channel 24

সর্বশেষ

  • নয়াপল্টনে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া...

  • ইটপাটকেল-টিয়ারশেল নিক্ষেপ; পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর ও আগুন

সরকারি চাকরিতে কোটা চায় না পর্যালোচনা কমিটি

সরকারি চাকরিতে কোটা চায় না পর্যালোচনা কমিটি

সরকারি চাকরিতে কোটা বাদ দেয়ার পক্ষে, কোটা সংস্কার বাতিল ও পর্যালোচনায় গঠিত সরকারি কমিটি। তবে রায় থাকায় মুক্তিযোদ্ধা কোটার বিষয়ে আদালতের মতামত চাওয়া হবে। মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এসব জানান, মন্ত্রিপরিষদ সচিব। বলেন, সময় এসেছে মেধাকে প্রাধান্য দিয়ে উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নিয়োগের। এদিকে কওমি মাদরাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স ডিগ্রির সমমান প্রদান আইন ২০১৮ এর খসড়া মন্ত্রিসভায় নীতিগত অনুমোদন পেয়েছে।

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন রক্তক্ষয়ী রূপ নিলে জাতীয় সংসদে সব ধরনের কোটা বাতিলের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। গেল দোসরা জুলাই বিষয়টি পর্যালোচনায় মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে প্রধান করে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি করে দেয় সরকার।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানাতে, সচিবালয়ে ব্রিফিং করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব। এ সময় কোটা সংস্কার নিয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, পর্যালোচনা কমিটির সুপারিশ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে প্রাথমিকভাবে সব ধরনের কোটাই তুলে দেয়ার পক্ষে মত কমিটির সদস্যদের।

তবে মুক্তিযোদ্ধা কোটা সংরক্ষণ নিয়ে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে সরকারকে আদালতের মতামত চাইতে হবে বলেও মনে করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।
কোটা তুলে দিলে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কী হবে? তারও ব্যাখ্যা দেন কমিটির প্রধান।
এ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এ কে আজাদ চৌধুরী বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সরকারি চাকরিতে কোটা রয়েছে। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের অবদানের সর্বোচ্চ সম্মান দেয়ার পাশাপাশি ভাবতে হবে মেধাবীদের কথাও।
প্রথমে কোটা সংস্কারে গঠিত কমিটিকে ১৫ দিন সময় দেয়া হলেও, পরে তা ৯০ কার্যদিবস পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর