channel 24

সর্বশেষ

  • কোচিং বাণিজ্য: উইলস লিটল স্কুলের ৩০ শিক্ষককে দুদকের শোকজ

  • নাটোরের বাগাতিপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের নিহত ৩

  • রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধান দীর্ঘায়িত হলে বাংলাদেশ সমস্যায় পড়বে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • এসএসসি ও সমমান পরীক্ষাকালীন কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে: শিক্ষামন্ত্রী

  • জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধীর সন্তানরা যেন সরকারি চাকরি না পায়...

  • তার জন্য আইন করতে হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

  • সমাজে ব্যাধির মতো ছড়িয়ে গেছে দুর্নীতি: প্রধানমন্ত্রী...

  • সব অপরাধ দমনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে তৎপর থাকার নির্দেশ

  • ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সাংবাদিকদের...

  • উদ্বেগের বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করছে সরকার: তথ্যমন্ত্রী

  • রিজার্ভ চুরি: চলতি মাসেই নিউইয়র্কে মামলা- অর্থমন্ত্রী

  • হলি আর্টিজান মামলার আসামি জঙ্গিনেতা মামুন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক রমিজ উদ্দিন সরকার ও...

  • তার স্ত্রীর সম্পদের হিসাব দিতে দুদকের নোটিশ

জনসন বেবি পাউডারে অ্যাসবেসটস আছে কিনা পরীক্ষা করবে বাংলাদেশ

জনসন বেবি পাউডারে অ্যাসবেসটস আছে কিনা পরীক্ষা করবে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক প্রসাধনী সামগ্রী উৎপাদনকারী জনসন অ্যান্ড জনসনের বেবি পাউডারে ক্যান্সার সৃষ্টিকারক ক্ষতিকর উপাদান অ্যাসবেসটস রয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখবে বাংলাদেশ।

বিএসটিআই পরিচালক এস.এম ইসহাক আলি রয়টার্সকে বলেন, আমরা কয়েক দিনের মধ্যেই বাজার থেকে আমরা নমুনা সংগ্রহ করব। এই পরীক্ষা দেশে কিংবা দেশের বাইরে হতে পারে। বেবি পাউডারে অ্যাসবেসটস পাওয়ার আগ পর্যন্ত পণ্যটি বাজারজাত করণ বন্ধ করবে না বাংলাদেশ।

গত সপ্তাহে রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানায়, জনসনের বেবি ও ট্যালকম পাউডারে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী ক্ষতিকর অ্যাসবেসটসের উপস্থিতির কথা কয়েক দশক ধরেই জানত জনসন অ্যান্ড জনসন।

তবে জনসন এই প্রতিবেদনকে ভুয়া ও একপাক্ষিক বলে আখ্যায়িত করে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারত সরকারের নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্ধারিত মান নিশ্চিত করে ভারতে উৎপাদিত ট্যালকম পাউডার দেশটিসহ প্রতিবেশী শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপে বিক্রি হয়। তাদের উৎপাদিত ট্যালকম পাউডার নিয়মিতই সরবরাহকারী ও স্বতন্ত্র পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করা হয় অ্যাসবেসটস মুক্ত কিনা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্বীকার করে যে, মানব শরীরে অ্যাসবেসটস’র গ্রহনের কোনও নিরাপদ মাত্রা নেই। অ্যাসবেসটস গ্রহণকারী অনেকেরই কখনোই ক্যান্সার হয় না আবার কারও কারও ক্ষেত্রে সামান্য পরিমাণও বহু বছর পরে ক্যান্সার সৃষ্টির জন্য দায়ী। তবে কত সামান্য পরিমাণ তা নির্ধারণ করা হয়নি।

জনসন অ্যান্ড জনসনের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরকারীরা অভিযোগ করেছেন, দূষিত ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করার সময়ে যে সামান্য পরিমাণ অ্যাসবেসটস তারা গ্রহণ করেছেন তা ক্যান্সার সৃষ্টির জন্য যথেষ্ট।

গত জুলাইতে ২২ নারীকে ৪৭০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে জনসন অ্যান্ড জনসনকে নির্দেশ দেয় আদালত। এই নারীরা দাবি করেছিলেন কোম্পানির ট্যালকম পণ্যের কারণে তাদের ডিম্বাশয়ের ক্যান্সার ছড়িয়েছে। কোম্পানির ইতিহাসে সর্বোচ্চ এই ক্ষতিপূরণের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর