channel 24

সর্বশেষ

  • জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যোগ দিতে...

  • নিউইয়র্ক যাওয়ার পথে যাত্রাবিরতিতে লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী

  • কক্সবাজারের উদ্দেশে সড়ক পথে আ.লীগের সাংগঠনিক সফর শুরু...

  • নির্বাচনে জনপ্রিয় ব্যক্তিদের মনোনয়ন দেয়া হবে: কুমিল্লায় সেতুমন্ত্রী

  • রেলপথের মতো সড়কপথের প্রচারণাতেও ব্যর্থ হবে আ.লীগ: রিজভী

  • ২০১৮'র শেষ অথবা ২০১৯'র শুরুতে জাতীয় নির্বাচন: সিইসি...

  • আইনগত ভিত্তি পেলেই ইভিএম ব্যবহার করা হবে

  • নরসিংদীতে ব্রহ্মপুত্র নদে নৌকাডুবি; ভাইবোনসহ ৩ জনের মৃত্যু

নূন্যতম চাহিদা মিললেও, রোহিঙ্গারা ফিরতে চান নিজ দেশে

নূন্যতম চাহিদা মিললেও, রোহিঙ্গারা ফিরতে চান নিজ দেশে

বদলে গেছে রোহিঙ্গাদের জীবনযাত্রা। মাথা গোঁজার ঠাঁই, খাবার, স্যানিটেশন, চিকিৎসা ন্যূনতম সব চাহিদাই অর্ধেকের বেশি রোহিঙ্গার হাতের নাগালে। এখন তারা ভাবছেন সন্তানদের পড়াশোনা নিয়েও। তবে সবকিছুর পরও তাদের চাওয়া আপন গৃহের অধিকার।
মেঘের ভেলায় দিন যায় মাস যায় এবার বছরও গেলো বলে। কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের জীবনযাত্রা পাল্টে গেছে অনেকটাই। থেমেছে কান্নার রোল। স্রেফ আশ্রয় নয়, সময়ের সাথে পূরণ হচ্ছে ন্যূনতম দিনযাপনের প্রায় সব চাহিদাই। সরকারি-বেসরকারি সংস্থাগুলোর কল্যাণে খোলা আকাশের নিচে নেই কেউই। আছে বিশুদ্ধ পানি। স্যানিটেশনটাও ঠিকঠাক। ত্রাণ পাচ্ছেন প্রয়োজনেরও বেশি। কেউ কেউ ঘরের পাশেই করছেন নানা সবজির চাষ।
চিকিৎসাও মিলছে হাতের নাগালে। শিশুদের শিক্ষাটাও বাদ নেই। চলে খেলাধূলা-শরীরচর্চাও। রোহিঙ্গা শিবিরগুলো ঘিরে নানা জায়গায় চলছে উন্নয়ন কাজ। বেসরকারি সংস্থাগুলোও এগুচ্ছে বড় পরিকল্পনা নিয়ে। তবে যতো কিছুই হোক, নিজের ঘরে ফিরতে ঠিকই চান। কিন্তু অনিশ্চয়তা যে কাটেনি এখনো।
রোহিঙ্গাদের বাসস্থানের চিত্র বদলাচ্ছে প্রতিনিয়ত। ভাঙাচোরা ঘরের বদলে তৈরি হচ্ছে দীর্ঘস্থায়ী আশ্রয়। সাথে দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে প্রত্যাবাসনও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর