channel 24

সর্বশেষ

  • এবারের প্রেক্ষাপট ভিন্ন; সব দলের উপস্থিতিতে...

  • অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায় কমিশন: সিইসি...

  • ভোটের তারিখ পেছানোর আর কোনো সুযোগ নেই...

  • সরকার বহাল থেকে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়, এবার প্রমাণ হবে

  • নির্বাচন পেছানোর দাবি নিয়ে কাল দুপুর ১২টায়...

  • নির্বাচন কমিশনে যাবেন ঐক্যফ্রন্টের নেতারা: ফখরুল

  • মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ফরম জমা দিতে পারবেন আজ...

  • নির্বাচন পেছানোর দাবি অযৌক্তিক: ওবায়দুল কাদের

  • আ.লীগের সাথে জোটবদ্ধ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে: মাহি বি. চৌধুরী

ঘরে চাই প্রশান্তি; তবে জেনে নিন কিছু টিপস

ঘরে চাই প্রশান্তি; তবে জেনে নিন কিছু টিপস

সারাদিনের কর্মব্যস্ততার পর ক্লান্ত শরীর চায় একটু প্রশান্তি। আর নিজের ঘরটি হচ্ছে সেই প্রশান্তির জায়গা। এজন্য প্রত্যেক মানুষ চায় তার ঘরটি হোক সুন্দর করে সাজানো গোছানো এবং ছিমছাম। ঘর সাজাতে অনেক কিছু করার ইচ্ছা থাকলেও সব সময় পছন্দের ঘর সাজানোর জিনিস কিনতে পারা যায় না। কিন্তু চাইলেই একটু বুদ্ধি খাটিয়ে খুব কম খরচে এবং নতুন আঙ্গিকে নিজের ঘরকে সাজানো যায়। এর জন্য প্রয়োজন শুধুমাত্র কিছু কৌশলের। তাহলে আসুন, জেনে নেই ঘর সাজানোর কিছু টিপস।

১. ঘরকে আকর্ষনীয় করে তুলতে রঙ অনেক কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তাই ঘরের আকার এবং আপনার প্রয়োজন অনুসারে রঙ নির্বাচন করুন। দীর্ঘ কাজের পরে আরাম বা প্রশান্তির জন্য যে কোন হালকা রঙ নির্বাচন করুন। হালকা রং ব্যবহারে ঘরকে কিছুটা বড়ও দেখায়। আবার ঘরের অন্দরসজ্জা থেকে আপনি যদি এনার্জি সংগ্রহ করতে চান তাহলে উজ্জল বা গাঢ় রং ব্যবহার করতে পারেন। যদিও গাঢ় রং ব্যবহারে ঘরকে কিছুটা ছোট দেখা যায়। যদি নতুন করে রং করা সম্ভব না হয় তবে আগের রঙের ওপর আবার নতুন এক কৌটা রং লাগিয়ে নিন দেখবেন ঘরের উজ্জলতা বেড়ে গেছে।

২. ঘর রঙের পরেই আসে আসবাবপত্র নির্বাচন। আসবাবপত্র কেনার সবচেয়ে ভালো সময় হতে পারে যে কোনও উৎসবের মুহুর্ত। এ সময় দোকানগুলোতে বিশেষ ছাড়ের সুযোগও পাওয়া যেতে পারে। তাই সাধ ও সাধ্য অনুযায়ী আসবাবপত্র নির্বাচন করুন, অথবা পুরানো আসবাবপত্রকেই রঙের মাধ্যমে নতুন লুক দিতে পারেন। আবার আসবাবপত্রের জায়গা পরিবর্তন করেও কিন্তু ঘরকে একটু ভিন্ন লুক দেয়া যেতে পারে।

৩. খাট হোক বা সোফা, ডিভাইন হোক বা ফ্লোরিং সবকিছুই কুশন ছাড়া যেন বেমানান। রঙিন কুশন ব্যবহারের মাধ্যমে ঘরের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। আপনার সোফার রঙ খুব সাধারণ অনুজ্জ্বল হলেও তার সঙ্গে রঙিন কুশন মানিয়ে যাবে সহজেই। যে কোনো একটি উজ্জ্বল রঙের কুশন দিয়ে সোফা ও বিছানা ভরিয়ে তুলতে পারেন। আবার চার পাঁচটি রঙ এর কুশন কভারও ব্যবহার করতে পারেন।

৪. পর্দা ছাড়া এখনকার দিনে ঘরের সৌন্দর্য ভাবাই যায় না। ঘর এবং আসবাবপত্রের রঙের সাথে মিলিয়ে পর্দা নির্বাচন করতে পারেন। তবে এই গরমে হালকা রঙের পর্দা ব্যবহার করা ভাল। হালকা রঙের পর্দায় বাইরের তাপ কম শোষিত হয় ফলে ঘরের তাপমাত্রা কম রাখতে সাহায্য করে। বাজারে বিভিন্ন ডিজাইনের পর্দা পাওয়া যায়। সেখান থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী পর্দা নির্বাচন করুন। অথবা পুরানো শাড়ি দিয়েও নিজেই তৈরি করতে পারেন আপনার মনের মত পর্দাটি।

৫. গাছ ঘরকে রঙিন ও জীবন্ত করে তুলতে সাহায্য করে। ঘর সাঁজাতে কিংবা শখের বশে কিংবা ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে যাই হোক না কেন গাছের বিকল্প নেই। ঘরে আলো বাতাস যদি পর্যাপ্ত থাকে তবে জানালার ধার ঘেঁষে লতানো গাছ, বারান্দায় ঝুলন্ত বাহারি ফুল গাছ আপনার ঘরকে এনে দেবে আলাদা প্রাণ। ঘরে আলো বাতাস নেই? তাহলে আপনার জন্যে রয়েছে বাহারি ক্যাকটাস। সামান্য যত্নেই যা আপনার ঘরকে করে তুলবে প্রাণবন্ত।

এছাড়াও বুকশেলফ, ফটো ফ্রেম, ফুলদানি, পেইন্টিংস, শোপিস ইত্যাদি দিয়ে আপনার ঘরকে নতুনভাবে সাঁজাতে পারেন। ঘরে ভিন্নতা আনতে ব্যবহার করতে পারেন ফেলে দেওয়া বাতিল জিনিসপত্র। আজকাল কোন কিছুই ফেলনা নয়। চাইলে অনলাইনে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে বাতিল জিনিস গুলো দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন সুন্দর সব শোপিস। যা দেখতে শৈল্পিক ও দৃষ্টিনন্দন সাথে আপনার খরচের টাকাও বেঁচে যাবে। মোটকথা ক্লান্ত শরীর অথবা একান্ত কিছু সময় কাটানো অথবা আতিথেয়তার জন্য যে কারনেই হোক না কেন আপনার ঘরটি যেন হয় আপনার প্রশান্তির ছায়া।

সর্বশেষ সংবাদ

লাইফস্টাইল খবর