channel 24

সর্বশেষ

  • তাজিয়া মিছিলের নিরাপত্তায় সর্বোচ্চ ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

  • কোটা নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি মিছিল

  • একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার কাজ শেষ; রায় ১০ অক্টোবর

  • ইভিএম কিনতে ৪ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন একনেকে

  • বিএনপি নেতা আমীর খসরুর সম্পদ অনুসন্ধানে দুদকের অভিযান

  • ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭.৮৬ শতাংশ: পরিকল্পনামন্ত্রী

কারাগারে আদালত নিয়ে আইনজীবীদের ভিন্ন ভিন্ন মত

কারাগারে আদালত নিয়ে আইনজীবীদের ভিন্ন ভিন্ন মত

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আদালত স্থানান্তরের পর থেকেই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। বিএনপির আইনজীবীরা বলছেন, কারাগারের ভেতর এভাবে বিচার করার নজির উপমহাদেশ নেই। তবে সিনিয়র আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলছেন, ভারতে এমন অসংখ্য নজির রয়েছে। উদাহরণ আছে বাংলাদেশেও।

জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা দুটির একসাথেই বিচার চলছিলো বক্সীবাজার অস্থায়ী আদালতে। অরফানেজ মামলায় রায় হলেও গেলো ৬ মাসেও এগুয়নি চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার কার্যক্রম। অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে প্রতিটি হাজিরার সময় আদালতে আসতে অনীহা দেখান খালেদা জিয়া।

গেলো মঙ্গলবার চ্যারিটেবল মামলাটির বিচারকাজ চালিয়ে নিতে পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে আদালক স্থানান্তর করা হয়। পরদিন সেই কারা অভ্যন্তরে আদালতে খালেদা জিয়াকে হাজির করে বিচারকাজ শুরু হয়। যদিও উপস্থিত ছিলেন না তার আইনজীবীরা। পরিস্থিতি পর্যালোচনায় একাধিক বৈঠকে বসেন, বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা। তাদের দাবি, কারাগারের ভেতরে আদালত বসিয়ে উপমহাদেশে বিচারিক ইতিহাসে নতুন নজির স্থাপন করেছে সরকার।

তবে সিনিয়র আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, আদালত পরিবর্তনের এমন অজস্র নজির আছে ভারতে। এ নিয়ে বিতর্ক অহেতুক।

খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার কথা ভেবেই আদালত স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন, এটর্নি জেনারেল।  

সেনা সমর্থিত তত্তাবধায়ক সরকারের আমলেও দুই নেত্রী বিচারের জন্য সংসদ ভবন এলাকায় সাব জেল করে আদালত স্থানান্তর করা হয়।

 

 

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর