channel 24

সর্বশেষ

  • ব্রিটেনে তারেক-জোবাইদার ব্যাংক একাউন্ট ফ্রিজ করার নির্দেশ আদালতের

  • নুসরাত হত্যায় জড়িত সবাইকে বিচারের আওতায় আনা হবে: এইচ টি ইমাম

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের প্রমাণ মিলেছে

আগুনে আটকে পড়াদের বাঁচাতে গিয়ে আহত রানাকে বাঁচানো গেল না

আগুনে আটকে পড়াদের বাঁচাতে গিয়ে আহত রানাকে বাঁচানো গেল না

বনানীর এফ আর টাওয়ারে আগুনে আটকে পড়া মানুষের জীবন বাঁচাতে গিয়ে আহত ফায়ার সার্ভিস কর্মী সোহেল রানাকে বাঁচানো গেল না। সোমবার (৮ এপ্রিল) সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী।

রাজধানীর বনানীতে এফ আর টাওয়ারে আগুনের ঘটনায়, উদ্ধার কাজে অংশ নেয়া ফায়ারম্যান সোহেল মারা গেছেন। সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে তিনদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর তার মৃত্যু হয়।

এ খবরে গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গেলো ২৮ মার্চ বনানীর এফ আর টাওয়ারে লাগা আগুন নেভানো এবং উদ্ধারের কাজে অংশ নিয়েছিলেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী সোহেল। হঠাৎ করেই মই থেকে পিছলে পড়ে যান তিনি। এ সময় তার একটি পা ভেঙে যায়।

কয়েকদিন ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হলেও, অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত ৫ এপ্রিল সোহেলকে পাঠানো হয় সিঙ্গাপুরে।

এদিকে কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার কেরুয়ালায় সোহেল রানার গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।

সোমবার (৮ এপ্রিল) রাত ১০টায় সিঙ্গাপুর থেকে তার মরদেহ দেশে আনা হবে।

সোহেলের মৃত্যুর খবর শোনার পর থেকেই পরিবারে চলছে মাতম। সোহেলের বাড়ি কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার চৌগাংগা ইউনিয়নের কেরালা গ্রামে। সোহেলের বাবা নুরুল ইসলাম (৬৫) পেশায় কৃষক। বয়সের কারণে তিনি এখন কৃষি কাজ করতে পারেন না।

নুরুল ইসলামের চার ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে সোহেল দ্বিতীয়। বড় মেয়ের বিয়ে হয়েছে।

এইচএসসি পাস করার পর ২০১৪ সালে ফায়ার সার্ভিসে যোগ দেন সোহেল। তাঁর আয়ে চলছিল পুরো পরিবার। ছোট তিন ভাই রুবেল হোসেন, উজ্জ্বল হোসেন ও দেলোয়ার হোসেনের পড়া-লেখার খরচও জোগাতেন সোহেল। তাঁর মৃত্যুতে পুরো পরিবার অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর