channel 24

সর্বশেষ

  • কমলাপুর স্টেশনে ট্রেনের বগি থেকে নারীর মরদেহ উদ্ধার

  • ২২ তারিখের বৈঠকে বকেয়া বিষয়ে সিদ্ধান্ত: ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন...

  • পাওনা পরিশোধের নির্দেশনা না এলে...

  • তৈরি হবে অচলাবস্থা: হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন

  • জাতীয় স্কুল মিল নীতিমালার খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন...

  • প্রাথমিকে মোট ক্যালরির ৩০ ভাগ পূরণ করতে হবে স্কুলকে

  • নকশা জালিয়াতি: বনানীর এফ আর টাওয়ারের মালিক ফারুক গ্রেপ্তার

  • খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে না পেরে বিদেশে নালিশ করছে বিএনপি: সেতুমন্ত্রী

  • ডেঙ্গু: ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১,৬১৫ জন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • ঢাকা, বরিশাল, খুলনা, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহে ৬ জনের মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া নয়, আ.লীগের লোকজন জড়িত: ফখরুল

  • জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা ভিপি নুরের

  • নবম ওয়েজ বোর্ড নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আদেশ কাল...

  • সাংবাদিক ছাড়া গণমাধ্যম মালিকদের অস্তিত্ব নেই: আপিল বিভাগ

  • খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কার্যালয়ে দুদকের অভিযান চলছে

  • তিন দিনের সফরে রাতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চীনে বিয়ের নামে প্রতারিত হচ্ছেন পাকিস্তানের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নারীরা

চীনে বিয়ের নামে প্রতারিত হচ্ছেন পাকিস্তানের খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নারীরা

পাকিস্তানে বিয়ের নামে প্রতারিত হচ্ছেন সংখ্যালঘু খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নারীরা। আর এ প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে চীনা পুরুষদের বিরুদ্ধে। দুদেশের দালালদের মাধ্যমে এ প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছেন তারা। আর মোটা অর্থের বিনিময়ে এ কাছে সাহায্য করছেন দেশটির গির্জার পাদ্রীরাও।

২০ কোটি মানুষের দেশ পাকিস্তানে প্রায় ২৫ লাখ খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীর বসবাস। সম্প্রতি বিয়ের নামে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন দেশটির খ্রিস্টান নারীরা।

চীনে পুরুষের অনুপাতে নারী কম। তাই বিয়ের জন্য বিভিন্ন দেশ থেকে নেয়া হয়, মেয়েদের। এতে প্রায়ই ছলচাতুরির আশ্রয় নেয়, দালালরা। এমনকি চীনা পুরুষদের ধর্মীয় পরিচয়ও গোপন করে তারা। পাকিস্তানের পাঞ্জাবের অনেক খ্রিস্টান নারীই এর শিকার।

চীনা পুরুষদের বিত্তশালী দাবি করে, মেয়ের বাবা-মার হাতে কয়েক হাজার ডলার ধরিয়ে দেয় দালালরা। তবে সে অর্থের পুরোটাই চলে যায় বিয়ের আয়োজনে।

পাত্রী খুঁজতে পাকিস্তানি দালালদের সাথে যোগাযোগ করে চীনা দালালরা। কখনও কখনও দ্বারস্থ হয় গির্জারও। মোটা অর্থের বিনিময়ে তাদের সহায়তা করেন পাদ্রীরা। পাত্র পক্ষের কাছ থেকে চীনা দালালরা ৩০-৩৫ লাখ রুপি নিলেও পাকিস্তানি দালালরা পায় ২-৩ লাখ রুপি।

নিজেদের খ্রিস্টান দাবি করা এই চীনা নাগরিকদের সাথে খ্রিস্ট ধর্মের কোন সম্পর্ক নেই। তাই এ বিয়েগুলো অস্বাভাবিক এবং এর কোনো আইনি ভিত্তি নেই। আমি এ ধরনের বিয়েকে মানব পাচারই মনে করি।

অভিযোগ আছে, যাচাই-বাছাই ছাড়াই চীনা এই বধূদের ভিসা দিচ্ছে পাকিস্তানে থাকা দেশটির দূতাবাস। যদিও এ সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে চীন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর