channel 24

সর্বশেষ

  • বান্দরবানের তারাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি...

  • মংমং থোয়াই সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত

  • ছেলেধরা গুজবে বাড্ডায় নারীকে পিটিয়ে হত্যা মামলায়...

  • গ্রেপ্তার ৩ আসামি ৪ দিনের রিমান্ডে

  • শেখ হাসিনা কখনোই ৩ কোটি ৭০ লাখ মিসিং বলেননি: কাদের...

  • প্রিয়া সাহার বক্তব্যের পেছনে কারও ইন্ধন আছে কিনা...

  • দেশে ফেরার পর খতিয়ে দেখা হবে

  • ছেলেধরা গুজবে নৃশংসতা: মোবাইলে ধারণ করা ফুটেজ দেখে...

  • রাজধানীর বাড্ডায় নারীকে পিটিয়ে হত্যায় চারজন গ্রেপ্তার...

  • শনাক্ত অন্যান্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে: ডিবি...

  • কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মানসিক ভারসাম্যহীন নারীকে পিটিয়ে আহত...

  • দক্ষিণখানে আটকে রাখা কিশোরকে উদ্ধার করেছে পুলিশ

  • ডেঙ্গুতে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. শাহাদৎ হোসেনের মৃত্যু

  • আমিনবাজারের সালেহপুর ব্রিজ থেকে নদীতে পড়ে যাওয়া...

  • প্রাইভেটকারের সন্ধান মেলেনি এখনও; উদ্ধারকাজ চলছে

  • সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে আজও...

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ও একাডেমিক ভবনে তালা

  • মাগুরার পারনান্দুয়ালিতে মা-ছেলের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার...

  • গুরুতর অবস্থায় বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি

বিচারপতির বিরুদ্ধে অনৈতিকভাবে রায় পাল্টানোর অভিযোগ, সংশ্লিষ্ট সব রায় বাতিল

বিচারপতির বিরুদ্ধে অনৈতিকভাবে রায় পাল্টানোর অভিযোগ, সংশ্লিষ্ট সব রায় বাতিল

ঋণ সংক্রান্ত মামলায় হাইকোর্টের এক বিচারপতির বিরুদ্ধে, অবৈধভাবে ডিক্রি জারির মাধ্যমে রায় পাল্টানোর অভিযোগ উঠেছে। সকালে আপিল বিভাগে এ নিয়ে উদ্বেগ জানান, প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। বলেন, কত টাকার বিনিময়ে এ রায় হয়েছে, তা আদালতকে জানানো হোক। পরে হাইকোর্ট ও বিচারিক আদালতের এ সংক্রান্ত সব রায় বাতিল করা হয়। এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেলসহ জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা ওই বিচারপতির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপতির কাছে অভিযোগের পরামর্শ দেন।

অবৈধ আদেশের মাধ্যমে ১৩৬ কোটি টাকা ঋণ খেলাপি ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান এম আর ট্রেডিং কোম্পানিকে সুবিধা দেয়ার অভিযোগ এসেছে, হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চের বিরুদ্ধে। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগ সকালে এমন অভিযোগ তুলে, ওই বেঞ্চের বিরুদ্ধে `ম্যানেজড' হয়ে রায় পাল্টানোর কথা বলেন। ঘটনাটিকে নজিরবিহীন উল্লেখ করে, প্রকাশ্য সমালোচনাও করেন আপিল বিভাগ।

হাইকোর্টের ওই বেঞ্চের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপতির কাছে অভিযোগ দিতে বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল। সেই সাথে অভিযোগ নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত, সংশ্লিষ্ট বিচারপতিদের কাজ থেকে বিরত রাখারও আবেদন করেন তিনি। যার সঙ্গে একমত সিনিয়র আইনজীবীরাও।

পরে এম আর ট্রেডিংয়ের পক্ষে দেয়া সব আদেশ বাতিল করেন আপিল বিভাগ। সেই সঙ্গে জরিমানা করা হয় এক কোটি টাকা। তবে এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হননি অ্যাটর্নি জেনারেল।

সিনিয়র আইনজীবীরা বলেছেন, হাইকোর্টের আদেশটি ছিলো অস্বাভাবিক। বিচার বিভাগের মর্যাদায় রক্ষায়, সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দেন তারা।

আপিল বিভাগের এমন সমালোচনার পর, সকাল সাড়ে দশটার কিছু পড়ে এজলাসে বসেন, বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চ। তবে কোনো আইনজীবী না আসায় ঘণ্টাখানেক পর নেমে যান।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর