channel 24

সর্বশেষ

  • উপজেলা নির্বাচন ছিল একতরফা, যা গণতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত: ইসি মাহবুব

  • রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রে রাশিয়া থেকে ৫২৩ কোটি ৯০ লাখ টাকার...

  • ইউরেনিয়াম কেনার অনুমোদন সরকারের ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির

  • রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার ফেরাতে সৌদিতে ৬০ বিদেশি কূটনীতিকের কাছে...

  • সহায়তা চাইলো বাংলাদেশ; রিয়াদে ব্রিফ করেছেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ

  • খালেদা জিয়ার জামিন আটকে রেখেছে সরকার: মির্জা ফখরুল...

  • আদালত মুক্তি দিলে সরকারের কিছু করার নেই: ওবায়দুল কাদের

  • মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যূনতম বয়স নিয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন...

  • চেম্বার আদালত; আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানি ২৩ জুলাই

খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে দরকার কঠোর আইন

 খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে দরকার কঠোর আইন

প্রতি বছর রমজান এলেই বাড়ে ভেজালবিরোধী অভিযান। করা হয়, জেল-জরিমানা। কিন্তু, কমে না ভেজালের দৌরাত্ম। ভোক্তারা মনে করেন, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতে দরকার কঠোর আইন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মওলানা আব্দুল্লাহ বলেন, ভেজাল খাবার তৈরি, সরবরাহ ও বিক্রি, ভয়াবহ গুনাহের কাজ।

মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় রমজান মাসে রোজা পালন করেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। সারাদিন না খেয়ে থাকার পর, একটু ভালো আর মুখোরচক খাবারের জন্য তারা ভিড় জমান বিভিন্ন ইফতার বাজারে।

আর এরই সুযোগ নেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। নিম্ন মানের জিনিস দিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি খাবার বিক্রি করেন যত্রতত্র। খাবার নিয়ে বেড়ে যায় নানারকম প্রতারণা।

আর এইসব অনিয়ম ও প্রতারণা ঠেকাতে রোজার শুরু থেকেই ভেজালবিরোধী অভিযানে নমে  সরকারি বিভিন্ন সংস্থা। জরিমানার পাশাপাশি অনেক প্রতিষ্ঠানে সিলগালাও করে দেয়া হয়। কিন্তু তারপরও কি বন্ধ হয় এই ভেজালের কারবার? খাদ্যে ভেজাল দিলে শাস্তির বিধান আছে। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বিদ্যমান আইনের সঠিক প্রয়োগ এবং আইন আরও কঠোর করা উচিত।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এই মুফতি বলছেন, ইসলামের দৃষ্টিতে ভেজাল খাবার তৈরি ও বিপণন বড় ধরনের অপরাধ। যার পরিণতি ভয়াবহ। এই মুফতি বলছেন, ভেজাল খাবার বিক্রেতাদের ইবাদত আল্লাহ কবুল করেন না। এতে তারা ইহকাল ও পরকাল দুটিই ছাড়াচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর