channel 24

সর্বশেষ

  • প্রিয়া সাহার বক্তব্য ত্রুটিপূর্ণ ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়...

  • অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে আইনি ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী...

  • প্রিয়া সাহার বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য ও উসকানিমূলক: ওবায়দুল কাদের...

  • উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহী ও মদদদাতাদের বিরুদ্ধে ২৮ জুলাই থেকে ব্যবস্থা

  • যোগাযোগে বিঘ্ন ঘটায় বন্যাদুর্গত এলাকায় ত্রাণ পৌঁছাতে সময় লাগছে: প্রতিমন্ত্রী

  • সরল বিশ্বাসের ব্যাখ্যায় দুর্নীতি শব্দটি ছিল না, দাবি দুদক চেয়ারম্যানের

  • আগস্টের মধ্যে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার উন্মুক্ত হবে, আশা প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর

  • 'ছেলেধরা' সন্দেহে গণপিটুনি: ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে নারীসহ নিহত ২...

  • চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, গাজীপুরে ৩ নারী ও পাবনায় যুবক আহত; কুষ্টিয়ায় আটক ১

  • তিন ওয়ানডে খেলতে শ্রীলঙ্কার পথে বাংলাদেশ দল...

  • সাকিব-মাশরাফী না থাকায় সিরিজ কঠিন হবে: তামিম ইকবাল

ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক জোড়া লাগানো নিয়ে সন্দিহান রাজনীতিবিদরা

ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক জোড়া লাগানো নিয়ে সন্দিহান রাজনীতিবিদরা

ইমরান জমানায় নয়াদিল্লি-ইসলামাবাদ সম্পর্ক জোড়া লাগানো নিয়ে সন্দিহান, ভারতের রাজনীতিবিদরা। তারা বলছেন, পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হাতেই থাকছে ক্ষমতার রাশ। তবে, দুদেশের বৈরিতা কমাতে ইমরানেই আশার আলো দেখছেন, পাকিস্তানের রাজনীতিকরা।

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ কাশ্মিরের উরির সেনাঘাঁটিতে হামলায় ১৮ ভারতীয় সেনার প্রাণহানির নতুন করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নয়াদিল্লি-ইসলামাবাদ সম্পর্ক। তবে আপাত শান্তির বার্তায় দিলেন পাকিস্তানের ভাবি প্রধানমন্ত্রী সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খান।
ইমরান খান বলেন, ভারত যদি একধাপ এগিয়ে আসে, তাহলে আমরা দুই ধাপ এগিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত।
ইমরানের এমন ঘোষণাকে সাধুবাদ জানিয়েছে ভারত। এমনকী তাকে অভিনন্দনও জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। তবে, ইমরান জমানায় নয়াদিল্লির সঙ্গে আদৌ সুসর্স্পক সম্ভব কী না, তা নিয়ে সন্দিহান ভারতের কূটনীতিকরা।   
ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শশী থারুর জানান, ইমরান যেসব দলের সাথে জোট করতে যাচ্ছেন, তারা কট্টরপন্থি। অনেকাংশেই মোল্লা-মিলিটারি জোট গড়ছেন। যার নিয়ন্ত্রণ সেনাবাহিনীর হাতে। দুদেশের সর্ম্পক নির্ভর করছে তাদের মর্জির ওপর।
বিজেপি নেতা সুব্রামানিয়াম স্বামী বলেছেন পাকিস্তানের সব রাজনীতিবিদই আইএসআই আর সেনাবাহিনীর পুতুল। কাশ্মির নিয়ে ইমরান যে সংকট সমাধানের কথা বলছেন তাও অবাস্তব।  

অবশ্য, পাকিস্তানের রাজনীতিবিদদের দাবি, স্বচ্ছ ভাবমূর্তির ইমরানের পক্ষেই নয়াদিল্লি-ইসলামাবাদের মধ্যকার বৈরিতা ঘুচানো সম্ভব।

পিটিআই নেতা সালেম আওন বলেন, তিনি কাশ্মির নিয়ে ভারতের সাথে যৌক্তিক আলোচনার কথা বলেছেন। কারণ এ সংকট সমাধান হলে, দুদেশের জন্যই লাভ। জঙ্গি দমনেও তিনি তালেবানের সঙ্গে  আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছেন।

ইমরান এমন সময় দায়িত্ব নিচ্ছেন, যখন দেশটির অর্থনীতি নড়বড়ে, মুদ্রার মান ২০ শতাংশ পড়ে গেছে। বাড়ছে মূল্যস্ফিতি, পাল্লা দিয়ে বাড়ছে, বাণিজ্য ঘাটতিও। বিশ্লেষকরা বলছেন, নির্বাচনে জয়ী হতে সেনাবাহিনী সহযোগিতা করলেও, আগামী দিনে ক্ষমতার সমীকরণ ইমরানের জন্য সহজ নাও হতে পারে।
 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর