channel 24

সর্বশেষ

  • জামায়াত অন্য নামে এলেও জনগণের বুঝতে সমস্যা হবে না: অ্যাটর্নি জেনারেল

  • একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগে...

  • বিএনপির আরও ৪ প্রার্থীর মামলা হাইকোর্টে

  • হল থেকে ভোটকেন্দ্র সরানোসহ সব দাবি আজকের মধ্যে...

  • না মানলে কাল ভিসি কার্যালয় ঘেরাও: বামপন্হি ছাত্র সংগঠনের ২ জোট

  • কিশোরগঞ্জে ২ কলেজছাত্রী ধর্ষণ ও হত্যা: পুলিশ সদস্যসহ ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

  • রাজধানীর মগবাজার ফ্লাইওভার থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

  • নোয়াখালীতে বজ্রপাতে বাবা-ছেলে ও সিরাজগঞ্জে দেয়ালধসে নিহত ২

  • ২১ মে'র মধ্যে দেশের সব টেলিভিশন চ্যানেল...

  • বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ ব্যবহার করবে: অ্যাটকো...

  • আগামী ৬ মাসের মধ্যে পে চ্যানেলে যাচ্ছে দেশের সব টেলিভিশন

  • চট্টগ্রামে চাক্তাইয়ে ভেড়া মার্কেট বস্তিতে আগুন; ৯ জনের মরদেহ উদ্ধার...

  • দুই পরিবারের ৭ ও অজ্ঞাত ২ জন; তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি

  • সংসদে সংরক্ষিত আসনে ৪৯ জনকে সরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা

  • ৫ হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের চেয়ে স্কুল গুরুত্বপূর্ণ...

  • হাইকোর্টের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় দুদক চেয়ারম্যান

  • দুর্নীতি রোধে মানুষের মানসিকতার ইতিবাচক পরিবর্তন দরকার: আইনমন্ত্রী

  • মাদক ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণের নামে সরকার তামাশা শুরু করেছে: ড. মোশাররফ

  • পরাজয়ের ভয়ে ছাত্রদল ডাকসু নির্বাচনে আসতে চাচ্ছে না: ছাত্রলীগ

  • হল থেকে ভোটকেন্দ্র সরানোসহ সব দাবি আজকের মধ্যে...

  • না মানলে কাল ভিসি কার্যালয় ঘেরাও: বামপন্থি ছাত্র সংগঠনের ২ জোট

সমুদ্রের গভীরে ডাক বাক্স!

সমুদ্রের গভীরে ডাক বাক্স!

ই-মেল, মেসেজ, হোয়াট্‌স্যাপ-এর যুগে চিঠি লেখার অভ্যাসটাই হারিয়ে গিয়েছে। তাইতো দিন দিন পোস্ট অফিস কমে যাচ্ছে। এখন আর দেখা যায় না লাল রঙের, গোল মাথাওয়ালা ছোট থামের মতো দেখতে সেই ডাক বাক্স যা একটা সময় শহরের অলিতে গলিতে দেখা যেত।

এমন পরিস্থিতিতেও একটি লাল, গোল মাথাওয়া ডাক বাক্স হয়ে উঠেছে হাজার হাজার পর্যটকদের মূল আকর্ষণ। হাজার হাজার চিঠি নিয়মিত জমা পড়ে এই ডাক বাক্সে। এই বাক্সে চিঠি ফেলতে দূর-দূরান্ত থেকে হাজার হাজার পর্যটকদরা ছুটে আসেন প্রতি বছর। তাও আবার সমুদ্রের গভীরে গিয়ে তাদের চিঠি ফেলতে হয় ডাক বাক্সে।

অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন কোথায় আছে এমন ডাক বাক্স? সমুদ্রের গভীরে ওই ডাক বাক্স পৌঁছাল কী করে? গভীর সমুদ্রে ডুব দিয়ে কারা ওখানে চিঠি ফেলতে যান? কে বা কারা ওই চিঠি সেখান থেকে তুলে আনেন? আর যদি কেউ চিঠিগুলো তুলেও আনেন, তাহলে সেগুলো কি আর চিঠি বলে চেনা যায়? সত্যি এমন ডাক বাক্স আছে? ইত্যাদি নানা প্রশ্ন।

এই ডাক বাক্স রয়েছে জাপানের সুসামি শহরে। প্রতি বছর কয়েকশো পর্যটক ‘ডিপ সি ডাইভিং’ করতে গিয়ে এই ডাক বাক্সে চিঠি ফেলে আসেন।

জাপানের সুসামি শহরে মূলত মৎস্যজীবী মানুষের বাস। প্রায় পাঁচ হাজার মৎস্যজীবী এখানে বসবাস করেন। ১৯৯৯ সালের এপ্রিলে এখানে ‘কুমানোকোদো’ ধর্মীয় উৎসবকে কেন্দ্র করে পর্যটন প্রসারের উদ্যোগ নেওয়া হয়। আর সেই সময় এক প্রবীণ পোস্টমাস্টারের পরামর্শ অনুযায়ী ‘ডিপ সি ডাইভিং’-এর পরিকাঠামো গড়ে তোলা হয়। আর এরই প্রধান অঙ্গ হিসেবে সমুদ্রের গভীরে বসানো হয় এই ‘আন্ডার ওয়াটার পোস্টবক্স’।
 
সমুদ্র সৈকত থেকে ১০ মিটার দূরে এবং ৩২ ফুট গভীরে বসানো হয় ডাক বাক্সটি। ১৯৯৯ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় ৩৬ হাজার চিঠি পড়েছে এই ডাক বাক্সে।

ভাবছেন, জলের তলায় চিঠিপত্র টিকবে কী করে? স্থানীয় দোকানে পাওয়া যায় বিশেষ ওয়াটারপ্রুফ কাগজ, খাম আর বিশেষ মার্কার পেন।

মার্কার পেন দিয়ে ওয়াটারপ্রুফ কাগজে চিঠি লিখে জলের নীচে গিয়ে নিজেদের চিঠি পোস্ট করেন পর্যটকরা। নির্দিষ্ট সময় পর পর পোস্টাল ডাইভাররা সেই চিঠিগুলি তুলে এনে  সেগুলিকে পাঠিয়ে দেন স্থানীয় ডাকঘরে। এর মোটামুটি এক সপ্তাহের মধ্যে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়া হয় চিঠিগুলিকে।

ছয় মাস পর পর ডাকবাক্সটি তুলে আনা হয় রং আর মেরামতির জন্য। দু’টি ডাকবাস্ক এ ভাবে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে রেখে আসা হয় সমুদ্রের তলায়। ২০০২ সালে ‘ডিপেস্ট আন্ডার ওয়াটার পোস্টবক্স’ হিসেবে গিনেস রেকর্ডের বইয়ে জায়গা করে নেয় সুসামির এই ডাক বাক্সটি। তবে সুসামির এই ডাক বাক্সটিই বিশ্বের একমাত্র ‘আন্ডার ওয়াটার পোস্টবক্স’ নয়। প্রশান্ত মহাসাগরের ভানুয়াতো দ্বীপরাষ্ট্রে পর্যটক টানতে প্রথম শুরু হয়েছিল আন্ডারওয়াটার পোস্ট বক্স। তারই অনুকরণে জাপানের সুসামিতে তৈরি হয় এই ‘আন্ডার ওয়াটার পোস্টবক্স’।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

লাইফস্টাইল খবর