channel 24

সর্বশেষ

  • গুলশানে কূটনৈতিক এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে

  • শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে এক মাসের জন্য...

  • নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারীদের অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত

  • যন্ত্রপাতি ক্রয়ে দুর্নীতির অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক...

  • আবদুর রশীদসহ ১৪ জনকে ১ থেকে ৩ এপ্রিল তলব করেছে দুদক

  • বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টকে ভাঙার চেষ্টায় সরকার: মির্জা ফখরুল

  • প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ মারা গেছেন...

  • বাদ জোহর বারিধারার পার্ক মসজিদে জানাজা...

  • বনানী সামরিক কবরস্থানে দাফন

  • তৃতীয় দফায় ১১৬ উপজেলায় ভোট চলছে...

  • অনিয়মের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলায় ভোট স্থগিত...

  • অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিকুল ও কটিয়াদীর ওসি সামসুদ্দীনকে প্রত্যাহার..

  • মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে আ.লীগের দুই বিদ্রোহী প্রার্থীর ভোট বর্জন...

  • চট্টগ্রামের পূর্ব চন্দনাইশে দুপক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ গুলিবিদ্ধ ২; আটক ৫...

  • ভোটারশূন্যতাই প্রমাণ করে ভোটের প্রতি জনগণের আস্থা নেই: রিজভী

  • বাসচাপায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহতের প্রতিবাদে...

  • ৫ দফা দাবিতে সিলেটের চৌহাট্টায় সহপাঠীদের সড়ক অবরোধ

সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল ঢাকায়

সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল ঢাকায়

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর থেকে বিশেষজ্ঞ দল ঢাকায় এসেছে। আজ রোববার রাত পৌনে আটটার দিকে চিকিৎসক প্রতিনিধিদল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছায়। চিকিৎসক প্রতিনিধিদলে চিকিৎসক ছাড়া নার্সও আছেন।

হাসপাতালে ওবায়দুল কাদেরকে দেখে গেছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলটি। প্রধানমন্ত্রী দপ্তরের তত্ত্বাবধানে সিঙ্গাপুর থেকে বিশেষজ্ঞ দলটি আসছেন বলে জানান চিকিৎসকরা।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পরপরই সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকেরা ওবায়দুল কাদেরের পরিস্থিতি বুঝতে হাসপাতালে আসেন।

ভোর থেকেই শ্বাসকষ্ট বোধ করছিলেন ওবায়দুল কাদের। সকাল সাড়ে সাতটার দিকে ভর্তি হন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জানান, সিসিইউ-তে চিকিৎসার এক পর্যায়ে হার্ট অ্যাটাক হয় ওবায়দুল কাদেরের। এনজিওগ্রামে দেখা যায় হৃদপিন্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক। 

তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে একটি ব্লক অপসারণও করেছেন চিকিৎসকরা। পরে উন্নত চিকিৎসায় সিঙ্গাপুরে নেয়ার কথা উঠলেও, শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন চিকিৎসকরা।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে বিএসএমএমইউর কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলী আহসান বলেন, এনজিওগ্রাম করে দেখা যায় যে তার তিনটি আর্টারি ব্লক হয়ে গেছে। তার আগে থেকে থাকা ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত ছিল। এর মধ্যে খুব বেশি পরিমাণ ব্লক যেটা ছিল যেটাকে এলইডি বলে সেটিকে খুলে দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। খুলে দেওয়ার পর তিনি  দুই ঘণ্টা ভালো ছিলেন। এরপর তার রক্তচাপ আবার কমে যায়। ইলেকট্রোলাইট ইমব্যালেন্স হয়। এরপর নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়। সবার সঙ্গে পরামর্শ করে তার প্রেসার নিয়ন্ত্রণের যন্ত্র লাগানো হয়।

অধ্যাপক আলী আহসান বলেন, আমি আগেও বলেছি, ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে কিছু বলা যাবে না। এখনো উনি ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছেন। এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর