে গৃহবধূ

  • ওষুধে মরছে না প্রাপ্তবয়স্ক এডিস মশা

  • দিনাজপুরে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক আটক

  • ফাইনালে মুখোমুখি আলজেরিয়া ও সেনেগাল

  • বাংলাদেশী পণ্য বৈশ্বিক বাজারে বিক্রি করতে চাইছে অ্যামাজন

  • এইচএসসিতে ফেল করায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

  • আন্তর্জাতিক আদালতে পাকিস্তানে আটক ভারতীয় গুপ্তচরের মৃত্যুদণ্ড স্থগিত

  • বাঁধ ভেঙে উত্তরবঙ্গের বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি

  • সদরঘাটে ধসে পড়া ভবনের ধ্বংসস্তুপ থেকে বাবা-ছেলের মরদেহ উদ্ধার

  • প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারীর নামে সিল-প্যাড জাল করে ভুয়া চিঠি, থানায় জিডি

  • যুক্তরাজ্যে কর্মহীন লোকের সংখ্যা ২৭ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে

  • চীন-যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য দন্দ্বে ভারতের রপ্তানিতে নেতিবাচক প্রভাব

  • সুপার ওভার দেখতে খুব উপভোগ্য, তবে খেলার জন্য নয়: স্টোকস

  • কৃষকরা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সেদিক বিবেচনা করা হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী

  • ইনডোর এশিয়া হকিতে ফিলিপাইনকে হারিয়ে জয় পেল বাংলাদেশ

ওসি মোয়াজ্জেমের পরিণতি দেখে কিছুটা হলেও খুশি নুসরাতের স্বজনরা

ওসি মোয়াজ্জেমের পরিণতি দেখে কিছুটা হলেও খুশি নুসরাতের স্বজনরা

সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমের পরিণতি দেখে কিছুটা হলেও খুশি নুসরাত জাহান রাফির স্বজনরা। এখন তাদের দাবি, আইনের আওতায় আনা হোক তার সহযোগীদেরও। হত্যা মামলার সব আসামি গ্রেফতার হয়েছে আগেই।

ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় গুরুত্ব বাড়িয়েছে সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদরাসা কর্তৃপক্ষ। 

আগুনে পুড়িয়ে খুন হওয়ার আগেই পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন নুসরাত। ব্যবস্থা নেয়াতো দূর, তার মৃত্যুর পর সোনাগাজীর তৎকালীন ওসির মোবাইলে ধারণ করা অভিযোগের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়া হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ঘটনার সাইবার অপরাধ মামলায় ওসি মোয়াজ্জেমকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাকে রাখা হয়েছে কেরাণীগঞ্জ কারাগারে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় আলিম প্রথমপত্রের পরীক্ষা দিতে যান নুসরাত। তিনি এই মাদ্রাসার এবারের আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন। এর আগে ২৭ মার্চ মাদ্রাসাটির অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার হাতে যৌন হয়রানির শিকার হন নুসরাত। এ ঘটনায় তার মা বাদী হয়ে সোনাগাজী থানায় মামলা করেন। মামলা তুলে নিতে আসামিপক্ষ নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করে। নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন নুসরাত। এর জের ধরেই তাকে ডেকে নিয়ে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। ৮০ শতাংশ পোড়া শরীর নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে পাঁচ দিন লড়ার পর মারা যান নুসরাত।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর