channel 24

সর্বশেষ

  • পত্রিকার সম্পাদকদের সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক

  • পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে না বাংলাদেশ হকি দল

  • বাংলা চলচ্চিত্রের উজ্জ্বল নক্ষত্র পরিচালক সুভাষ দত্ত

  • বলিউডে মুক্তি পেল যেসব ছবি

  • ভাষা আন্দোলন নিয়ে তৌকিরের পরিচালনায় নির্মিত হচ্ছে 'ফাগুন হাওয়ায়'

  • কোপা আমেরিকায় মেসির খেলা নিয়ে অনিশ্চিয়তা

  • উয়েফা নেশন্স লিগে মাঠে নামছে ইউরোপের দেশগুলো

  • চট্টগ্রামে অনুশীলনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

  • ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে সিরিজে সাকিব-তামিমের জন্য অপেক্ষায় টিম ম্যানেজমেন্ট

  • চট্টগ্রামে চলছে চাকরি মেলা

  • নরসিংদীর বাঁশগাড়িতে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  • নির্বাচনি ইশতেহারে স্বাস্থ্য খাতকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়ার আহবান

  • রাইড শেয়ারিং অ্যাপ উবারের ১০৭ কোটি ডলার লোকসান

  • মূলার বাম্পার ফলনের পরও লোকসানে লালমনিরহাটের চাষীরা

  • ইতিহাসের সাক্ষী হবার অপেক্ষায় নোয়াখালী শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা হতে পারে ২০ জনের

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা হতে পারে ২০ জনের

কমবেশি কুড়িজনকে নিয়ে হবে ২০১৮-এর নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা। যার নেতৃত্বে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই সরকার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অবস্থানকেই মেনে নিয়েছে সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টি। তবে জাতীয় ঐক্যের নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলছেন নির্বাচনের সময় নিরপেক্ষ সরকার গঠনে সংবিধান কোন বাধা নয়।

২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি সংসদের দশম অধিবেশন বসে। সংবিধান অনুযায়ী ওই সংসদের মেয়াদ শেষ হবে আগামী জানুয়ারির একই দিনে।

সংবিধান অনুযায়ী এই সংসদের মেয়াদ শেষের আগের ৯০ দিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে সাধারণ নির্বাচন। সম্ভাব্য তারিখ ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহের যেকোনো দিন। সংবিধানের ৫৬ এর ৪ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী এই অন্তর্বতীকালীন সময়ে বর্তমান সংসদের সদস্যদের নিয়েই গঠিত হবে নির্বাচনকালীন সরকার।

আওয়ামী লীগের এই নীতি নির্ধারক বলছেন ওই সরকারের আকার তেমন বড় হবে না।

রাজনৈতিক মহলে আলোচনা অক্টোবরের শেষ দিকে গঠিত হতে পারে অন্তর্বতীকালীন সরকার। এই সরকার নিয়ে বিএনপিসহ অন্যান্য কয়েকটি রাজনৈতিক দল কথা বলছে ভিন্ন সূরে?

তবে এই সূরের সাথে একমত নয় সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টি। তারা আস্থা রাখছেন শেখ হাসিনাতেই।

২০০৫-০৬ সালে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে আওয়ামী লীগের সাথে একই মঞ্চে উঠেছিলেন ড. কামাল-বি চৌধুরীর মতো বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদরা। সঙ্গে ছিলেন এরশাদও। ওই ঘটনা স্মরণ করে ড. কামাল বলছেন, এখনো নির্বাচনের সময় নিরপেক্ষ সরকার জনগণের দাবি।

নব্বই পরবর্তী গণতন্ত্রের যুগে তিনটি জাতীয় নির্বাচন হয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে। তবে উচ্চ আদালতের রায়ে সেই বিধান বাতিল হলে ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয় সংসদ সদস্যদের নিয়ে গঠিত ছোট মন্ত্রিসভার সরকারের অধীনে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর