channel 24

সর্বশেষ

  • আবরার হত্যার আসামি নাজমুস সাদাত ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিদ্ধান্ত সঠিক...

  • এ নিয়ে রিট গ্রহণযোগ্য নয়: হাইকোর্টকে অর্থ মন্ত্রণালয়

  • বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলা: ২০ জনের জামিন; ৩ জন কারাগারে

  • রংপুরে পুলিশ হেফাজতে আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ৫ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

  • সড়ক দুর্ঘটনা এড়াতে সবাইকে সচেতন হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী...

  • ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন..

  • ঢাকা-কুড়িগ্রাম আন্তনগর ট্রেন সার্ভিসের উদ্বোধন

  • আবরার হত্যা: চার্জশিট হওয়ার আগ পর্যন্ত একাডেমিক অসহযোগ থাকবে...

  • চার্জশিটের পর স্থায়ী বহিষ্কার সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত: আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা...

  • তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পর জড়িতদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত: বুয়েট ভিসি

  • মানবতাবিরোধী অপরাধ: এনএসআইয়ের সাবেক মহাপরিচালক...

  • ওয়াহিদুলের বিচার শুরু; সাক্ষ্যগ্রহণ ২৪ নভেম্বর

  • দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি দুর্নীতি মামলায়...

  • ২০ জনের জামিন মঞ্জুর; ৩ জনকে কারাগারে প্রেরণ

  • অবৈধ সম্পদ অর্জন: গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের...

  • প্রশাসনিক কর্মকর্তা ওবায়দুলসহ ৯ জনকে দুদকে তলব

  • রংপুরের পীরগঞ্জে আসামিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ...

  • এলাকাবাসীর বিক্ষোভ; পুলিশ দাবি আত্মহত্যা

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত করবে না আইসিসি

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত করবে না আইসিসি

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনা তদন্ত করবে না আর্ন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন জানায়, রোম চুক্তির পক্ষ না হওয়ায় মিয়ানমারে নির্যাতনের বিষয়টি তদন্ত করা যাবে না। তবে রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দেয়ার ঘটনার তদন্ত হবে। আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মিয়ানমার অংশ বাদ দিয়ে তদন্ত হলে তা শক্তিশালী হবে না।

রোম চুক্তির মাধ্যমে যে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি) গঠিত হয়েছে তাতে সই করেনি সুদান। তারপরও দেশটির দারফুরে গণহত্যার বিষয়টি আইসিসিতে পাঠায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। ২০০৫ সালে তদন্ত শুরু হলে সহযোগিতা করতে বাধ্য হয় সুদান।

রোম চুক্তিতে সই করেনি মিয়ানমারও। তবুও রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতার বিচারের উদ্যোগ নিয়েছে আইসিসি। কিন্তু এ বিষয়ক কোনো প্রস্তাবই পাঠায়নি নিরাপত্তা পরিষদ।

আইসিসি বলছে, রোম চুক্তি অনুযায়ী ক্ষতিগ্রস্ত সদস্য রাষ্ট্রের আবেদন নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব অথবা আইসিসির প্রসিকিউশন স্বপ্রণোদিত হয়ে যে কোনো অপরাধের বিচারের উদ্যোগ নিতে পারে। যাতে প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গাদের তাড়িয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে প্রসিকিউশন। তবে সেখানকার নৃশংসতার ঘটনার তদন্ত করবে না তারা।

মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে ঠাঁই নিয়েছে রোহিঙ্গারা। রোম চুক্তিতে সই করেছে বাংলাদেশ। তাই এ বিষয়ে তদন্ত করা হবে। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের শনাক্তের পর গ্রেপ্তারে সহযোগিতা চাওয়া হবে।

তবে রাখাইনে যেহেতু মূল অপরাধ সংঘঠিত হয়েছে তাই সেটিকে বাদ দিয়ে তদন্ত শক্তিশালী হবে না। রোহিঙ্গা নির্যাতনের সাথে জড়িতদের বিচারে অনেক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তাই এই বিচার করা খুব কঠিন।

নিউজটির ভিডিও প্রতিবেদন-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর