channel 24

সর্বশেষ

  • অ্যালকোহল কারখানার বর্জ্যে দূষিত হচ্ছে নদীর পানি; হুমকিতে মাছসহ জলজ প্রাণী

  • অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান পিআরও কর্মকর্তার ইন্তেকাল

  • জ্বর ও সর্দি-কাশি নিয়ে আজও প্রাণ গেলো ৯ জনের

  • যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের মনোনয়ন নিশ্চিত

  • 'পোশাক কারখানার শ্রমিক ছাঁটাইয়ের কথা বলেননি বিজিএমইএ সভাপতি'

  • সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসকসহ ২৭৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী বেতন পান না দু'মাস

  • ঢাকাতে করোনা নিয়ে 'দ্য ইকোনমিস্টের' তথ্য সঠিক নয়: স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়

  • শ'খানেক কর্মহীন পরিবার রাঁধেন এক হাঁড়িতে, পতিত জমিতে ফলান সবজি

  • ডিপ কোমায় সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

  • পাবনায় ২ জনকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা

  • গণপরিবহন চালুর ষষ্ঠ দিনেও তুলনামূলক যাত্রী কম রাজধানীতে

  • কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার প্রতিবাদে এখনও অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র

  • ক্রিকেট বোর্ডের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন, ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের অনুমতি

  • পাকিস্তানি নারী ক্রিকেট দলের কোচ বরখাস্ত

  • জার্মান লিগে রাতে আলাদা ম্যাচে নামছে বায়ার্ন-ডর্টমুন্ড

বাড়ি ফিরতে চায় হোদা মুতানা

বাড়ি ফিরতে চায় হোদা মুতানা

হোদা মুতানা। জন্ম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। যোগ দিয়েছিলেন জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএস’এ। এখন থাকছেন উত্তর সিরিয়ার একটি ক্যাম্পে। যিনি এখন যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে যেতে চান।

মার্কিন গণমাধ্যম ফক্স নিউজ তাকে সেই ক্যাম্প থেকে খুঁজে বের করেছে। ফক্স নিউজকে হোদা মুতানা জানান, 'আমি বাড়ি ফিরে যেতে চাই। আমি আমার পরিবারকে দেখতে চাই। সিরিয়া নিরাপদ না। আমার সরকার যা বলবে আমি তাই করবো।'

কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলছে, হোদা মুতানা তাদের নাগরিক নয়। যুক্তরাষ্ট্রে যখন তার জন্ম হয়, তখন তারা বাবা ইয়েমেনি কূটনীতিক ছিলো।’ যদিও মুতানার আইনজীবী এই বিষয়ে আইনী লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন তারা মুতানাকে স্বাগত জানাবে না। ডোনাল্ড ট্রাম্প ফেব্রুয়ারিতে এক টুইটে জানান, তিনি তার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নির্দেশনা দিয়েছেন হুদা মুতানাকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে যেন অনুমতি না দেয়া হয়।

মুতানা আইএসআইএস’র মুখপাত্র হিসেবে কাজ করেছিলেন এবং তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হত্যার আহ্বান জানিয়েছিলেন।
যদিও  মুতানা দাবি করেছেন, আইএসআইএস তার টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করেছিলো। এবং সেখান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কথা বলা হতো।

তবে এখন মুতানা আধুনিক মানুষ হতে চায়। ফক্স নিউজকে সে জানায়, সিরিয়ায় আসার আগে সে কোনো অপরাধ করেনি এবং ফিরে যেতে পারলে ভবিষ্যতে আর কোনো অপরাধ করবে না। 

সে স্বীকার করে বলে, ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বরতম জঙ্গি সংগঠনের সাথে সে যুক্ত হয়েছিলো। তার ব্রেন ওয়াশ করা হয়েছিলো। মুতানা জানায় সে যুক্তরাষ্ট্রকে ঘৃণা করে না।

মুতানার জন্ম যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সিতে। সে অনলাইনের মাধ্যমে মৌলবাদী হয়। ১৯ বছর বয়সে আইএসআইএস’এ যোগ দিতে প্রথমে সে বিমানে করে তুরস্কে যায়। সেখান থেকে সীমান্ত পার হয়ে সিরিয়ায় প্রবেশ করে। সেখান থেকে মুতানা তার পরিবারকে জানায় সে জঙ্গি সংগঠনের সাথে আছে।

রাকা যখন আইএসআইএস’র এর রাজধানী ছিলো তখন তাকে আটক করা হয়। তার বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত আটকে রাখা হয়। তার প্রথম স্বামী ছিলো সুহান রহমান, যে অস্ট্রেলিয়ার যোদ্ধা হিসেবে পরিচিত ছিলো। এরপর তার একাধিক বিয়ে হয়। তবে সব স্বামী মারা গেছে। 
এখন তারা ১৯ মাস বয়সী এক সন্তান আছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর