channel 24

সর্বশেষ

  • স্কুল বন্ধ থাকাকালীন ৫০ শতাংশ বেতন নেয়াসহ ৪ দফা দাবি অভিভাবকদের

  • ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও চট্টগ্রামে পশুর হাট স্থাপন না করার সুপারিশ

  • ৭২ ঘন্টার মধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অপসারণের দাবি

  • করোনা সংক্রমণ বাড়ছেই, বড় কারণ অসতর্কতা

  • কুমিল্লা মেডিকেলে করোনা চিকিৎসা নিয়ে নানা প্রশ্ন

  • সাহারা খাতুনের দাফন সম্পন্ন

  • চলতি বছরেই শুরু দিনাজপুরের বিরল স্থলবন্দরের কার্যক্রম

  • এখনও স্থবিরতা কাটেনি রাজধানীর শপিং মলগুলোতে কেনাকাটায়

  • গত অর্থবছরে রপ্তানি আয়ে ভয়াবহ বিপর্যয়; একমাত্র বেড়েছে পাট পণ্যের চাহিদা

  • করোনা পরীক্ষায় র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন ও অ্যান্টিবডি টেস্ট পদ্ধতি চালু করতে চায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • রিজেন্ট হাসপাতালে বিল নিয়ে বাহাস ছিল নিত্যদিনের ঘটনা

  • সাহেদের প্রতারণায় নিঃস্ব চট্টগ্রামের অনেক ব্যবসায়ী

  • সাহারা খাতুনের মরদেহ ঢাকায়, জানাজা শেষে দাফন করা হবে বনানী কবরস্থানে

  • তিস্তার পানি ফের বিপৎসীমার উপরে

  • 'সাহারা খাতুন ছিলেন রাজপথে আন্দোলনের বলিষ্ঠ কণ্ঠ'

গ্রেপ্তার নয়, কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে সিবিআই: সুপ্রিম কোর্ট

গ্রেপ্তার নয়, কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে সিবিআই: সুপ্রিম কোর্ট

সারদা কাণ্ড ইস্যুতে আপাতত গ্রেপ্তার নয়, কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজিব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা (সিবিআই)।

কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজিব কুমারের বাড়িতে সিবিআই কর্মকর্তাদের অভিযান নিয়ে উত্তপ্ত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার ও কেন্দ্র। সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় সিবিআই। মঙ্গলবার (৫ ফেব্রুয়ারি) মামলার শুনানীতে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ৩ সদস্যের বেঞ্চ জানান, রাজিবকে গ্রেপ্তার নয় বরং শিলংয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

আদালতের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, আদালত ও গণমাধ্যমের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। সুপ্রিম কোর্ট আজ ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শুরু থেকেই আমরা বলে আসছিলাম কখনোই পুলিশ কমিশনারকে এভাবে গ্রেপ্তার করতে পারে না।

এদিকে, মমতা ও কেন্দ্রীয় সরকারের মুখোমুখি অবস্থানে কলকার্তার ধর্মতলা যেন এখন একখণ্ড সরকার বিরোধী মঞ্চ। ৩ দিন ধরেই গণতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষার দাবিতে এখানে ধরনা কর্মসূচি পালন করছেন মমতা। যাতে একাত্ততা জানিয়েছে, প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসসহ অখিলেশের সমাজবাদি পার্টি, কেজরিওয়ালের আম আদমিসহ আঞ্চলিক কয়েকটি দল।

নয়াদিল্লি আম আদমি পার্টি নেতা ও মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার পশ্চিমবঙ্গে যা শুরু করেছে, তা নিরেট আইন ও সংবিধানের লঙ্ঘন। এমনকি এটা গণতন্ত্রেরও পরিপন্থী।  

সিবিআই ইস্যুতে মমতার এ সরকার বিরোধী আন্দোলনের কড়া সমালোচনা করেছেন, ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতারা।  

আইনমন্ত্রী রবি শঙ্কর প্রসাদ বলেন, মাত্র ৫ বছর আগে রাহুল গান্ধী মমতার চিটফাণ্ডের ঘটনার তদন্ত দাবি করেছেন। এখন সেই রাহুল-ই তার পক্ষে মাঠে নেমেছেন। এটা কেমন রাজনীতি। দুর্নীতিবাজরা অন্য আরেক দুর্নীতিবাজকে রক্ষায় জোট বেধেছে। আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আম আদমি নেতা কেজরিওয়ালের পথ অনুসরণ করে সরকারের বিরুদ্বে মাঠে নেমেছেন।

সিবিআই'র দাবি, কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের সরাসরি তত্ত্বাবধানে চিট ফান্ড কেলেঙ্কারি মামলা তদন্ত করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ। কিন্তু তিনি আটককৃত ল্যাপটপ, মোবাইল থেকে যথাযথ তথ্য উদ্ধার করতে ব্যর্থ হন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর