channel 24

সর্বশেষ

  • সম্পদের তথ্য গোপন: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য...

  • ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার ৩ বছরের কারাদণ্ড

  • এবার সব দলের অংশগ্রহণে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে...

  • কোনো পর্যবেক্ষণ সংস্থা দায়িত্ব পালনে অনিয়ম করলে ব্যবস্থা: ইসি সচিব

  • তৃতীয় দিনের মতো চলছে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার

  • গুলশানে জাপার মনোনয়নপ্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠান চলছে...

  • জাতীয় পার্টি যে জোটে তারাই ক্ষমতায় আসবে: রুহুল আমিন হাওলাদার

ইভিএম কিনতে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা চায় ইসি

ইভিএম কিনতে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা চায় ইসি

নির্বাচনে ইভিএম মেশিন কেনার জন্য সরকারের কাছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা চেয়েছে নির্বাচন কমিশন। দেড় লাখ মেশিন কেনার জন্য এরই মধ্যে ৭৯৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার ঋণপত্রও খোলা হয়েছে। বিশ্লেষকরা প্রশ্ন তুলেছেন ইসির তাড়াহুড়ার এই উদ্যোগে। যেখানে পরিকল্পনাপ্রতিমন্ত্রী জানালেন, যাচাইবাছাই চলছে এই প্রস্তাব।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে ১০০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন-ইভিএম ব্যবহার নিয়ে এই বাহাস রাজনীতিতে ছড়াচ্ছে নতুন উত্তাপ।

সরকার প্রধান ডিজিটাল এ পদ্ধতি ব্যবহারের পক্ষে থাকলেও, তার পরামর্শ এ নিয়ে তাড়াহুড়ো না করার।

তবে থেমে নেই ইভিএম ব্যবহারে নির্বাচন কমিশনের প্রস্তুতির আয়োজন। এরইমধ্যে এ প্রকল্পের জন্য সরকারের কাছে প্রায় ৩ হাজার ৮২৯ কোটি টাকা চেয়েছে সংস্থাটি। পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো সেই প্রস্তাবে বলা হয়েছে, নির্বাচন স্বচ্ছ, গ্রহণযোগ্য ও প্রযুক্তিনির্ভর করতে ইভিএম ব্যবহার দরকার। সাথে প্রয়োজন কমিশনের তিন হাজার জনবলের দক্ষতা বাড়ানো।

প্রকল্প অনুমোদন না হলেও, দেড় লাখ ইভিএম কিনতে এরইমধ্যে ৭৯৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার ঋণপত্র খুলেছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনের মাত্র তিন মাস আগে ইভিএম নিয়ে ইসির এই তাড়াহুড়োতে প্রশ্ন তুলেছেন বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, এ রাজনীতিতে যেমন ভিন্নমত রয়েছে, তেমনি আছে দক্ষ জনবলের সংকটও।

তবে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী জানালেন, যাচাই-বাছাইয়ের পরই ইসির প্রস্তাবের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে সরকার। তবে, সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে ইসিকে সবধরনের সহযোগিতা দেয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে সরকারের।

পাঁচ বছর মেয়াদি এ প্রকল্পটি চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করতে এরই মধ্যে সায় দিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর