channel 24

সর্বশেষ

  • জাতিসংঘের পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড পেলো ভূমি মন্ত্রণালয়

  • পুলিশ-চিকিৎসকসহ দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল

  • করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা যাবে ১ মিনিটেই!

  • করোনা থেকে বাঁচতে প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম: প্রধানমন্ত্রী

  • সড়কে যানবাহনের চাপ বাড়লেও রেল ও নৌপথে যাত্রী কম

  • বরিশালে ইমামকে জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতনের ঘটনায় মামলা

  • করোনায় অনিশ্চিত এ বছরের হজযাত্রা

  • করোনায় মারা গেছেন রানা প্লাজার মালিক আব্দুল খালেক

  • যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা: ৪ পুলিশের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ গঠন

  • অর্থ সহায়তায় ও চাল বিক্রিতে অনিয়ম: এ পর্যন্ত ৮৭ ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্য বরখাস্ত

  • করোনায় প্রাণ গেল আরও এক পুলিশ সদস্যের

  • এএসপির বিরুদ্ধে নির্যাতন আর যৌতুকের অভিযোগ স্ত্রীর

  • পায়ের পেশির ইনজুরিতে লিওনেল মেসি

  • আম্পানে পটুয়াখালীতে ক্ষতিগ্রস্থ ৬ হাজার মাছের ঘের

  • সব বাধা পেরিয়ে চিকিৎসক হতে চায় হতদরিদ্র পরিবারের ছেলে মাসুদ

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত করবে না আইসিসি

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত করবে না আইসিসি

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনা তদন্ত করবে না আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন জানায়, রোম চুক্তির পক্ষ না হওয়ায় মিয়ানমারে নির্যাতনের বিষয়টি তদন্ত করা যাবে না। তবে রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনার তদন্ত হবে। আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মিয়ানমার অংশ বাদ দিয়ে তদন্ত হলে তা শক্তিশালী হবে না।

রোম চুক্তির মাধ্যমে যে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি) গঠিত হয়েছে তাতে সই করেনি সুদান। তারপরও দেশটির দারফুরে গণহত্যার বিষয়টি আইসিসিতে পাঠায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। ২০০৫ সালে তদন্ত শুরু হলে সহযোগিতা করতে বাধ্য হয় সুদান।

রোম চুক্তিতে সই করেনি মিয়ানমারও। তবুও রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতার বিচারের উদ্যোগ নিয়েছে আইসিসি। কিন্তু এ বিষয়ক কোনো প্রস্তাবই পাঠায়নি নিরাপত্তা পরিষদ।

আইসিসি বলছে, রোম চুক্তি অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্ত সদস্য রাষ্ট্রের আবেদন নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব অথবা আইসিসির প্রসিকিউশন স্বপ্রণোদিত হয়ে যে কোনো অপরাধের বিচারের উদ্যোগ নিতে পারে। যাতে প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে প্রসিকিউশন। তবে সেখানকার নৃশংসতার ঘটনার তদন্ত করবে না তারা।

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে ঠাঁই নিয়েছে রোহিঙ্গারা। রোম চুক্তিতে সই করেছে বাংলাদেশ। তাই এ বিষয়ে তদন্ত করা হবে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের শনাক্তের পর গ্রেপ্তারে সহযোগিতা চাওয়া হবে।

তবে রাখাইনে যেহেতু মূল অপরাধ সংঘঠিত হয়েছে তাই সেটিকে বাদ দিয়ে তদন্ত শক্তিশালী হবে না। রোহিঙ্গা নির্যাতনের সাথে জড়িতদের বিচারে অনেক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তাই এই বিচার করা খুব কঠিন।

নিউজটির ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর