channel 24

সর্বশেষ

  • 'আদর্শিক ও রাজনৈতিকভাবে জঙ্গিবাদকে মোকাবিলা করতে হবে'

  • শূন্য থেকে শুরু; এখন ২শ' বিঘা জমিতে গড়া বাগানের মালিক আলফাজুল

  • কক্সাবাজারে দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে শিক্ষার্থী নিহত

  • কক্সবাজারে জেলেদের সহায়তার দাবিতে মানববন্ধন

  • ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির শেষদিনেও পিছু ছাড়েনি ভোগান্তি

  • বান্দরবানে বন্য হাতির আক্রমণে নিহত ১

  • ফটোশুট ও গেমসে মাতলো সাকিব-তামিম-মুশফিকরা

  • এয়ারক্রাফ্ট ছিনতাই চেষ্টা নস্যাতে: ক্রুদের সম্মাননা জানালো বিমান

  • দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর হালদায় ডিম ছেড়েছে কার্প জাতীয় মাছ

  • খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে অপরাজনীতি না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

  • নুসরাত হত্যা: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার অভিযোগ প্রমাণিত

  • টানাপোড়নের মধ্যেই হুয়াওয়ের নতুন স্মার্ট ডিভাইস উন্মোচন

  • ক্রেতাদের পদচারণায় মুখর চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর ও বি. বাড়িয়ার বিপণি বিতান

  • কেরালায় হামলার উদ্দেশ্যে নৌপথে শ্রীলঙ্কা ছেড়েছে ১৫ আইএস জঙ্গি

  • ঘন্টায় ৩৬০ কিলোমিটার গতির বুলেট ট্রেনের পরীক্ষা চালালো জাপান

রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমেই জানা যাবে ক্যান্সার আছে কিনা

রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমেই জানা যাবে ক্যান্সার আছে কিনা

রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমেই জানা যাবে শরীরে মরণব্যাধি ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে কিনা। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের হাত ধরে এমন উদ্ভাবনের প্রক্রিয়া চলছে গত ২ বছর ধরে। গবেষকরা বলছেন, এক বছরের মধ্যেই প্রয়োগের জন্য উপযুক্ত হতে পারে যন্ত্রটি। পুরোপুরি সফলতা মিললে ক্যান্সার শনাক্তে এই পদ্ধতি হবে চিকিৎসা ব্যবস্থায় নতুন মাইল ফলক।

মরণব্যাধি রোগ ক্যান্সার। তবে প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পড়লে এ রোগ সারানোর সম্ভাবনা অনেকখানি। কিন্তু ক্যান্সার শনাক্তের যেসব পদ্ধতি চালু আছে,তা যেমন সময়সাপেক্ষ তেমনি ব্যয়বহুলও।

এ অবস্থায় আশার আলো দেখাচ্ছেন, সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। প্রায় দু'বছর ধরে তারা কাজ করছেন ক্যান্সার শনাক্তের যন্ত্র উদ্ভাবনে। বলছেন, এটি দিয়ে ক্যান্সার পরীক্ষা করা যাবে দ্রুত,আর জনপ্রতি খরচ পড়বে ৫শ টাকারও কম।

পদার্থবিজ্ঞানের শিক্ষক ও গবেষক দলের প্রধান ডক্টর ইয়াসমীন হক জানান, এরই মধ্যে ৬০ জন ক্যান্সার আক্রান্ত রোগী এবং ৬০ জন সুস্থ মানুষের রক্ত পরীক্ষা করে সফলতা পেয়েছেন তারা। গবেষকদের আশা, ক্যান্সার শনাক্তের যন্ত্রটি বাজারে আসতে এক থেকে দেড় বছর সময় লাগতে পারে। আর চিকিৎসকরা বলছেন, এতে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে। নন-লিনিয়ার অপটিকস ব্যবহার করে বায়োমার্কার নির্ণয়- প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সহায়তা করছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর