channel 24

সর্বশেষ

  • ঢাকায় পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে ব্যর্থতা স্বীকার ডিএমপি কমিশনারের

  • ছাত্র আন্দোলনে উসকানি বিএনপির দেউলিয়াত্বের প্রমাণ: হানিফ

  • পদ্মাসেতুর জাজিরা প্রান্তে আজ বসানো হচ্ছে না অষ্টম স্প্যান

  • এমপিওভুক্তির দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে...

  • সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছে শিক্ষকরা

  • সড়ক দুর্ঘটনায় সিরাজগঞ্জ, খুলনা ও নরসিংদীতে ৩ স্কুলশিক্ষার্থী নিহত

  • রাজধানীর কল্যাণপুরে তেলবাহী লরির ধাক্কায় মাদ্রাসা শিক্ষক নিহত

যৌতুক মামলায় পুলিশের এএসআই মাজহারুল কারাগারে

যৌতুক মামলায় পুলিশের এএসআই মাজহারুল কারাগারে

স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় নেত্রকোনায় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাজহারুল ইসলামকে (৩৫) কারাগারে পাঠানো হয়েছে। নেত্রকোনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারী) বিকেলে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

মদন উপজেলার শিবাশ্রম গ্রামে পুলিশ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলামের বাড়ি। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) তিনি বর্তমানে কর্মরত। তাঁর স্ত্রীর নাম নিলুফার ইয়াসমিন ওরফে লাকী (২৪)।

স্থানীয় বাসিন্দা ও আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২২ জুন মদনের শিবাশ্রম গ্রামের মৃত আবদুল হাকিমের ছেলে মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে নেত্রকোনা পৌর শহরের কাটলি এলাকার বাসিন্দা আবদুল ওয়াদুদের মেয়ে নিলুফার ইয়াসমিনের বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই মাজহারুল ইসলাম তাঁর স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা আনার জন্য নানানভাবে চাপ দেন।

নিলুফার তাঁর বাবার কাছ থেকে ১ লাখ টাকা এনেও দেন। মোটরসাইকেল কেনার কথা বলে পরে আরও টাকা আনার জন্য চাপ দিতে থাকেন। মাজহারুল ২০১৭ সালের ৩ মে স্ত্রী নিলুফারকে ৩ লাখ টাকা এনে দিতে বলেন। বিভিন্ন সময় নিলুফারকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন মাজহারুল টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায়।

নেত্রকোনার কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক গোলক চন্দ্র বসাক নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় মাজহারুল ইসলামকে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর