channel 24

ব্রেকিং নিউজ

  • নুসরাত হত্যা: সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম শাহবাগ থেকে গ্রেপ্তার

সীমিত সাধ্যে বিলাসী বাজেট

সীমিত সাধ্যে বিলাসী বাজেট

সাধ ও সাধ্যের বিস্তর ফারাক। তারপরও নতুন অর্থবছরের জন্য রেকর্ড সোয়া পাঁচ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা দিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নিজের প্রথম বাজেটে দিয়েছেন প্রবৃদ্ধি গতিশীল করার আশ্বাস। আয় বাড়াতে বাস্তবায়ন করা হবে নতুন ভ্যাট আইন। তবে, বাজেট বড় হলেও, আনুপাতিক বরাদ্দ বাড়েনি শিক্ষা-স্বাস্থ্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতে। বিপরীতে, ভর্তুকি, সুদ পরিশোধ, প্রণোদনার মতো খাতে বেড়েছে বরাদ্দ।

জৈষ্ঠ্যের শেষভাগের উত্তাপে যখন প্রাণ প্রকৃতি পুড়ছে, তখনই লুই কানের নকশায় গড়া ভবনে, নতুন প্রাণ জাগাতে নতুন অর্থমন্ত্রী। রেকর্ড গড়া হিসাবের দলিল হাতে যথারীতি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রবেশ তিনটার কিছু পরে। হাসপাতাল থেকে সরাসরি সংসদে যাওয়া অসুস্থ অর্থমন্ত্রী, সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রা রচনার শুরুতেই এক রকম ঝিমিয়ে পড়েন। ফলে, বিরল দৃষ্টান্ত গড়ে বাজেট পড়তে শুরু করেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী।

দেশের শক্ত অর্থনৈতিক ভিত্তি আর গতিশীল প্রবৃদ্ধির বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে, আয়তনে ছুঁয়ার চেষ্টা আকাশটাকে। হিসাব দেয়া হলো, আগামী এক বছরে প্রায় সোয়া পাঁচ লাখ কোটি টাকা খরচের। বিনিয়োগ এবং বণ্টনের মাধ্যমে প্রবৃদ্ধি নেয়ার ঘোষণা প্রায় সোয়া আট শতাংশে। আর পণ্যমূল্যের দাম বাড়ার প্রবণতাকে আটকে রাখার লক্ষ্য সাড়ে পাঁচের ঘরে।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষায়, দেশের সব প্রান্তের মানুষকে যুক্ত করা এই বাজেট চাপ নয়; বরং স্বস্তি আনবে জনজীবনে। বিনিয়োগ পরিবেশ উন্নত হওয়ার মাধ্যমে বাড়বে কাজের সুযোগ। আর এটি করতেই উন্নয়ন বাজেটে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে, রেকর্ড দুই লাখ কোটি টাকার বেশি। যদিও, বেতন ভাতা, ভর্তুকি, প্রণোদনাসহ অনুন্নয়ন ব্যয়ও বেড়েছে আরও বেশি। যেখানে চলে যাচ্ছে প্রায় সোয়া তিন লাখ কোটি। আর, বাজেট বড় হলেও, আনুপাতিক হারে এবারও এক রকম উপেক্ষিত থাকছে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাত।

টাকা খরচের বেলায় দুহাত উজার করতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু, আয়ের বেলায় ছুঁড়ে দিয়েছেন প্রায় অসম্ভব এক লক্ষ্যমাত্রা। বেশ খানিকটা দূরে থাকা রাজস্বকে নতুন বছরে নিতে চেয়েছেন বহু উপরে। আয় করতে চান পৌনে চার লাখ কোটি টাকার বেশি। এর মধ্যে, এনবিআরের একার ঘাড়েই পড়ছে সোয়া তিন লাখ কোটি। যা তাদের চলতি সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৬ শতাংশ বেশি। আয় বাড়াতে বাস্তবায়ন করছেন নতুন ভ্যাট আইন। কিন্তু, এর জটিল হিসাব নিকাশ কতোখানি ইতিবাচক ফল দেবে- সামনে আসছে সেই প্রশ্ন।

আয় ব্যয়ের হিসাব মেলাতে গিয়ে পড়তে হচ্ছে প্রায় দেড় লাখ কোটি টাকা ঘাটতির মুখে। আর এই টাকার বড় অংশ যোগাড়ে হাত পাততে হবে বিদেশিদের কাছে। এছাড়া, দেশীয় ব্যাংক থেকেও ঋণ নিতে হবে ৪৭ হাজার কোটির বেশি।

ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন ছাড়াও এবার নতুন চমকের মধ্যে রয়েছে, প্রবাসী আয়ের ওপর প্রণোদনা, নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য বরাদ্দ এবং সামাজিক নিরাপত্তার আয়তন বাড়ানোর মতো বিষয়গুলো। থাকছে ব্যাংক ও পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ প্রণোদনা ও সংস্কার প্রস্তাব।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিজনেস 24 খবর