channel 24

সর্বশেষ

  • বাংলাদেশ দলে ধারাবাহিকতার প্রতীক মুশফিক

  • প্রিয় ডটকমের সহকারী সম্পাদক ফাগুনের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা

  • বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ভারতের পরিসংখ্যান

  • অন্যায়ের সঙ্গে আপস করেননি বলেই খালেদা জিয়া কারাগারে বন্দি: ফখরুল

  • বিশ্বকাপে বাংলাদেশর শুভেচ্ছাদূত আব্দুর রাজ্জাক

  • বিশ্বকাপে সাকিব হতে পারে প্রতিপক্ষের জন্য ভয়ঙ্কর: রিকি পন্টিং

  • চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরলেন রাষ্ট্রপতি

  • বৃষ্টি বাধায় বাংলাদেশ-পাকিস্তান প্রস্তুতি ম্যাচ পরিত্যক্ত

  • 'আদর্শিক ও রাজনৈতিকভাবে জঙ্গিবাদকে মোকাবিলা করতে হবে'

  • শূন্য থেকে শুরু; এখন ২শ' বিঘা জমিতে গড়া বাগানের মালিক আলফাজুল

  • কক্সাবাজারে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিক্ষার্থী নিহত

  • কক্সবাজারে জেলেদের সহায়তার দাবিতে মানববন্ধন

  • ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির শেষদিনেও পিছু ছাড়েনি ভোগান্তি

  • বান্দরবানে বন্য হাতির আক্রমণে নিহত ১

  • ফটোশুট ও গেমসে মাতলো সাকিব-তামিম-মুশফিকরা

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার সংখ্যা কমলেও ঝুঁকি রয়ে গেছে

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার সংখ্যা কমলেও ঝুঁকি রয়ে গেছে

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলা কমলেও এখনো ঝুঁকি রয়েছে। উৎকণ্ঠা আছে শাহজালাল বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে। এছাড়া, প্রস্তুত করা হয়নি, জঙ্গি নজরদারির কোনো তালিকা। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের সন্ত্রাসবাদ বিষয়ক বার্ষিক প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে। তবে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সরকারের গৃহিত 'জিরো টলারেন্স' নীতির প্রশংসা করেছে, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর।

গেল বছরের মার্চে ঢাকা ও সিলেটে ৩ দফা জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। ঐ ৩ টি হামলাকেই আইএসের কর্মকাণ্ড বলা হয়েছে, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের সন্ত্রাসবাদ বিষয়ক বার্ষিক প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ২০১৭ সালে দেশজুড়ে অনেক হামলা চেষ্টা নস্যাৎ করতে সক্ষম হয় বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দাবি, সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় সরকার স্থানীয় জঙ্গিদের দায়ি করলেও, ২০১৫ থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে ৪০ টির মতো হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস এবং আল কায়েদা ইন দি ইন্ডিয়ান সাবকন্টিনেন্ট-আইকিউআইএস। জঙ্গিবাদ প্রসারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন কন্টেন্ট ছড়ানো অব্যাহত আছে।

গেল বছর, নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে বিমান হামলার চেষ্টায় জড়িত সন্দেহে এক পাইলট দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। ঐ ঘটনার ২ মাস আগে, নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানকালে আত্মঘাতী বোমায় মারা যান পাইলটের বাবা।

তবে, ২০১৬'র চেয়ে, গেল বছর বাংলাদেশে জঙ্গি তৎপরতা কম থাকলেও, এখনো হামলার ঝুঁকি রয়ে গেছে।  

সীমান্ত ও বিদেশে যাওয়া আসার পয়েন্টেগুলোতে নজরদারি প্রশংসা করলেও উৎকণ্ঠা আছে শাহজালাল বিমানবন্দেরের নিরাপত্তা নিয়ে।

জঙ্গি নজরদারির কোনও তালিকাও প্রস্তুত করেনি বাংলাদেশ।

জঙ্গিবাদ সংক্রান্ত অপরাধ প্রমাণে বাংলাদেশের সীমাবদ্ধতার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র মনে করে, জঙ্গিদের আর্থিক ও অন্যান্য সহায়তা দেয়ার মতো জটিল অভিযোগের তদন্ত করা ও অভিযোগ প্রমাণের সক্ষমতাও অপ্রতুল বাংলাদেশে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর