channel 24

সর্বশেষ

  • জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা...

  • রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় ভারসাম্য আনা...

  • নির্বাচনকালীন সরকারের বিধানসহ ১৪ প্রতিশ্রুতি...

  • পরপর দুবারের বেশি প্রধানমন্ত্রী থাকা যাবে না...

  • পুলিশ ও সামরিক বাহিনী ছাড়া সরকারি চাকরির বয়সসীমা তুলে দেয়া...

  • অনগ্রসর জনগোষ্ঠী ও প্রতিবন্ধী ছাড়া সব কোটা বাতিল...

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা এবং...

  • সংখ্যালঘুদের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয় গঠনের প্রতিশ্রুতি

রং ফর্সাকারী ক্রিমের বিপদ

রং ফর্সাকারী ক্রিমের বিপদ

রং ফর্সা করতে গিয়ে অনেকেই ত্বকের ক্যান্সারসহ নানা রোগের ঝুঁকির মুখে। নামি দামি ব্র্যান্ডের পাশাপাশি তাৎক্ষণিক উজ্জ্বলতার বাহারি সব ক্রিমের দিকে ঝুঁকছেন ক্রেতারা।

চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব ক্রিম ক্ষতিকর উপাদানে ভরা। যা ব্যবহারকারীর শরীরে নানা রকম চর্ম রোগ সৃষ্টি করছে। শুধু তাই নয়, দীর্ঘ দিন ব্যবহারে ক্যান্সারসহ অন্য অনেক ভয়ঙ্কর রোগের কারণ হতে পারে এসব ক্রিম।

রূপচর্চায় প্রসাধনীর ব্যবহারের ইতিহাস কমবেশি ১০ হাজার বছর পুরোনো। শুরুটা হয়েছিলো প্রাকৃতিক নানা উপাদান দিয়ে এরপর সময় যত গড়িয়েছে এইসব উপাদানে এসেছে বৈচিত্র, বেড়েছে প্রসাধনী আর ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির কলেবর। আর খুব স্বাভাবিকভাবেই বেড়েছে বাণিজ্যও।

ফর্সা মানেই সুন্দর- এই ধারণার সাথে বেড়েছে রং ফর্সাকারী ক্রিমের ব্যবহার। এরজন্য অনেকে যেমন নামীদামি ব্র্যান্ডের ক্রিম ব্যবহার করছেন তেমনি ইনস্ট্যান্ট ফেয়ারনেসের নামে অনেকে ক্ষতিকর ক্রিমের দিকেও ঝুঁকছেন। রাজধানীসহ জেলাশহরে স্কিন শাইন, গোরী, চাঁন্দনী সহ নানা নামের ক্রিমের বিক্রি ও ব্যবহার ক্রমেই বাড়ছে।

দুশো থেকে আড়াইশো টাকা দামের এই ক্রিমের বেশীরভাগেরই মোড়কে লেখা মেড ইন পাকিস্তান। আবার দেশেও নানাভাবে প্রস্তুত করে অসাধু একটি চক্র।

চর্ম বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক জানালেন, ক্ষতিকর ক্রিম ব্যবহারে ত্বকের ক্যান্সারসহ নানা রোগের ঝুঁকি তৈরী করে।

ক্ষতিকর এসব ক্রিমের বিষয়ে সচেতনতা যেমন দরকার তেমনি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ দিলেন বিশেষজ্ঞ এই চিকিৎসক।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

লাইফস্টাইল খবর