channel 24

সর্বশেষ

  • পত্রিকার সম্পাদকদের সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক

  • পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে না বাংলাদেশ হকি দল

  • বাংলা চলচ্চিত্রের উজ্জ্বল নক্ষত্র পরিচালক সুভাষ দত্ত

  • বলিউডে মুক্তি পেল যেসব ছবি

  • ভাষা আন্দোলন নিয়ে তৌকিরের পরিচালনায় নির্মিত হচ্ছে 'ফাগুন হাওয়ায়'

  • কোপা আমেরিকায় মেসির খেলা নিয়ে অনিশ্চিয়তা

  • উয়েফা নেশন্স লিগে মাঠে নামছে ইউরোপের দেশগুলো

  • চট্টগ্রামে অনুশীলনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

  • ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে সিরিজে সাকিব-তামিমের জন্য অপেক্ষায় টিম ম্যানেজমেন্ট

  • চট্টগ্রামে চলছে চাকরি মেলা

  • নরসিংদীর বাঁশগাড়িতে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  • নির্বাচনি ইশতেহারে স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়ার আহবান

  • রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারের ১০৭ কোটি ডলার লোকসান

  • মূলার বাম্পার ফলনের পরও লোকসানে লালমনিরহাটের চাষীরা

  • ইতিহাসের সাক্ষী হবার অপেক্ষায় নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম

দেশের শারদোৎসবে দিন দিন যুক্ত হচ্ছে নতুন মাত্রা: প্রধান বিচারপতি

দেশের শারদোৎসবে দিন দিন যুক্ত হচ্ছে নতুন মাত্রা: প্রধান বিচারপতি

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশের শারদোৎসবে দিনদিন নতুন মাত্রা যুক্ত হচ্ছে। আয়োজনে বেড়েছে জাঁকজমকতা। পুজা-মণ্ডপের মধ্যে আবদ্ধ না থেকে আমাদের শান্তিপ্রিয় জনগণ সামাজিক উৎসব হিসেবে পালন করছে। জাতির অগ্রগতিতে এভাবে সবার ঐক্যবদ্ধ থাকা অত্যন্ত জরুরি।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বনানী মাঠে গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে পাঁচ দিনব্যাপী ‘শারদীয় দুর্গোৎসব, ২০১৮’ উপলক্ষে আয়োজিত  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আবহমানকাল থেকে বাংলার প্রকৃতি বিভিন্ন রঙে রঙিন হয়েছে। কালের আবর্তনে, বিবর্তনে প্রতিবছরই শরৎকালে শারদীয় দুর্গাপূজা এ দেশে উদযাপিত হয়ে আসছে। শরতের কাশফুলের শুভ্রতা ও ঢাকের আওয়াজ বাঙালির সার্বজনীন উৎসবকে মহিমান্বিত করে তোলে। মহিষাসুর বধের জন্য দুর্গাদেবী আবির্ভূত হয়ে তাকে দমন করেন এবং শান্তি ও ধর্মের পুনঃস্থাপন করেন। ভালো এবং মন্দের সংগ্রাম চিরকালই চলে আসছে। শারদীয় পূজার ভাবাবেশ ও আসক্তি এখনো অমলিন রয়েছে। অশুভের বিরুদ্ধে শুভরই বিজয় হয়েছে’।

‘এ দেশের হিন্দু সম্প্রদায় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা ও উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে আবহমানকাল ধরে দুর্গাপূজা উদযাপন করে আসছে। এ উৎসব কেবল ধর্মীয় উৎসবই নয়, সামাজিক-সাংস্কৃতিক দিক থেকেও এর তাৎপর্য অপরিসীম। এটি এখন আর কেবল নির্দিষ্ট একটি ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই মিলে আনন্দ-উৎসবে সামিল হওয়ার মাধ্যমে এটি সার্বজনীনতা লাভ করেছে। এটি হয়েছে আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সব সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির সেতুবন্ধনকে সুদৃঢ় করার এক অনন্য সামাজিক উৎসব।’

তিনি বলেন, দুর্গাপূজা মূলত বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান পূজা ও ধর্মীয় উৎসব। ‘মহাভারত’ থেকে জানা যায়, কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধে জয় ত্বরান্বিত করতে অর্জুনকে দেবী দুর্গার স্তব করতে উপদেশ দেন শ্রীকৃষ্ণ। এর মাধ্যমে এই পূজার তাৎপর্য ও গুরুত্ব সম্যক উপলদ্ধি করা যায়। নিজের অহমিকা ও পশুত্বকে বলি দেওয়ার জন্য সর্বদা প্রস্তুত থাকাই এ পূজার মর্মকথা।

‘বাংলাদেশের শারদোৎসবে দিনদিন নতুন মাত্রা যুক্ত হচ্ছে। আয়োজনে বেড়েছে জাঁকজমকতা। পুজা-মণ্ডপের মধ্যে আবদ্ধ না থেকে আমাদের শান্তি-প্রিয় জনগণ সামাজিক উৎসব হিসেবে পালন করছে। জাতির অগ্রগতিতে এভাবে সবার ঐক্যবদ্ধ থাকা অত্যন্ত জরুরি। জ্ঞানের আলোয় আলোকিত হয়ে দেশের প্রতিটি মানুষ সব বাধা পেরিয়ে একটি উন্নত সমাজ গঠনে এগিয়ে আসবে- এটাই সবার প্রত্যাশা’।

অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর