channel 24

সর্বশেষ

  • নিয়ম মানা না হলে তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: দুদক চেয়ারম্যান

  • ২৮ বছর পর সচল হল সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলা ২ মাসের মধ্যে অধিকতর তদন্ত শেষ করার নির্দেশ

  • নারায়ণঞ্জে নারী ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

  • নরসিংদীর দগ্ধ কলেজছাত্রীর মৃত্যু

  • প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়া

  • হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ব্রায়ান লারা

  • ভুল ইনজেকশনে এক মাসের বেশি সময় ধরে অজ্ঞান গোপালগঞ্জের মুন্নি

  • চট্টগ্রামে মাইক্রোবাসে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, দগ্ধ ১৫

  • অবশেষে ডিআইজি মিজান সাময়িক বরখাস্ত

  • খুলনা শিশু হাসপাতালকে ১৫ কোটি টাকা অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • সাম্প্রদায়িক শক্তি এখনও সক্রিয়, বড় নাশকতার পরিকল্পনা করছে: কাদের

  • স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

  • বুধবার নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে পাকিস্তানের বাঁচা-মরার লড়াই

  • বাংলাদেশের সেমিফাইনালের সম্ভাবনা কঠিন মনে করছেন দুর্জয়

  • স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের জন্য আলাদা অর্থনৈতিক অঞ্চলের চিন্তায় সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী

উন্নয়ন-সমৃদ্ধির অঙ্গীকারে আ.লীগের নির্বাচনি ইশতেহার

উন্নয়ন-সমৃদ্ধির অঙ্গীকারে আ.লীগের নির্বাচনি ইশতেহার

'সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ' এ শ্লোগানকে সামনে রেখে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহার ঘোষণা করলো বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। যাতে প্রাধান্য পেয়েছে বিগত এক দশকের উন্নয়নের ধারাবাহিকতার প্রতিশ্রুতি।

সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে শুরু হয় ইশতেহার প্রকাশের মূল আনুষ্ঠানিকতা। পরে ইশতেহারের সারসংক্ষেপ পড়ে শোনান দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। ২১ দফা অঙ্গীকারে সাজানো এই ইশতেহারে গুরুত্ব পেয়েছে গ্রামীণ উন্নয়ন, গণতন্ত্র ও আইনের শাসন, সেবামুখী জনপ্রশাসন ও অন্তর্ভূক্তিমূলক টেকসই উন্নয়ন।  

শেখ হাসিনা আশ্বাস দেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে নেয়া হবে বিশেষ পদক্ষেপ। যাতে থাকবে নতুন বিমানবন্দর প্রতিষ্ঠা, যমুনা নদীর তলদেশ দিয়ে টানেল নির্মাণসহ বুলেট ট্রেন চালু। 

দেশের তরুণ জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান ও সুস্থ্য বিনোদনের জন্য ভবিষ্যত পরিকল্পনাও তুলে ধরা হয় ইশতেহারে।  

এছাড়াও নগর ব্যবস্থাপনায় জবাবদিহিতা ও জনগনের অধিকতর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা, ১ বছরের নীচে ও ৬৫ বছরের উপরে সব নাগরিকদের জন্য বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেয়া, ২০২৩ সালের মধ্যে ৫ জি ইন্টারনেট সেবা ও গণমাধ্যমবান্ধব আইন করা সহ নানা আশ্বাস উঠে আসে ইসতেহারে। 

বিগত দিনের ভুলত্রুটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখে আগামীতেও জনগণ তাদের প্রতিই আস্থা রাখবে বলে আশা আওয়ামী লীগ সভাপতির। 

২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনকালে স্বাধীনতা বিরোধী কোনো শক্তি রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকলে, তা মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য গ্লানিকর হবে বলেও মনে করেন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২১ টি অঙ্গীকার হলো-

১. আমার গ্রাম, আমার শহর- প্রতিটি গ্রামে আধুনিক নগর সুবিধা সম্প্রসারণ

২. তারুণ্যের শক্তি- বাংলাদেশের সমৃদ্ধি: তরুণ যুব সমাজকে দক্ষ জনশক্তিকে রূপান্তরিত করা এবং কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা।

৩. দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ

৪. নারীর ক্ষমতায়ন, লিঙ্গ সমতা ও শিশুকল্যাণ

৫. পুষ্টিসম্মত ও নিরাপদ খাদ্যের নিশ্চয়তা,

৬. সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ ও মাদক নির্মূল

৭. মেগা প্রজেক্টগুলোর দ্রুত ও মানসম্মত বাস্তবায়ন

৮. গণতন্ত্র ও আইনের শাসন সুদৃঢ় করা

৯.  দারিদ্র্য নির্মূল

১০ সকল স্তরে শিক্ষার মান বৃদ্ধি

১১. সকলের জন্য মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার নিশ্চয়তা

১২. সার্বিক উন্নয়নে ডিজিটাল প্রযুক্তির অধিকতর ব্যবহার

১৩.  বিদ্যুৎ ও জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চয়তা

১৪. আধুনিক কৃষি ব্যবস্থা- লক্ষ্য যান্ত্রিকিকরণ

১৫. দক্ষ ও সেবামুখী জনপ্রশাসন

১৬. জনবান্ধব আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা

১৭ ব্লু ইকোনোমি- সমুদ্র সম্পদ উন্নয়ন

১৮.  নিরাপদ সড়কের নিশ্চয়তা

১৯ . প্রবীণ, প্রতিবন্ধী ও অটিজম কল্যাণ

২০. টেকসই উন্নয়ন ও অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ

২১. সরকারি ও বেসরকারি বিনিয়োগ বৃদ্ধি

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর